অধ্যাপক মোবাশ্বারসহ নিখোঁজ ব্যক্তিদের খুঁজে বের করার দাবি সুজনের

নিজস্ব প্রতিবেদক

নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান অনুষদের সহকারী অধ্যাপক মোবাশ্বার হাসান সিজারসহ বিভিন্ন সময়ে নিখোঁজ ব্যক্তিদের খুঁজে বের করা দাবি জানিয়েছে সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন)।

আজ বৃহস্পতিবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে সংগঠনটির সভাপতি এম হাফিজউদ্দিন খান ও সম্পাদক ড. বদিউল আলম মজুমদার এ দাবি জানান।

বিবৃতিতে তারা বলেন, মোবাশ্বার হাসান সিজার একজন মেধাবী শিক্ষক ও গবেষক। সরকারের এ টুআই প্রকল্পের একটি সভায় অংশ নিতে ওই দিন তিনি আগারগাঁওয়ের আইডিবি ভবনে যান এবং সেখান থেকে বের হওয়ার পরই নিখোঁজ হন। এ নিয়ে গত আগস্টের শেষ সপ্তাহ থেকে নভেম্বররের প্রথম সপ্তাহ পর্যন্ত আড়াই মাসে রহস্যজনকভাবে রাজনীতিক, ব্যবসায়ী, সাংবাদিক, ছাত্রসহ নয়জন নিখোঁজ হয়েছে।

নাগরিক হিসেবে একের পর এক এরকম ঘটনায় আমরা অত্যন্ত উদ্বিগ্ন ও বিচলিত। কী কারণে মুবাশ্বার হাসান নিখোঁজ হলেন, কেউ তাকে তুলে নিয়ে গেলো কি না, সে বিষয়টি এখনো স্পষ্ট নয়। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা এর সাথে যুক্ত কি না, এ বিষয়েও অনেকের মনে সন্দেহ রয়েছে। যদিও এ বিষয়ে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের সংবিধানের ৩২ অনুচ্ছেদে 'জীবন ও ব্যক্তি স্বাধীনতার অধিকার’ হতে কোনো ব্যক্তিকে বঞ্চিত না করার এবং ৩৬ অনুচ্ছেদে বাংলাদেশের সর্বত্র অবাধ চলাফেরা করার অধিকার প্রত্যেক নাগরিকের জন্য নিশ্চিত করা হয়েছে। সংবিধানের এ বাধ্যবাধকতা অনুযায়ী, প্রত্যেক নাগরিকের জান-মালের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার দায়িত্ব সরকারের।

নাগরিকের ব্যক্তিগত নিরাপত্তা নিশ্চিত করার দায় সরকারের। সরকার তথা আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর দায়িত্ব সব নিখোঁজ ব্যক্তিদের খুঁজে বের করা এবং তাদের স্বজনদের কাছে ফিরিয়ে দেয়া। একইসাথে যারা এসব ভয়াবহ কর্মকাণ্ডের সাথে যুক্ত তাদেরকে খুঁজে বের করে আইনের আওতায় আনা এবং দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা করা। তাই বিবৃতিতে অবিলম্বে সরকারকে এ ব্যাপারে দৃষ্টি নিবদ্ধের আহ্বান জানানো হয়।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.