ঢাকা, বুধবার,১৮ অক্টোবর ২০১৭

ঢাকা

রোহিঙ্গাদের বিতাড়ন বাংলাদেশের অর্থনীতিকে ধ্বংস করার চেষ্টা : অর্থমন্ত্রী

গাজীপুর সংবাদদাতা

২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৭,রবিবার, ১৬:৩৭


প্রিন্ট
অর্থমন্ত্রী এ্যাননটেক্স কারখানার বিভিন্ন ইউনিট পরির্দশন করেন।

অর্থমন্ত্রী এ্যাননটেক্স কারখানার বিভিন্ন ইউনিট পরির্দশন করেন।

মিয়ানমার রোহিঙ্গাদের তাদের দেশ থেকে বিতাড়িত করে বাংলাদেশের অর্থনীতিকে বিধ্বস্ত করার চেষ্টা করছে। রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশে পাঠিয়ে মিয়ানমার বাংলাদেশের বিরুদ্ধে এক প্রকার যুদ্ধ ঘোষণা করেছে বলে মন্তব্য করেছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত। তিনি টঙ্গীতে স্থাপিত ১০০% রফতানিমুখী বিকাশমান শিল্পকারখানা এ্যাননটেক্স গ্রুপের স্বাস্থ্য ক্যাম্প উদ্বোধন করে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এমন মন্তব্য করেন।

অর্থমন্ত্রী বলেন, রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশে পাঠিয়ে মিয়ানমার এদেশের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছে। বাংলাদেশের অর্থনীতিকে তারা বিধ্বস্ত করতে চাইছে। ৪ লাখের বেশি রোহিঙ্গা শরণার্থী এদেশের অর্থনৈতিক ও সামাজিক জীবনে দোলা দিয়েছে। তবে আমরা মুক্তিযুদ্ধ করে এদেশ স্বাধীন করেছি। আমরা মুক্তিযুদ্ধের সময় ভারতে আশ্রয় নিয়েছি। রোহিঙ্গাদেরও আমরা মানবিক কারণে আশ্রয় দিয়েছি। বর্তমান জননেত্রী শেখ হাসিনার সরকার জনকল্যাণমুখী সরকার। শেখ হাসিনা সবসময়ই জনকল্যাণমুখী।

এসময় মন্ত্রীর সাথে স্থানীয় সংসদ সদস্য যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি আলহাজ্ব মো: জাহিদ আহসান রাসেল এমপি, মহানগর আওয়মী লীগ সভাপতি অ্যাড. আজমত উল্লা খান, এ্যাননটেক্স গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আলহাজ্ব মো: ইউনুস বাদলসহ কারখানার অন্যান্য পরিচালকবৃন্দ ও প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, টঙ্গীতে স্থাপিত এ্যাননটেক্স গ্রুপ দেশের অন্যতম শিল্প উদ্যোক্তা গ্রুপ। গত ১০ বছরে শিল্পক্ষেত্রে বিপ্লব ঘটিয়ে ৫টি স্পিলিং মিলসহ ১০টিরও বেশি শতভাগ রফতানিমুখী শিল্প ও কারখানা স্থাপন করেছে। কারখানাগুলোতে ২৬ হাজার শ্রমিক কর্মচারী কর্মরত রয়েছেন। এদের স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে ‘এ্যাননটেক্স হেলথ ক্লিনিক’ রোববার সকালে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত এমপি উদ্বোধন করেন। এর আগে অর্থমন্ত্রী এ্যাননটেক্স কারখানার বিভিন্ন ইউনিট পরির্দশন করেন।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫