ঢাকা, শুক্রবার,২৪ নভেম্বর ২০১৭

টেনিস

শীর্ষে থেকে বছর শেষ করলেন নাদাল

নয়া দিগন্ত অনলাইন

০২ নভেম্বর ২০১৭,বৃহস্পতিবার, ১৫:০৫


প্রিন্ট

প্যারিস মাস্টার্সের দ্বিতীয় রাউন্ডে দক্ষিণ কোরিয়ার হেয়ন চুংকে ৭-৫, ৬-৩ গেমে পরাজিত করে তৃতীয় রাউন্ড নিশ্চিত করেছেন রাফায়েল নাদাল। আর এর মাধ্যমে বছর শেষে বিশ্ব র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষ স্থানটাও নিজের দখলেই রাখলেন স্প্যানিশ এই তারকা।

১৬ বারের গ্র্যান্ড স্ল্যাম জয়ী নাদাল ৩১ বছর বয়সে বছর শেষ করায় সবচেয়ে বেশি বয়সী খেলোয়াড় হিসেবে র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষে থাকার রেকর্ড গড়েছেন। এ বছর নাদাল জিতেছেন ফ্রেঞ্চ ও ইউএস ওপেনের শিরোপা। এই নিয়ে চতুর্থবারের মত র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষে থেকে বছর শেষ করলেন নাদাল। অথচ তার মৌসুমটা শুরু হয়েছিল নবম স্থানে থেকে। ২০০৮, ২০১০ ও ২০১৩ সালেও এই কৃতিত্ব দেখিয়েছেন ক্লে কোর্টের এই অপ্রতিরোধ্য যোদ্ধা।

গতকাল ম্যাচ শেষে এক সংবাদ সম্মেলনে নাদাল বলেছেন, ‘অবশ্যই মৌসুমের শুরুতে এই ধরনের কোন লক্ষ্য ছিল না। এটা চিন্তা করাও অসম্ভব ছিল। বিশেষ করে ইনজুরির কারনে দীর্ঘদিন কোর্টে অনুপস্থিত থাকার পরে ফিরে আসাটা যেকোন খেলোয়াড়ের জন্য কঠিন। গত দুই বছরে বেশ কিছু ইনজুরি আমার ক্যারিয়ারকে হুমকির মুখে ফেলেছিল। কিন্তু সব বাঁধাকে পিছনে ফেলে আজ আমি এখানে। অবশ্যই আমি দারুন খুশী। এটা আমার জন্য অনেক অর্থবহ। প্রথমবার যখন এই অবস্থানে থেকে বছর শেষ করেছিলাম তার থেকে প্রায় ১০ বছর পেরিয়ে গেছে।’

প্যারিস মাস্টার্সের দ্বিতীয় রাউন্ডের ম্যাচটিতে জয়ী হতে পারলেই দীর্ঘদিনের প্রতিদ্বন্দ্বি রজার ফেদেরারকে পিছনে ফেলে বিশ্বের এক নম্বর স্থানটা নিজের করে নিতে পারবেন, এটা আগেই জানা ছিল নাদালের। যদিও বিশ্রামের ফলে প্যারিসের টুর্নামেন্ট থেকে আগেই নাম প্রত্যাহার করে নিয়েছিলেন ফেদেরার। পরের রাউন্ডে নাদালের প্রতিপক্ষ পাবলো কুয়েভাস। উরুগুয়ের অবাছাই এই খেলোয়াড় দ্বিতীয় রাউন্ডে স্প্যানিশ এ্যালবার্ট রামোস-ভিনোলাসকে ৬-৭ (৫/৭), ৭-৬ (৭/১), ৬-২ গেমে পরাজিত করে তৃতীয় রাউন্ড নিশ্চিত করেছেন।

রোববারের ফাইনালে জিততে পারলে সার্বিয়ান তারকা নোভাক জকোভিচকে পিছনে ফেলে রেকর্ড ৩১তম মাস্টার্স শিরোপা জয় করার কৃতিত্ব অর্জন করবেন নাদাল।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫