ঢাকা, শনিবার,১৮ নভেম্বর ২০১৭

আফ্রিকা

মন্ত্রীকে সেক্স সিডি দিয়ে ব্ল্যাকমেইলিংয়ের অভিযোগে বিবিসির সাবেক সাংবাদিক গ্রেফতার

নয়া দিগন্ত অনলাইন

২৭ অক্টোবর ২০১৭,শুক্রবার, ১৪:৩৪


প্রিন্ট

ভারতের ছত্তিশগড়ের বিজেপি সরকারের এক মন্ত্রীকে তিনি সেক্স সিডি দিয়ে ব্ল্যাকমেলিংয়ের অভিযোগে বিবিসির সাবেক সাংবাদিক বিনোদ ভার্মাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। আজ শুক্রবার ভোরে উত্তরপ্রদেশের গাজিয়াবাদের বাড়ি থেকে গ্রেফতার করা হয় তাকে।

এই মুহূর্তে ফ্রিল্যান্স করেন ভার্মা। তিনি আমার উজালা ও বিবিসির হিন্দি বিভাগে কর্মরত ছিলেন। তবে ছত্তিশগড় কংগ্রেসের সভাপতি ভূপেশ বঘেলের সোশ্যাল মিডিয়া ইনচার্জও ছিলেন তিনি।

গাজিয়াবাদ পুলিশ তাকে গ্রেফতারির খবরের সত্যতা স্বীকার করেছে। জানিয়েছে, রায়পুরের পান্ডারি পুলিশ স্টেশনে তার বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

ভার্মা এডিটর্স গিল্ড অফ ইন্ডিয়ার সদস্য, ছত্তিশগড়ের আর্থ-সামাজিক ও সাংস্কৃতিক বিষয় নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে লিখছেন। শোনা যাচ্ছে, ছত্তিশগড়ের জনৈক মন্ত্রীর একটি সেক্স সিডি তার হাতে ছিল। অভিযোগ, তা দিয়ে ব্ল্যাকমেইল করে টাকা তোলার চেষ্টা করছিলেন তিনি।

ভার্মা নাকি এ সপ্তাহের শুরুতে ওই মন্ত্রীর এক সহযোগীকে ফোন করে সিডির বিনিময়ে টাকা দাবি করেন। এরপর ছত্তিশগড় পুলিশের একটি দল দিল্লির এক দোকানে তল্লাশি চালিয়ে ওই সেক্স ভিডিওর এক হাজার কপি উদ্ধার করে। সেই দোকানদারকে জেরা করে ভার্মার কাছে পৌঁছে যায় তারা।

গাজিয়াবাদ পুলিশ জানিয়েছে, ভার্মার বাড়ি থেকেও ওই সিডির বহু কপি উদ্ধার হয়েছে। বাজেয়াপ্ত হয়েছে তার ল্যাপটপ ও পেনড্রাইভ।

এদিকে, আদালতে নেয়ার সময় ভার্মা সাংবাদিকদেরকে বলেছেন, তার কাছে ছত্রিশগড়ের মন্ত্রী রাজেশ মুনাতের একটি সেক্স সিডি তার কাছে আছে। যে কারণে ছত্রিশগড় সরকার তার প্রতি অসন্তুষ্ট। 

তবে ছত্রিশগড় সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, ভার্মা বিরোধী কংগ্রেসের সাথে হাত মিলিয়ে বিজেপি সরকারকে বেকায়দায় ফেলতে কাজ করছেন। তিনি রাজ্য কংগ্রেস সভাপতি ভূপেশ বঘেলের ঘনিষ্ঠ সহযোগী। কিন্তু বঘেল তা অস্বীকার করেছেন।

ছত্তিশগড় প্রদেশ কংগ্রেস ভার্মার গ্রেফতারের তীব্র নিন্দা করেছে। তাদের বক্তব্য, ভার্মার কাছে ওই সিডি থাকলেও তা তিনি প্রকাশ করেননি। রাজ্যের বিজেপি সরকার এভাবে গণতন্ত্রের কণ্ঠরোধ করছে।

আম আদমি পার্টিরও মন্তব্য, এই ঘটনা সংবাদপত্রের স্বাধীনতার ওপর আঘাত।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫