ঢাকা, শনিবার,১৮ নভেম্বর ২০১৭

মোবাইল

স্যামসাং ও অ্যাপলের জন্য হুমকি গুগল পিক্সেল ২!

আহমেদ ইফতেখার

০৮ অক্টোবর ২০১৭,রবিবার, ১৮:১৪


প্রিন্ট

স্মার্টফোন ডিভাইসে এআই প্রযুক্তির ব্যবহার নতুন কিছু নয়। অ্যাপলের সিরি এবং স্যামসাংয়ের বিক্সবি এরই মধ্যে মানুষ ও ডিভাইসের মধ্যে যোগাযোগের এক নতুন দ্বার উন্মোচন করেছে। এ তালিকায় সম্প্রতি যুক্ত হয়েছে গুগল। এআই-সংবলিত পিক্সেল ২ ও পিক্সেল ২ এক্সএলকে প্রিমিয়াম হ্যান্ডসেট বাজারে অ্যাপল ও স্যামসাংয়ের জন্য হুমকি মনে করা হচ্ছে।

গুগল তাদের দ্বিতীয় প্রজন্মের পিক্সেল ব্র্যান্ডের স্মার্টফোনে গুগল অ্যাসিস্ট্যান্ট সেবা যুক্ত করেছে। চলতি বছর শুধু এআই সমর্থিত নতুন দুই পিক্সেল স্মার্টফোনই নয়; একই মঞ্চে ভয়েস সমর্থিত হোম স্পিকার, পিক্সেলবুক ল্যাপটপ, ওয়্যারলেস ইয়ারবাড, ক্ষুদ্রাকৃতির ক্যামেরার পাশাপাশি সফটওয়্যার ও এআই সমর্থিত মোট আটটি হার্ডওয়্যার উন্মোচন করেছে। গুগলের পিক্সেল ব্র্যান্ডের দুই ডিভাইসকে বৈশ্বিক প্রিমিয়াম স্মার্টফোন বাজারে অ্যাপল ও স্যামসাংয়ের জন্য হুমকি মনে করা হচ্ছে।

ক্রমবর্ধমান স্মার্টফোন বাজারে গত বুধবার উন্মোচিত গুগল পিক্সেল ২ ও পিক্সেল ২ এক্সএলের ভালো ব্যবসায় করার সুযোগ রয়েছে। প্রিমিয়াম এজ-টু-এজ প্রযুক্তি-সংবলিত হ্যান্ডসেট বাজারে অ্যাপলের আইফোন এবং স্যামসাংয়ের গ্যালাক্সি ও নোট সিরিজের ফ্ল্যাগশিপ ডিভাইসের তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বী হবে এ দুই ডিভাইস। যুগোপযোগী একগুচ্ছ উদ্ভাবন এবং গুগলের বিক্রয় ও বিপণন নেটওয়ার্ক উন্নয়নের কারণে পিক্সেল ব্র্যান্ডের স্মার্টফোন আগামীতে স্মার্টফোন বাজারের শীর্ষ দুই প্রতিদ্বন্দ্বী স্যামসাং ও অ্যাপলের মাথাব্যথার কারণ হয়ে উঠবে।

গুগল পিক্সেল ব্র্যান্ডের স্মার্টফোন দেখতে কতটা আকর্ষণীয় সেটা বিষয় নয়। গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো অনুসন্ধান ও সফটওয়্যারের পাশাপাশি গুগল কিভাবে হার্ডওয়্যার খাতে ব্যবসায় জোরদার করতে যাচ্ছে। ডিভাইস ব্যবসায় জোরদারের লক্ষ্যে এরই মধ্যে ডিস্ট্রিবিউশন চ্যানেল এবং সেলফোন অপারেটর একাধিক টেলিকম কোম্পানির সাথে অংশীদারিত্বের বিষয়টি নিশ্চিত করেছে গুগল। এ ছাড়া এইচটিসি অধিগ্রহণ হার্ডওয়্যার খাতে ব্যবসায় জোরদারের প্রতিশ্রুতিরই একটি অংশ।

 

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫