কেশবপুরে ৪০ পরিবার পানিবন্দী

কেশবপুর (যশোর) সংবাদদাতা

গত দুদিনের প্রবল বর্ষনে কেশবপুরের নিন্মাঞ্চল আবারো প্লাবিত হয়েছে। দমকা হাওযা আর বৃষ্টির কারনে বহু কাচা ঘর ভেঙ্গে ও ধ্বসে গেছে। রোপা আমন ধানের মারাতœক ক্ষতি হয়েছে। সবজির ক্ষতি হয়েছে সবচেয়ে বেশী।
কেশবপুরের শ্রীফলা গ্রামের ২ ব্যক্তি সরকারি কালর্ভাটের মুখ বন্ধ করে পুকুরে মাছ চাষ করায় গত ২ দিনের ভারী বর্ষনে পানি নিষ্কাশন পথ বন্ধ হয়ে ৪০ পরিবার পানিবন্দী হয়ে পড়েছে। এ ব্যাপারে প্রতিকার চেয়ে এলাকার অর্ধশত ব্যক্তির স্বাক্ষরিত একটি অভিযোগ ১০ অক্টোবর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে দেয়া হয়েছে।
অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, গত ৩ বছর আগে এ পাড়ার মোহর আলী ও বিল¬াল হোসেন তাদের পুকুরে মাছ চাষ করার স্বার্থে সরকারি রাস্তায় কালর্ভাটের মুখ বন্ধ করে দেয়। সেই থেকে ওই পাড়ার ৪০/৫০ টি পরিবার প্রতিবছর বর্ষা মৌসুমে পানিবন্দী হয়ে মানবেতর জীবন যাপন করে আসছে। শ্রীফলা গ্রামের ছমির সরদার জানান, গত ৮ ও ১০ অক্টোবর ২ দিনের ভারী বৃষ্টিতে তার পাড়ার ৪০ পরিবার পানিবন্দী হয়ে পড়েছে। ইতোমধ্যে পানির কারণে শহিদুল, মইদুল, ফারজেক আলী, সালাম সরদারের বাড়িসহ ১৫টি বাড়ি দেয়াল ধসে গেছে।
এলাকার ইউপি সদস্য জানান, ওই দুই ব্যক্তির কারণে তার গ্রামের পশ্চিমপাড়ার প্রায় অর্ধশত বাড়ি পানিতে তলিয়ে গেছে। বিষয়টি আমি উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে জানিয়েছি।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.