ঢাকা, রবিবার,১৯ নভেম্বর ২০১৭

বিবিধ

বৃষ্টি থামলেই শীতের শুষ্কতা শুরু

নিজস্ব প্রতিবেদক

২০ অক্টোবর ২০১৭,শুক্রবার, ২০:২৩


প্রিন্ট

বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট নিম্নচাপটি দুর্বল হয়ে স্থল নিম্নচাপে পরিণত হয়ে গেছে। এরপর আরো কিছুটা উত্তর ও উত্তর-পূর্ব দিকে অগ্রসর হয়ে বৃষ্টি ঝরিয়ে দুর্বল হয়ে যাওয়ার খবর দিয়েছে আবহাওয়া অফিস। আগামী ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে হ্রাস পেতে পারে বৃষ্টির পরিমাণ। চলতি বছর মওসুমী বায়ুতে অধিক পরিমাণে জলীয় বাষ্প থাকায় বাংলাদেশে দীর্ঘায়িত হয়েছে বর্ষা। সাধারণত: অক্টোবরের প্রথম সপ্তাহে মওসুমী বায়ু বিদায় নিলেও এ বছর তা বিদায় নিয়েছে অক্টোবরের ১৫ তারিখের পর। তবে এর রেশ রয়ে গিয়েছিল কিছুটা। এরই প্রভাবে বঙ্গোপসাগরে সৃষ্টি হয়েছে নিম্নচাপটি। আবহাওয়া অফিস বলছে, বর্তমান নিম্নচাপটির প্রভাবে বৃষ্টি শেষ হওয়ার পর ধীরে ধীরে বাংলাদেশের আকাশে প্রবেশ করবে উত্তরী হাওয়া। শুরু হবে শুষ্কতা, পড়বে শীত।

আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, আজ শুক্রবার দুপুর ১২টা দিকে ভারতের উড়িষ্যা উপকূলে নিম্নচাপটি পৌঁছে স্থল নিম্নচাপে পরিণত হয়ে যায়। পরে গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গ এবং তৎসংলগ্ন বাংলাদেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল ও উড়িষ্যা এলাকায় অবস্থান করছিল। এটি আরো উত্তর-উত্তরপূর্ব দিকে অগ্রসর হয়ে ক্রমান্বয়ে দুর্বল হয়ে যেতে পারে।

এর প্রভাবে উত্তর বঙ্গোপসাগর এলাকায় বায়ু চাপের তারতম্যের আধিক্য বিরাজ করছিল আজ পর্যন্ত এবং গভীর সঞ্চালণশীল মেঘমালা তৈরি অব্যাহত ছিল। চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মংলা ও পায়রা সমুদ্র বন্দর সমূহকে ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে।

নিম্নচাপের প্রভাবে উপকূলীয় জেলা কক্সবাজার, চট্টগ্রাম, নোয়াখালী, লক্ষ্মীপুর, ফেনী, চাঁদপুর, ভোলা, বরিশাল, পটুয়াখালী, বরগুনা, ঝালকাঠী, পিরোজপুর, খুলনা, বাগেরহাট, সাতক্ষীরা এবং তাদের অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরসমূহের নিম্নাঞ্চল স্বাভাবিক জোয়ারের চেয়ে এক থেকে দুই ফুট অধিক উচ্চতার বায়ু তাড়িত জলোচ্ছ্বাসে প্লাবিত হওয়ার খবর দিয়েছে আবহাওয়া অফিস।

তবে আমাদের সংবাদদাতারা জানিয়েছেন, গত দুই দিন থেকেই স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি উচ্চতায় জলোচ্ছ্বাসের পানি উপকূলীয় স্থলভাগে উঠে যেতে শুরু করে। কোনো কোনো ক্ষেত্রে বেড়ি বাধ নিচু হওয়ায় পানি শুকনো অঞ্চলে উঠে প্লাবিত করেছে বাড়ি-ঘর ও ফসলের মাঠ।

আবহাওয়া অফিস উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত সব মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত নিরাপদ আশ্রয়ে থাকতে বলেছে।

নিম্নচাপের প্রভাবে আজ সারা দেশেই প্রচুর বৃষ্টিপাত হয়েছে। ২৪ ঘণ্টায় রাজধানী ঢাকাতেও প্রচুর বৃষ্টিপাত হয়েছে। ডুবে গেছে ঢাকার অনেক রাস্তা পানির নিচে।

আবহাওয়া অফিসের তথ্য অনুযায়ী আজ সন্ধ্যা পর্যন্ত ঢাকায় বৃষ্টিপাত হয়েছে ৯৫ মিলিমিটার। এটা কেবল রাজধানীর আগারগাঁওয়ে স্থাপিত মাপন যন্ত্রের তথ্য। তবে ঢাকার অন্যান্য অঞ্চলে অনেক বেশি বৃষ্টিপাত হয়েছে। মতিঝিলের অনেক এলাকা আজ সারাদিনই পানিতে ডুবে ছিল। চলাচল করতে গিয়ে সিএনজি চালিত অনেক যানবাহনকে রাস্তায় বন্ধ হয়ে যেতে দেখা যায়। বিশেষ সিএনজি অটোরিক্সা বেশি ছিল। অবশ্য সিএনজিচালিত কিছু প্রাইভেট কারও বন্ধ হয়ে যায়। মোটর সাইকেলের সাইল্যান্সারের পাইপ কিছুটা নিচু থাকায় অনেক মোটর সাইকেলও বন্ধ হয়ে যায়।

আজ দেশের সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত হয় গোপালগঞ্জে ১৪৩ মিলিমিটার। পাশের জেলা মাদারীপুরে বৃষ্টিপাত হয় ১১৩ মিলিমিটার। অপরদিকে হাতিয়ায় ১১৩ মিলিমিটার, খুলনায় ১১১ মিলিমিটার। নিম্নচাপের প্রভাবে আজ সবচেয়ে কম বৃষ্টিপাত হয়েছে রংপুর বিভাগে। এরপর সিলেট, রাজশাহী ও ময়মনসিংহ বিভাগে তুলনামুলক কম বৃষ্টিপাত হয়েছে। সবচেয়ে বেশি বৃষ্টিপাত হয়েছে ঢাকা, চট্টগ্রাম, বরিশাল ও খুলনা বিভাগে।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫