জাতিসংঘে বক্তব্য রাখছেন সিরিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী
জাতিসংঘে বক্তব্য রাখছেন সিরিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী

‘ইসরাইল-সমর্থিত সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে বিজয়ের দ্বারপ্রান্তে সিরিয়া’

নয়া দিগন্ত অনলাইন

সিরিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়ালিদ আল-মুয়াল্লেম বলেছেন, আমেরিকা ও ইহুদিবাদী ইসরাইলের সমর্থিত সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধে বিজয়ের দ্বারপ্রান্তে রয়েছে তার দেশ। উগ্র সন্ত্রাসীরা গত ছয় বছর ধরে সিরিয়ায় ব্যাপক ধ্বংসযজ্ঞ চালিয়েছে বলেও তিনি উল্লেখ করেছেন।

শনিবার জাতিসংঘের বার্ষিক সাধারণ অধিবেশনে দেয়া ভাষণে মুয়াল্লেম বলেন, দেশের জনগণ ও মিত্র দেশগুলোর সমর্থন নিয়ে সিরিয়ার সেনাবাহিনী সন্ত্রাসবাদের মূলোৎপাটনে সাফল্যের সঙ্গে এগিয়ে যাচ্ছে।

তিনি আরো বলেন, আলেপ্পো ও পালমিরা পুনরুদ্ধার, দেই আয-যোরের ওপর সন্ত্রাসীদের আরোপিত অবরোধ ভেঙে দেয়া এবং দেশের আরো বহু এলাকা থেকে সন্ত্রাসীদের শেকড় উপড়ে ফেলার ঘটনা প্রমাণ করছে বিজয় আমাদের নাগালের মধ্যেই রয়েছে।

সিরিয়ার শীর্ষ কূটনীতিক এখন বিশ্বের অন্যান্য অঞ্চলে তাকফিরি সন্ত্রাসবাদ ছাড়িয়ে পড়ার ব্যাপারে সতর্ক করে দেন। এই দুর্বৃত্ত গোষ্ঠীকে নিশ্চিহ্ন করার পদক্ষেপ নেয়ার জন্য তিনি আন্তর্জাতিক সমাজের প্রতি আহ্বান জানান।

ওয়ালিদ আল-মুয়াল্লেম বলেন, সিরিয়ায় বিদেশি মদদে সহিংসতা শুরু হওয়ার পর থেকেই এখানে নাক গলাতে শুরু করে ইসরাইল। তেলআবিব উগ্র তাকফিরি সন্ত্রাসীদেরকে অর্থ, অস্ত্র ও যোগাযোগ প্রযুক্তি দিয়ে সহায়তা করেছে তেল আবিব। এমনকি সন্ত্রাসীদের সমর্থনে সিরিয়ার সেনা অবস্থানে বোমাবর্ষণও করেছে ইহুদিবাদী ইসরাইল।

উগ্র তাকফিরি সন্ত্রাসীদের প্রতি ইসরাইলের এই সমর্থনে সিরিয়া মোটেও বিস্মিত হয়নি বলে জানান মুয়াল্লেম এর কারণ হিসেবে তিনি বলেন, এই দুই পক্ষ অভিন্ন লক্ষ্য-উদ্দেশ্য নিয়ে কাজ করছে। তবে তেল আবিবের এই সাহায্য সত্ত্বেও দায়েশ জঙ্গিরা পরাজয়ের মুখোমুখি রয়েছে বলে সিরিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী উল্লেখ করেন।


সন্ত্রাসীদের বিশ্বযুদ্ধে সিরিয়া বিজয়ী হয়েছে : আলী শামখানি

ইরানের সর্বোচ্চ জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদের সচিব আলী শামখানি বলেছেন, সিরিয়ার বিরুদ্ধে চালানো সন্ত্রাসীদের 'বিশ্বযুদ্ধে' দেশটি বিজয়ী হয়েছে। পাশাপাশি কয়েক বছরব্যাপী সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে লড়াই অব্যাহত রাখায় সিরিয়ার সরকার এবং জনগণের মহৎ তৎপরতাকে স্বাগত জানান তিনি।

তেহরান সফররত সিরিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়ালিদ আল-মোয়াল্লেম এবং সিরিয়ার জাতীয় নিরাপত্তা ব্যুরোর প্রধান মেজর জেনারেল আলী মামলুকের সঙ্গে বৈঠকে এ মন্তব্য করেন শামখানি।

সিরিয়ায় চলমান যুদ্ধবিরতির কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, দেশটির সামরিক শক্তি বজায় রাখা এবং সশস্ত্র গোষ্ঠীগুলোর তৎপরতার ওপর নজর রাখাই হলো সন্ত্রাসী গোষ্ঠীগুলোকে শান্তির প্রতি অঙ্গীকারাবদ্ধ রাখার একমাত্র পথ।

তিনি আরো বলেন, সিরিয়ার বৈধ সরকারকে দুর্বল করবে, দেশটির অংশ-বিশেষ সন্ত্রাসী গোষ্ঠীগুলোর হাতে তুলে দেয়া হবে বা দেশটিতে বিদেশি সামরিক দখলদারিত্বের সূচনা করবে এমন যে কোনো রাজনৈতিক পথ বা আলোচনা দেশটির জনস্বার্থ বিরোধী হবে। পাশাপাশি আঞ্চলিক দেশগুলোর জন্য তা হুমকি হয়ে দেখা দেবে এবং এ ধরণের প্রচেষ্টা ব্যর্থ হবে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

আলেপ্পো মুক্ত হওয়াকে সিরিয়ার সামরিক এবং রাজনৈতিক ক্ষেত্রে মোড় পরিবর্তন বলে উল্লেখ করে আলী শামখানি বলেন, এর মাধ্যমে মধ্যপ্রাচ্যের শক্তির সমীকরণ বদলে গেছে।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.