ঢাকা, বৃহস্পতিবার,১৪ ডিসেম্বর ২০১৭

অন্যদিগন্ত

জেলে গুরমিত সিংয়ের প্রতিদিনের আয় ২০ টাকা

এনডিটিভি

২১ সেপ্টেম্বর ২০১৭,বৃহস্পতিবার, ০০:০০


প্রিন্ট
গুরমিত সিং

গুরমিত সিং

জেলে সবজি চাষের কাজ করে ভারতের ধর্ষক গুরমিত সিং। আর এ থেকে তার দৈনিক আয় হয় ২০ টাকা। ভারতের হারিয়ানার সুনারিয়া জেলকর্মীরা জানিয়েছেন, দিনে আট ঘণ্টা কাজ করতে হয় তাকে। গত ২৮ আগস্ট আশ্রমের দুই সাধ্বীকে ধর্ষণে দোষী সাব্যস্ত করে ২০ বছরের সাজা ঘোষণা করেন হরিয়ানা আদালত। ৫০ বছর বয়েসী স্বঘোষিত গুরু গুরমিত সিং জেলে আসার পর থেকে শুধু কাঁদতো আর হানিপ্রীতের সাথে কথা বলতে চাইতো। বেশ কয়েকবার কাউন্সিলিং করা হয়েছে তার।
এখন তার সেলের সামনে ৯০০ স্কোয়ার ইয়াডের একটি জমিতে সবজি চাষ করে সে। হরিয়ানার সংশোধনাগারের ডিজি কে পি সিং জানিয়েছেন, সারা দিন জমিতে চাষ করে ও গাছের কাটিং করে সময় কাটান সে। তার পারিশ্রমিক হিসাবে তাকে দেয়া হয় দিনে ২০ টাকা। সারা দিন প্রচণ্ড নিয়মানুবর্তীতার সাথে কাটাতে হয় তাকে। কোনো রকম বিশেষ সুবিধা দেয়া হয় না গুরমিত সিংকে। তার সেলে একটি টেলিভিশন সেটও নেই। তবে নিরাপত্তার কারণে অন্য কয়েদিদের সংস্পর্শে আসতে দেয়া হয় না তাকে।
পরিচিতদের সাথে কথা বলার জন্য দু’টি টেলিফোন নম্বর দেয়া হয়েছে তাকে। সেখান থেকে ফোন করতে পারে সে। তবে যাকে ফোন করবে তার নম্বর আগে পুলিশ ভেরিভিকেশন করা হয়। বারবার সে হানিপ্রীতের সাথে যোগাযোগ করতে চাইলেও সেটা করতে দেয়া হয়নি। একমাত্র রক্তের সম্পর্কের কাউকেই টেলিফোনে সে যোগাযোগ করতে পারে বলে জেল কর্তৃপ জানিয়েছে। গুরমিত সিংয়ের দেয়া ১০ জনের তালিকা মেনেই জেলে সাাতের অনুমতি মেলে। তবে তার আগে সাাৎপ্রার্থী ১০ জনেরই পুলিশ ভেরিফিকেশন করা হয়। জেলে গুরমিত সিংয়ের জন্য বরাদ্দ করা হয়েছে দুই জোড়া হাওয়াই চটি ও দু’টি বই। অথচ ডেরায় রামরহিমের শতাধিক জুতা, জামা ছিল।

 

 

অন্যান্য সংবাদ

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫