ঢাকা, সোমবার,২০ নভেম্বর ২০১৭

নগর মহানগর

ইসি সংলাপ : সংস্থা প্রধানদের সতর্ক করলেন সিইসি

পর্যবেক সংস্থার রাজনৈতিক সংশ্লিষ্টতা যাচাইয়ের তাগিদ

বয়স শিথিলের প্রস্তাব

নিজস্ব প্রতিবেদক

২৩ অক্টোবর ২০১৭,সোমবার, ০০:২৪


প্রিন্ট

প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদা বলেছেন, রাজনৈতিক কোনো ব্যক্তি যেন নির্বাচন পর্যবেক হিসেবে নিয়োগ না পান, সে বিষয়ে পর্যবেকদের সতর্ক দৃষ্টি রাখতে হবে। দায়িত্ব পালনকালে সামগ্রিকভাবে ভোট কার্যক্রম যেন বাধাগ্রস্ত না হয় সে দিকে ল রাখতে হবে। যাদেরকে নির্বাচনী দায়িত্ব পালনে মাঠে পাঠাবেন, তাদেরকে প্রয়োজনীয় প্রশিণ দেবেন। গতকাল নির্বাচন ভবনে পর্যবেক সংস্থার প্রতিনিধিদের সাথে মতবিনিময়কালে সিইসি এ আহ্বান জানান।
সিইসি বলেন, রাজনৈতিক দলগুলোর সাথে মতবিনিময়ে নির্বাচন পর্যবেদের ভূমিকা নিয়ে কথা হয়েছে এবং পর্যবেকেরা যাতে সঠিকভাবে তাদের দায়িত্ব পালন করতে পারেন, সে বিষয়ে রাজনৈতিক দলগুলোর প্রতিনিধিরা বিভিন্ন পরামর্শ দিয়েছেন। তিনি বলেন, আপনারা নির্বাচন চলাকালে মাঠে-ময়দানে বিচরণ করবেন, আপনাদের পরামর্শ আমরা গুরুত্বসহকারে গ্রহণ ও বিবেচনা করব।
প্রধান নির্বাচন কমিশনারের সভাপতিত্বে সংলাপে অপর চার নির্বাচন কমিশনার, ইসির ভারপ্রাপ্ত সচিবসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
নিবন্ধিত নির্বাচন পর্যবেক্ষক সংস্থাগুলোর সাথে কোনো সংস্থার রাজনৈতিক সংশ্লিষ্টতা রয়েছে কিনা তা খতিয়ে দেখতে নির্বাচন কমিশনকে (ইসি) তাগিদ দিয়েছেন সংলাপে অংশ নেয়া সংস্থাগুলো। কোনো সংস্থার বিরুদ্ধে এরূপ সংশ্লিষ্টতা খুঁজে পেলে ওই সংস্থার নিবন্ধন কার্যক্রম স্থগিত করার তাগিদ দিয়েছেন তারা।
পর্যবেক্ষক সংস্থাগুলোর পক্ষ থেকে প্রস্তাবে বলা হয়, জাতীয় সংসদসহ স্থানীয় পর্যায়ের সব নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও সর্বজনগ্রাহ্য করতে পর্যবেকদের নিরপে ভূমিকা অত্যন্ত জরুরি। কোনো দলের অ্যাজেন্ডা বাস্তবায়নে তারা কাজ করলে ভোট প্রশ্নবিদ্ধ হবে।
সংলাপে জাতীয় নির্বাচন পর্যবেক পরিষদের (জানিপপ) প্রতিনিধি ড. নাজমুল আহসান কলিম উল্লাহ বলেন, কোনো সংস্থা কমিশন থেকে নিবন্ধন নিয়ে নির্বাচন পর্যবেণ করে কিনা, রাজনৈতিক সংশ্লিষ্টতা আছে কিনা তা খতিয়ে দেখতে হবে। একইসাথে নির্বাচন পর্যবেকদের প্রয়োজনীয় প্রশিণের ব্যবস্থা নেয়া প্রয়োজন।
ইলেকশন ওয়ার্কিং গ্রুপের (ইডব্লিউজি) প্রতিনিধি আব্দুল আলীম বলেন, ভোটার তালিকা তৃতীয় কোনো প দিয়ে অডিট করা প্রয়োজন। নির্বাচনে ভোটগ্রহণ শুরুর আগ পর্যন্ত পর্যবেকদের পরিচয়পত্র প্রদান নিয়ে গড়িমসি করা হয়। এ বিষয়েও প্রয়োজনীয় পদপে নেয়া দরকার।
ফেয়ার ইলেকশন মনিটরিং অ্যালায়েন্সের (ফেমা) ভাইস প্রেসিডেন্ট মুনিরা খান বলেন, নির্বাচন পর্যবেকদের বয়স ২৫ থেকে কমিয়ে ২০ বছর করা উচিত। স্থানীয় পর্যবেকদের স্থানীয়ভাবে নির্বাচন পর্যবেণের ব্যবস্থা করার পওে মত দেন তিনি। ইভিএম এখনই শুরু করা উচিত নয় বলেও মনে করেন মুনিরা খান।
বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশনের প্রতিনিধি আনোয়ার ফরায়েজী পর্যকদের প্রয়োজনীয় প্রশিণের ব্যবস্থাসহ নিরপে ব্যক্তিদের পর্যবেণের অনুমতি দেয়ার পরামর্শ দেন।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫