নীলাঞ্জনা

সোহেল রানা

পাশের বাড়ির নীলাঞ্জনা
উড়িয়ে দিলো চিঠি
আমার হাতে পড়বে ভেবে
হাসলো মিটিমিটি।

পড়লো শেষে মামার হাতে
প্রেমের চিঠিখানা
চিঠির কোথাও ছিল নাকো
প্রাপক সোহেল রানা।

লিখলো মামা চিঠির জবাব
দেখতে হাসিখুশি
আদর করে নামটি দিলো
প্রাণেরও মৌটুসি।

বুঝলো নাকো নীলাঞ্জনা
চিঠির জবাব কার
থাকলো দিতে ভালোবেসে
জবাব কয়েকবার।

কয়েক বছর চললো চিঠি
চললো আলাপন
খুব সহজে জিতলো মামা
নীলাঞ্জনার মন।

হঠাৎ করেই বাজলো সানাই
আসলো মামী ঘরেÑ
নীলাঞ্জনা জানলো সবই
বাচ্চা হওয়ার পরে।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.