মেসি-রোনালদো : কার কাছে ফুটবল বেশি ঋণী?
মেসি-রোনালদো : কার কাছে ফুটবল বেশি ঋণী?

মেসি-রোনালদো : কার কাছে ফুটবল বেশি ঋণী?

নয়া দিগন্ত অনলাইন

লিওনেল মেসি এবং ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো দুজনই সর্বকালের সেরা ফুটবলারদের অন্যতম। দুজনের দলই রাশিয়া বিশ্বকাপের টিকিট পেয়েছে। তবে ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর পর্তুগাল বেশ সাচ্ছন্দেই বিশ্বকাপে জায়গা করে নিয়েছে। সেই তুলানয় আর্জেন্টিনার অবস্থা ছিল হাবুডুবু খাওয়ার মতো। বাছাই পর্বের শেষ ম্যচে ইকুডেরের সাথে না জিততে পারলে বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে পড়তো মেসির দল। সাথে নিজের ক্যারিয়ারেরও ইতি টানতে হতো অনেকটা না অন্যভাবে।

তবে তাদের দুজনের ক্যারিয়ারেরই যে খুব বেশি সময় নেই সেটা আঁচ পাওয়া যাচ্ছে। রাশিয়া বিশ্বকাপই হয়তো এই দুই নক্ষত্রের শেষ বিশ্বকাপ হতে চলেছে। কারণ আগামী বছরে ৩১-এ পা দেবেন মেসি। অন্যদিকে রোনালদোর বয়স হবে ৩৩। তাই অনেকেই ধারনা করছেন এই দুই মহাতারকা আগামী বিশ্বকাপের পরই ক্যারিয়ারে ইতি টানতে যাচ্ছেন। তাই মেসি কিংবা রোনালদো, দুজনের ভক্ত-সমর্থকরাই চান বিশ্বকাপ হাতে নিয়ে তাদের ক্যারিয়ারের উপসংহারটা স্বর্ণাক্ষরে লেখা থাকুক।

যেমন- ইকুয়েডরের সাথে ম্যাচ জেতার পর আর্জেন্টাইন কোচ হোর্হে সাম্পাওলি বলেছেন, “বিশ্বকাপ জেতাতেই হবে, আর্জেন্টিনার কাছে এমন কোনো দায় নেই। বরং ফুটবলের কাছে মেসির একটি বিশ্বকাপ পাওনা। সে ইতিহাসের সেরা খেলোয়াড়।”

অন্যদিকে স্প্যানিশ পত্রিকা ‘মার্কা’একটি মতামত প্রকাশ করেছে। যার শিরোনাম, “ফুটবলের কাছে রোনালদোর একটি বিশ্বকাপ পাওনা’। মতামতটির লেখক হুয়ানমা রদ্রিগেজ দাবি করেছেন, গণমাধ্যম যেভাবেই রোনালদোকে দেখাক, তার আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দুতে শুধুই ফুটবল। যিনি নিজের অর্জনে সন্তুষ্ট না হয়ে সব সময় চেষ্টা করেন আরো একটু ভালো খেলার জন্য। তর্কাতীতভাবেই রোনালদো সর্বকালের সেরা চারজন ফুটবলারদের একজন। তাই ফুটবলের কাছে রোনালদোরই একটি বিশ্বকাপ পাওনা রয়েছে।

রদ্রিগেজ আরো বলেছেন, বিশ্বের অন্যান্য সব তারকাই জাতীয় দলে পর্যাপ্ত সমর্থন পান। কিন্তু এক রোনালদো বাদে পুরো পুর্তুগিজ দলই গড়-পড়তা। অন্য তারকাদের যেখানে সমালোচনা সইতে হয়, সেখানে রোনালদোকে নিয়ে গোটা পর্তুগাল মেতে থাকে। যদি এই সাধরণ দল নিয়ে রোনালদো বিশ্বকাপ জয় করেন, তাহলে তিনি ফুটবল ইতিহাসে অনন্য উদাহরণ হয়েই থাকবেন। এমনিতেও তার কাছে ফুটবলের অনেক দেনা রয়েছে। ফুটবলের উচিত এই দেনা শিঘ্রই পরিশোধ করে দেয়া।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.