ঢাকা, মঙ্গলবার,২১ নভেম্বর ২০১৭

অন্যান্য

মঙ্গলগ্রহে জন্ম তার!

নয়া দিগন্ত অনলাইন

০৯ নভেম্বর ২০১৭,বৃহস্পতিবার, ১৩:২০ | আপডেট: ০৯ নভেম্বর ২০১৭,বৃহস্পতিবার, ১৩:৪৫


প্রিন্ট

 

দীর্ঘ কয়েক দশক ধরে মঙ্গলগ্রহে বসতি স্থাপনের স্বপ্ন দেখছে সভ্যতা। এ নিয়ে অনেকদূর এগিয়েও গেছেন গবেষকরা। নাসার লক্ষ্য ২০৩০ সালে মঙ্গলের মাটিতে মানুষ পাঠাবে তারা। কিন্তু তার আগেই চাঞ্চল্যকর দাবি করলেন এক রুশ তরুণ। তার দাবি, মঙ্গলের বাসিন্দা তিনি।

২০ বছর বয়সী বরিস্কা কিপ্রিয়ানোভিচের পরিবারের দাবি, জন্মের কয়েক মাসের মধ্যেই সবাইকে চমকে দিয়ে কথা বলতে শিখে যায় সে। সেই থেকেই ভিনগ্রহীদের সভ্যতা ও জীবন নিয়ে নানা কথা বলে বরিস্কা।

 

পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছেন, বরিস্ক এমন সব কথা বলেন, যা তার সামনে আলোচনা হয়নি কখনো। তারা দাবি করেছেন, দুই বছর বয়সের মধ্যে পড়তে, লিখতে ও ছবি আঁকতে যায় বরিস্কা।

পেশায় চিকিৎসক বরিস্কার মা জানান, ছেলের যে বিশেষ প্রতিভা রয়েছে তারা সেটি বুঝতে পারেন জন্মের কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই। তখনই কারো সাহায্য ছাড়া মাথা উঁচু করতে পারত সে।

তার দাবি, মঙ্গলের পৃষ্ঠে সভ্যতা বিলুপ্ত হলেও মঙ্গলবাসীরা বর্তমানে বাস করছেন মাটির নিচে। অক্সিজেন নয়, কার্বন ডাই অক্সাইডে শ্বাস নেয় তারা। এমনকী মঙ্গল গ্রহের মানুষের উচ্চতা সাত ফুট বলে জানিয়েছে সে।

 

এদিকে বরিস্কার দাবি, মঙ্গলগ্রহের বাসিন্দারা অমর। ৩৫ বছরের পর আর তাদের বয়স বাড়ে না। এমনকী মঙ্গলের বাসিন্দাদের সাথে মিসরের মানুষদের ঘনিষ্ঠ যোগাযোগ ছিল।

তার দাবি, মঙ্গলগ্রহের বাসিন্দাদের মহাকাশযানের পাইলট হিসাবে এর আগে একবার পৃথিবীতেও এসেছিল সে।

রুশ তরুণের এই দাবির পরিপ্রেক্ষিতে এখনো পর্যন্ত বিজ্ঞানীরা কোনো মন্তব্য করেননি।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫