ঢাকা, শনিবার,১৬ ডিসেম্বর ২০১৭

প্রশাসন

বিদেশ যেতে বিধিনিষেধ শিথিল

মনির হোসেন

২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৭,সোমবার, ১৪:০৮


প্রিন্ট
বিদেশ যেতে বিধিনিষেধ শিথিল

বিদেশ যেতে বিধিনিষেধ শিথিল

প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় দূতাবাস বা হাইকমিশনের সত্যায়ন ছাড়া একক ও গ্রুপ ভিসায় বহির্গমন ছাড়পত্র না দিতে জনশক্তি কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোর মহাপরিচালকের কাছে নির্দেশনা পাঠানো হয়েছিল। ওই চিঠি ইস্যুর এক সপ্তাহ না যেতে গতকাল থেকে ফের বহির্গমন ছাড়পত্র দেয়া শুরু হয়েছে। গতকাল জনশক্তি কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোর বহির্গমন শাখার দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তারা বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। 

এতে স্বস্তি জানিয়েছেন শত শত রিক্রুটিং এজেন্সির মনোনীত প্রতিনিধিরা। তারা বলছেন, একক ভিসায় (সর্বোচ্চ আটটি) দূতাবাসের সত্যায়নের কোনো প্রয়োজন নেই। তারা মনে করছেন, এটা হয়রানি ছাড়া আর কিছুই না। 

ইস্কাটনের প্রবাসী কল্যাণ ভবনের দ্বিতীয় তলায় জনশক্তি কর্মসংস্থান ব্যুরোর বহির্গমন শাখায় গতকাল খোঁজ নিতে গেলে দেখা যায়, দোতলার গেটের সামনেই রিক্রুটিং এজেন্সির প্রতিনিধিদের ভিড়। ভেতরে দেখা যায়, কর্মকর্তা-কর্মচারীরা ফাইল প্রসেসিং করছেন।

বেলা সাড়ে ৩টা বাজার সাথে সাথে এজেন্সির প্রতিনিধিরা ভেতরে প্রবেশ করে নিজেরাই পাসপোর্টের ওপর সিল মারছেন। কেউ আবার সংশ্লিষ্ট শাখার সহকারী পরিচালকদের (হেলাল উদ্দিন) রুমে ফাইল সই করাচ্ছেন। এরপর এসব ফাইলে চূড়ান্ত অনুমোদন করাতে পরিচালকের কক্ষে (বহির্গমন) ফাইল পাঠানো হচ্ছে। অফিস সহকারীদের উপস্থিতিতে একক ভিসার ফাইলে পরিচালক একের পর এক স্বাক্ষর করছেন। 

জনশক্তি কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোর পরিচালক (বহির্গমন) মো: আতিকুর রহমান গতকাল সন্ধ্যায় নয়া দিগন্তকে বলেন, একক ভিসায় বহির্গমন ছাড়পত্র না দিতে মন্ত্রণালয়ের একটি নির্দেশনা ছিল। ওই চিঠি আসার পর আমার দফতর থেকে কোনো ফাইল অনুমোদন করছিলাম না। আজ আবার মহাপরিচালকের দফতর থেকে নির্দেশনা পেয়েছি। এরপরই একক ভিসার ফাইলে স্বাক্ষর করছি।

তিনি আরো বলেন, প্রতিটি ফাইল যাচাই বাছাইয়ের পর ছাড়ছি। পাশাপাশি ফাইলের হিসাব আমি খাতায় লিখে রাখছি। কয়েক দিনে জমা হওয়ায় রুমে এখন ফাইলের স্তূপ জমে গেছে। 

এর আগে জনশক্তি রফতানিকারকদের সংগঠন বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব ইন্টারন্যাশনাল রিক্রুটিং এজেন্সিসের (বায়রা) সাধারণ সম্পাদক রুহুল আমিন স্বপন নয়া দিগন্তকে বলেন, আমার জানা মতে একক ভিসায় বহির্গমন ছাড়পত্র দেয়া বন্ধ ছিল। আলোচনার পর মন্ত্রণালয় থেকে ফের ফাইল ছেড়ে দেয়ার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত হয়েছে বলে শুনেছি। 

এ দিকে সৌদি আরবসহ কয়েকটি দেশের গ্রুপ ভিসায় বহির্গমন ছাড়পত্র নিতে যেসব রিক্রুটিং এজেন্সি আবেদন করেছিল; সেগুলোর বিষয়ে গতকাল সিদ্ধান্ত নিতে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব তার মন্ত্রণালয়ের (কর্মসংস্থান শাখা) কর্মকর্তাদের সাথে বৈঠক করেছেন। বেলা ১১টা থেকে বিকেল পর্যন্ত চলা ওই বৈঠকে আর কী কী বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছে তা জানা যায়নি। 

১৪ সেপ্টেম্বর প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সহকারী সচিব মো: সামছুল ইসলাম স্বাক্ষরিত এক আদেশ জারি হয়। ওই আদেশে বলা হয়, দূতাবাস ও কনস্যুলেট জেনারেলের ভিসায় সত্যায়ন ব্যতীত বহির্গমন ছাড়পত্র প্রদান না করার জন্য। এরপর থেকেই একক ভিসায় বহির্গমন ছাড়পত্র বন্ধ হয়ে যায়। এরপর থেকেই রিক্রুটিং এজেন্সিগুলো চরম বিপাকে পড়ে যায়।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫