ঢাকা, বৃহস্পতিবার,২৩ নভেম্বর ২০১৭

ক্রিকেট

টাইগারদের জন্য দক্ষিণ আফ্রিকান কোচের টোটকা

নয়া দিগন্ত অনলাইন

২১ অক্টোবর ২০১৭,শনিবার, ২০:১৪


প্রিন্ট
টাইগারদের জন্য দক্ষিণ আফ্রিকান কোচের টোটকা

টাইগারদের জন্য দক্ষিণ আফ্রিকান কোচের টোটকা

দেশের বাইরে ভালো করার জন্য ভিনদেশের মাটিতে বাংলাদেশের আরো বেশি ম্যাচ খেলা উচিত বলে মন্তব্য করেছেন দক্ষিণ আফ্রিকার ব্যাটিং কোচ নেইল ম্যাকেঞ্জি।

সম্প্রতি সংবাদমাধ্যমের সাথে আলাপকালে এমন তাগিদ জানান তিনি। জানান, ‘আমার মনে হয়, কন্ডিশনের সঙ্গে বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের মানিয়ে নিতে হবে আর এখানে বারবার সফর করতে হবে। বেশি বেশি সফর হতে পারে এখানে মানিয়ে নেয়ার আর ভবিষ্যতে এখানে ভালো খেলার সমাধান।’

ম্যাকেঞ্জি আরো বলেন, ‘দক্ষিণ আফ্রিকা সফর বরাবরই কঠিন ব্যাপার। এখানকার উইকেটের গতি, বাউন্স নিয়ে উপমহাদেশের সব দলকেই বিপাকে পড়তে হয়। যদিও যেসব উইকেটে বাংলাদেশ খেলছে সেগুলো সেঞ্চুরিয়ান কিংবা সুপারস্পোর্টস পার্কের মতন অতটা বাউন্সি নয়।’

তিনি বলেন, ‘অস্ট্রেলিয়া কিংবা দক্ষিণ আফ্রিকায় সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ হলো এখানকার উইকেটের সহজাত গতি, বাউন্স। উপমহাদেশে আপনাকে স্পিন আক্রমণের মুখোমুখি হতে হবে। কিন্তু দক্ষিণ আফ্রিকা কিংবা অস্ট্রেলিয়ায় আক্রমণাত্মক ক্রিকেটও একটা ব্যাপার হয়ে দাঁড়ায়। বাংলাদেশ এগুলো নিয়ে ভয় পায়। এসব ভয় কাটিয়ে উঠতে হবে তাদের ব্যাটসম্যানদের। না হলে অবস্থা উন্নতি হবে না।’

দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে বাংলাদেশের বোলাররা ভালো পারফরমেন্স প্রদর্শন করতে না পারলেও তারা খারাপ- এমনটি ভাবছেন না ম্যাকেঞ্জি, ‘আমার মনে হয় না বাংলাদেশের বোলাররা খারাপ। তাদের কিছু তরুণ বোলার আছে যারা দারুণ কিছু করার ইঙ্গিত দেখাচ্ছে। টেস্টে তাদের কেউ কেউ এমন কিছু বল করেছে যেখানে আমাদের ব্যাটসম্যানরা শূন্য রানে আউট হয়েছে। আমি মনে করি এটা মানিয়ে নেয়ার একটা চাপ।’

সিরিজের শেষ ম্যাচ জিতে টেস্টের পর ওয়ানডেতেও বাংলাদেশকে হোয়াইটওয়াশ করার চেষ্টা থাকবে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আমরা চেষ্টা করব ৩-০ তে সিরিজ জিততে। সেটা সহজ হবে বলে মনে হয় না। বাংলাদেশ গেল কয়েক বছর ধরেই নিজেদেরকে প্রমাণ করেছে যে তারা ভালো ক্রিকেট খেলতে পারে। সাম্প্রতিক সময়ে অস্ট্রেলিয়াকে টেস্টে হারিয়েছেও। দক্ষিণ আফ্রিকাকেও ঘরের মাঠে দুই বছর আগে সিরিজ হারিয়েছে। তাই শেষ ম্যাচ কঠিন হবে বলেই ধরে নিচ্ছি।’


জয় দিয়ে সিরিজ শুরু করতে চায় ভারত ও নিউজিল্যান্ড
তিন ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচে রোববার মুখোমুখি হচ্ছে স্বাগতিক ভারত ও সফরকারী নিউজিল্যান্ড। তাই জয় দিয়ে সিরিজ শুরুর করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছে দু’দল। সদ্য শেষ হওয়া অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সিরিজের পারফরমেন্স ধরে রাখাই মূল লক্ষ্য টিম ইন্ডিয়ার। তবে ভারতের মাটিতে প্রতিপক্ষকে হারানো কঠিন বলে মনে করে নিউজিল্যান্ড। মুম্বাইয়ে ওয়াংখেড়ে স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ সময় বেলা ২টায় শুরু হবে ম্যাচটি।

সদ্যই অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে পাঁচ ম্যাচের সিরিজ ৪-১ ব্যবধানে জিতেছে ভারত। ব্যাটসম্যান-বোলারদের দুর্দান্ত পারফরমেন্সে সহজেই সিরিজ জিতেছিলো টিম ইন্ডিয়া। তাই বেশ ফুরফুরে মেজাজেই নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ শুরু করতে যাচ্ছে ভারত।
অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে দলের পারফরমেন্সে খুশি অধিনায়ক বিরাট কোহলি। এবার নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সেরা পারফরমেন্স প্রত্যাশা করছেন তিনি, ‘অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে দারুন ক্রিকেট খেলেছে দল। তাই প্রথম তিন ওয়ানডে জিতে সিরিজ নিজেদের করে ফেলেছিলাম আমরা। আশা করবো নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষেও দল ভালো পারফরমেন্স করবে এবং সিরিজ জিতবে। তবে সিরিজের শুরুটা জয় দিয়েই করতে চাই আমরা।’

সিরিজে ভারতের সামনে বড় চ্যালেঞ্জ অপেক্ষা করছে বলে মনে করেন দলে সহ-অধিনায়ক রোহিত শর্মা। নিউজিল্যান্ডের বাঁ-হাতি পেসার ট্রেন্ট বোল্টকে বড় হুমকি মনে করছেন রোহিত, ‘নিউজিল্যান্ডের সেরা অস্ত্র বোল্ট। সে আমাদের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ। বোল্টকে ভালোভাবে সামলাতে হবে আমাদের দলের ব্যাটসম্যানদের। সর্বশেষ সফরে বোল্ট আমাদের ভুগিয়েছিলেন। তারপরও আমরা জানি, বোল্টকে কিভাবে সামলাতে হবে। তবে শুধুমাত্র বোল্টকে নিয়েই নয়, পুরো নিউজিল্যান্ড দলের বোলিং ইউনিট নিয়ে আমরা পরিকল্পনা করেছি।’
গত অক্টোবরে ভারত সফরে পাঁচটি ওয়ানডে খেলেছিলো নিউজিল্যান্ড। দারুন প্রতিন্দ্বন্দিতা গড়ে তুলেছিলো কিউইরা। হার দিয়ে সিরিজ শুরু করলেও, দ্বিতীয় ও চতুর্থ ওয়ানডে জিতে লড়াইয়ে দারুনভাবে টিকে ছিলো নিউজিল্যান্ড। কিন্তু শেষ পর্যন্ত সিরিজটি ৩-২ ব্যবধানে হারতে হয় তাদের। তাই ঐ অভিজ্ঞতা ও বর্তমান প্রেক্ষাপটে ভারতের মাটিতে তাদের হারানো বেশ কঠিন বলে মনে করেন নিউজিল্যান্ডের অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন।

তিনি বলেন, ‘দেশের মাটিতে ভারতের রেকর্ড খুবই ভালো। বর্তমানে তারা খুবই শক্তিশালী দল। তাদেরকে হারানো বেশ কঠিন কাজ। দেশের মাটিতে তারা বিশ্বসেরা দল। তবে এতে কোন সন্দেহ নেই আমরা আমাদের সেরা ক্রিকেট খেলার চেষ্টা করবো। এখানে আমাদের সর্বশেষ সিরিজ থেকে শিক্ষা নেয়ার চেষ্টা করছি এবং অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে ভালো কিছু করাই আমাদের প্রধান লক্ষ্য। তবে আমাদের জন্য অনেক কঠিন পরীক্ষা অপেক্ষা করছে। সতীর্থরা সফল হতে পারলে দলও সাফল্য পাবে। তাই ব্যাটিং-বোলিং-ফিল্ডিং, তিন বিভাগেই আগের সফরের চেয়ে ভালো করতে হবে দলকে।’

ভারত দল : বিরাট কোহলি (অধিনায়ক), রোহিত শর্মা (সহ-অধিনায়ক), শিখর ধাওয়ান, মনিষ পান্ডিয়া, মহেন্দ্র সিং ধোনি (উইকেটরক্ষক), কেদার যাদব, হার্ডিক পান্ডিয়া, জসপ্রিত বুমরাহ, ভুবেনশ্বর কুমার, কুলদীপ যাদব, যুজবেন্দা চাহাল, লোকেশ রাহুল, দীনেশ কার্তিক (উইকেটরক্ষক), অক্ষর প্যাটেল ও আশিষ নেহরা।

নিউজিল্যান্ডের ওয়ানডে স্কোয়াড : কেন উইলিয়ামসন (অধিনায়ক), টড অ্যাস্টল, ট্রেন্ট বোল্ট, কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম, মার্টিন গাপটিল, ম্যাট হেনরি, টম লাথাম, হেনরি নিকোলস, অ্যাডাম মিলনে, কলিন মুনরো, গ্লেন ফিলিপস, মিচেল স্যান্টনার, টিম সাউদি, রস টেলর ও জর্জ ওয়ার্কার।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫