ঢাকা, মঙ্গলবার,১২ ডিসেম্বর ২০১৭

রাজনীতি

জামায়াতের হরতাল পালিত

নিজস্ব প্রতিবেদক

১২ অক্টোবর ২০১৭,বৃহস্পতিবার, ১৯:১১ | আপডেট: ১২ অক্টোবর ২০১৭,বৃহস্পতিবার, ১৯:১৯


প্রিন্ট
দলের আমির মকবুল আহমাদ, সেক্রেটারি জেনারেল ডা. শফিকুর রহমানসহ কেন্দ্রীয় নেতাদের গ্রেফতারের প্রতিবাদে ও মুক্তির দাবিতে আজ সকাল-সন্ধ্যা হরতালের ডাক দেয় জামায়াতে ইসলামী। রাজধানীর পরিবাগ এলাকা থেকে আজ সকালে ছবিটি তুলেছেন নূর হোসেন পিপুল।

দলের আমির মকবুল আহমাদ, সেক্রেটারি জেনারেল ডা. শফিকুর রহমানসহ কেন্দ্রীয় নেতাদের গ্রেফতারের প্রতিবাদে ও মুক্তির দাবিতে আজ সকাল-সন্ধ্যা হরতালের ডাক দেয় জামায়াতে ইসলামী। রাজধানীর পরিবাগ এলাকা থেকে আজ সকালে ছবিটি তুলেছেন নূর হোসেন পিপুল।

জামায়াতে ইসলামীর ডাকে আজ বৃহস্পতিবার দেশব্যাপী সকাল-সন্ধ্যা হরতাল পালিত হয়েছে। হরতালের সমর্থনে দলটির নেতাকর্মীরা বিভিন্নস্থানে মিছিল ও পিকেটিং করে। রাজধানীর হাতিরপুলে মিছিল বের করলে পুলিশ পিটিয়ে নেতাকর্মীদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এতে বেশকিছু নেতাকর্মী আহত হয়। সেখান থেকে পুলিশ একজনকে আটক করেছে। এছাড়া দেশের বিভিন্নস্থানে মিছিল বের করলে পুলিশ বেশকিছু নেতাকর্মী আটক করে। হরতালে রাজধানীতে গণপরিবহন চলাচল করলেও তা অন্যান্য দিনের তুলনায় কম ছিল। গাড়িতে যাত্রীর সংখ্যাও ছিল তুলনামূলক কম। অনেক রাস্তা ফাঁকা দেখা যায়। দোকানপাট, অফিসের কার্যক্রমও ছিল সীমিত পরিসরে। হরতালের প্রতিবাদে মিরপুর, আগারগাঁওসহ বিভিন্নস্থানে আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা মিছিল বের করে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে বিপুল সংখ্যক আইনশৃংখলা বাহিনীর সদস্য মোতায়েন করা হয়।

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর আমির মকবুল আহমাদ, সেক্রেটারি জেনারেল ডা. শফিকুর রহমান ও নায়েবে আমির সাবেক এমপি মিয়া গোলাম পরওয়ারসহ কেন্দ্রীয় নেতাদের গ্রেফতারের প্রতিবাদে ও মুক্তির দাবিতে আজ সকাল-সন্ধ্যা হরতালের ডাক দেয় দলটি। এ হরতালে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল- বিএনপি সমর্থন জানায়। হরতালকে কেন্দ্র করে আগের দিনই পরিবেশ উত্তপ্ত হয়ে ওঠে। হরতালের সমর্থনে বিভিন্নস্থানে বিক্ষোভ করলে পুলিশ ও যুবলীগ-ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা হামলা করে। এছাড়া পুলিশ দেশব্যাপী ব্যাপক ধরপাকড় চালায়।

আজ সকাল থেকেই রাজপথে সক্রিয় ছিল জামায়াত। এ কারণে অনেকদিন পর দেশে হরতালের প্রচলিত চিত্র ফিরে আসে। গাড়ি চলাচল সীমিত হয়ে যায়। দোকানপাট ও অফিস-আদালতের কার্যক্রমে ভাটা পড়ে। সাধারণ মানুষের চলাচল কমে যায়। রাজধানীতে সীমিত পরিসরে গণপরিবহন চলাচল করলেও ব্যক্তিগত গাড়ি অনেকেই বের করেননি। গণপরিবহনগুলোতেও যাত্রীদের নিত্যনৈমিত্তিক ভিড় ছিল না। অনেক গাড়ি যাত্রীবিহীনও চলাচল করতে দেখা গেছে। অনেক রাস্তা দিনের বেশিরভাগ সময় ছিল ফাঁকা। দুলপাল্লার বাস চলাচল করলেও তাতে যাত্রী কম ছিল। এ কারণে ট্রিপ সংখ্যা কমিয়ে দেয়া হয়।

জামায়াতের মিছিল: কেন্দ্র ঘোষিত সকাল-সন্ধ্যা সর্বাত্মক হরতালের সমর্থনে আজ সকাল থেকে রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে মিছিল ও পিকেটিং করে জামায়াতে ইসলামী।

ঢাকা মহানগরী উত্তর জামায়াত: হরতালের সমর্থনে ঢাকা মহানগরী উত্তর জামায়াতের উদ্যোগে এক বিক্ষোভ মিছিল ইব্রাহিমপুর বাজার থেকে শুরু হয়ে নগরীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়।

সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় মজলিশে শুরা সদস্য ও ঢাকা মহানগরী উত্তরের সহকারি সেক্রেটারি মাহফুজুর রহমান, ঢাকা মহানগরী উত্তরের মজলিশে শুরা সদস্য অধ্যাপক আনোয়ারুল করীম ও আলাউদ্দীন মোল্লা, জামায়াত নেতা আব্দুল মতিন, শাহ আলম, খান হাবীর, তুহিন, ইকবাল হোসেন, ছাত্রনেতা রফিক, খালেদ সাইফুল্লাহ প্রমূখ।

মহানগরী উত্তরের উদ্যোগে অপর একটি মিছিল মোহাম্মদপুর তাজমহল রোড থেকে শুরু হয়ে নগরীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে সংক্ষিপ্ত সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়।

সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন জামায়াত ইসলামীর কেন্দ্রীয় মজলিশে শুরা ও ঢাকা মহানগরী উত্তরের কর্মপরিষদ সদস্য মাওলানা দেলাওয়ার হোসাইন, জামায়াত নেতা আবু নাঈম, সৈয়দ কামরুল হাসান, এনামুল হক ও ছাত্রনেতা আব্দুর রহিম প্রমূখ।

হরতালে আইন-শৃঙ্খলাবাহিনীর মারমুখী আচরণ, ছাত্রলীগ-যুগলীগের হামলা, উস্কানী সৃষ্টি ও সরকারের রক্তচক্ষু উপেক্ষা করে সারা দেশের মতো ঢাকা মহানগরী উত্তরেও সকাল-সন্ধ্যা হরতাল শান্তিপূর্ণভাবে সর্বাত্মক সফল করায় এক বিবৃতিতে সর্বস্তরের নগরবাসীকে অভিনন্দন জানিয়েছেন জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদ সদস্য ও ঢাকা মহানগরী উত্তর আমির মুহাম্মদ সেলিম উদ্দিন।

মিরপুর পূর্ব থানা: হরতালের সমর্থনে মিরপুর পূর্ব থানা জামায়াতের উদ্যোগে একটি মিছিল মিরপুর ২নং থেকে শুরু হয়ে নগরীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে ৬০ ফুট রাস্তায় বারেক মোল্লা মোড়ে এসে সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়। সমাবেশে বক্তব্য রাখেন থানা আমির আব্দুল্লাহ জোবায়ের।

পল্লবী-রূপনগর থানা: পল্লবী ও রূপনগর থানা শাখার উদ্যোগে একটি মিছিল মিরপুর ১১ থেকে শুরু হয়ে নগরীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়। সমাবেশে বক্তব্য রাখেন পল্লবী থানা আমীর আশরাফুল আলম।

তেজগাঁও থানা: তেজগাঁও থানার উদ্যোগে একটি মিছিল বিজয় সরণী থেকে শুরু হয়ে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়। পরে নেতাকর্মীরা হরতালের সমর্থনে পিকেটিং করে।

উত্তরা পূর্ব থানা: উত্তরা পূর্ব থানার উদ্যোগে উত্তরা ৬নং সেক্টর থেকে একটি মিছিল বের হয়ে নগরীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়। সমাবেশে বক্তব্য রাখেন থানা আমির প্রফেসর মাহবুব মুকুল।

বিমানবন্দর থানা: বিমানবন্দর সংলগ্ন আশকোনা বাজার থেকে হরতালের সমর্থনে বিমানবন্দর থানার উদ্যোগে একটি মিছিল বের করা হয়। মিছিলটি পরে সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়। সমাবেশে বক্তব্য রাখেন থানা আমির অ্যাডভোকেট ইব্রাহিম খলিল।

তুরাগ থানা: তুরাগ থানা জামায়াতের উদ্যোগে যাত্রাবাড়ী থেকে একটি মিছিল বের হয় এবং তা সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়। সমাবেশে বক্তব্য রাখেন থানা আমির মেসবাহ উদ্দীন নাঈম।

শাহ আলী থানা: শাহ আলী থানার উদ্যোগে স্থানীয় বাজার থেকে একটি মিছিল বের হয়ে সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়।
মিরপুর পশ্চিম থানা: মিরপুর পশ্চিম থানার উদ্যোগে নগরীর ছাপাখানা মোড় থেকে একটি মিছিল বের হয়ে সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়। সমাবেশে বক্তব্য রাখেন থানা সেক্রেটারি নাজমুস সা’দাত।

রমনা থানা: রমনা থানা শাখার উদ্যোগে মগবাজার, নয়াটোলা ও ওয়্যারলেস মোড়ে পিকেটিং ও মিছিল করা হয়। এতে নেতৃত্ব দেন ঢাকা মহানগরী উত্তরের মজলিশে শুরা সদস্য ও থানা আমির আহসান হাবীব।

রামপুরা থানা: রামপুরা থানার উদ্যোগে একটি মিছিল রামপুরা কাঁচা বাজার থেকে শুরু হয়ে নগরীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে হাজীপাড়া এসে সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়। সমাবেশে বক্তব্য রাখেন এইচ ঈমাম।

দক্ষিণখান থানা: দক্ষিণখান থানার উদ্যোগে একটি মিছিল চৈতি গার্মেন্টের সামানে থেকে শুরু হয়ে নগরীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়। আরো একটি মিছিল মাটির মসজিদ এলাকা থেকে শুরু হয়ে নগরীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে মার্কেট মোড়ে এসে সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়। সমাবেশে বক্তব্য রাখেন জোনের সহকারি পরিচালক আতিকুর রহমান।

উত্তরা পশ্চিম থানা: উত্তরা পশ্চিম থানার উদ্যোগে একটি মিছিল সোনারগাঁও জনপথ রোড থেকে শুরু হয়ে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়। সমাবেশে বক্তব্য রাখেন থানা সেক্রেটারি মো. শাহাজাহান। পরে নেতাকর্মীরা হরতালের সমর্থনে পিকেটিং করে।

এছাড়াও বাড্ডা, ভাটারা, শেরেবাংলানগর, উত্তরখান, ক্যান্টনমেন্ট, বনানী, খিলক্ষেত, আদাবর, মোহাম্মদপুর, দারুসসালাম, কাফরুল, ভাষানটেক, তেজগাঁও শিল্পঞ্চল, গুলশান ও উত্তরখান থানায় হরতালের সমর্থনে মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

ঢাকা মহানগরী দক্ষিণ জামায়াত: মহানগরী দক্ষিণ জামায়াতের উদ্যোগে রাজধানীর বিভিন্নস্থানে মিছিল বের হয়।

শাহাজাহানপুর থানা: সকালে হরতালের সমর্থনে শাহজাহানপুর থানা জামায়াতের উদ্যোগে থানা আমির ও মহানগরী কর্মপরিষদ সদস্য শামসুর রহমানের নেতৃত্বে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের হয়। মিছিলটি আমতলা মোড় থেকে শুরু হয়ে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে বাগিচা ঝিলপাড়ে গিয়ে শেষ হয়। মিছিলে আরো উপস্থিত ছিলেন মো: সরোয়ার হোসেন, মাহমুদুর রহমান লাবু, শহিদুল ইসলাম, মোশাররফ হোসাইন, মোস্তাক আহমেদ, ছাত্রনেতা হাসান মাহফুজ ও মোহাইমিনুল ইসলাম প্রমুখ।

নিউ মার্কেট ও কলাবাগান থানা: নিউ মার্কেট ও কলাবাগান থানা শাখার উদ্যোগে হরতালের সমর্থনে সকালে সেন্ট্রাল রোড আইডিয়াল কলেজের সামনে থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের হয়। মিছিলটি বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে হাতিরপুল সড়ক মোড়ে এসে শেষ হয়। মিছিলে নিউ মার্কেট থানা আমির মাওলানা মহিব্বুল হক, থানা সেক্রেটারি গোলাম সরওয়ার, কলাবাগান থানা সেক্রেটারি আক্তারুজ্জামান ও স্থানীয় নেতা-কর্মীরা অংশ নেন। মিছিলে পুলিশ হামলা চালিয়ে একজনকে গ্রেফতার করে ও কয়েকজনকে ধাওয়া করে পিটিয়ে আহত করে বলে দলটির পক্ষ থেকে জানানো হয়।

খিলগাঁও থানা: সকাল ৮টায় হরতালের সমর্থনে খিলগাঁও থানা জামায়াতের উদ্যোগে খিলগাঁও রেলগেট থেকে থানা সেক্রেটারির নেতৃত্বে বিক্ষোভ মিছিল বের হয়।

কোতয়ালি থানা: সকালে হরতালের সমর্থনে কোতয়ালি থানা শাখার উদ্যোগে থানা সেক্রেটারি এ কে নাইমের নেতৃত্বে বাবুবাজার থেকে নয়াবাজার পর্যন্ত এক বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়।

ডেমরা থানা: হরতালের সমর্থনে ডেমরা থানা জামায়াতের উদ্যোগে মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। মিছিলটি ডেমরা থানার বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়।

কদমতলী পশ্চিম: কদমতলী পশ্চিম থানা জামায়াত জুরাইন কমিশনার রোডে সকাল ৭টায় হরতালের সমর্থনে বিক্ষোভ করে। মিছিলটি নগরীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়।

বংশাল থানা: বংশাল থানা শাখার উদ্যোগে হরতালের সমর্থনে একটি মিছিল এস.সি.সি রোড থেকে নয়াবাজার গিয়ে শেষ হয়।

যাত্রাবাড়ী পশ্চিম: যাত্রাবাড়ী পশ্চিম শহীদ ফারুক রোডে সকালে মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। মিছিলটি নগরীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়।

হাজারীবাগ-ধানমন্ডি: হরতালের সমর্থনে মিছিল করে হাজারীবাগ-ধানমন্ডি থানা জামায়াত ও শিবির। থানা আমির অ্যাডভোকেট জসিম উদ্দিন সরকারের নেতৃত্বে মিছিলটি অনুষ্ঠিত হয়।

কদমতলী পুর্ব থানা: কদমতলী পূর্ব থানা জামায়াতের উদ্যোগে সকালে গোয়াল বাড়ি মোড়ে থানা আমির মীর বাহারের নেতৃত্বে মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। মিছিলটি নগরীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়।
শ্যামপুর থানা: শ্যামপুর থানা জামায়াতের উদ্যোগে মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। মিছিলটি জুরাইন রেলগেট থেকে শুরু হয়ে শ্যামপুর থানার বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়।

ওয়ারী থানা: ওয়ারী থানা শাখার উদ্যোগে সকালে মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। মিছিলটি টিকাটুলি থেকে শুরু হয়ে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫