ঢাকা, শনিবার,২১ অক্টোবর ২০১৭

ঢাকা

নারায়ণগঞ্জে জমি রক্ষার দাবিতে কৃষকদের মানববন্ধন

নারায়ণগঞ্জ সংবাদদাতা

১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৭,মঙ্গলবার, ১৮:২৫


প্রিন্ট

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার ভোলাব ইউনিয়নের কাজলা বিল এলাকার নিরীহ কৃষকদের জমি ভরাট করে বিভিন্ন আবাসন প্রকল্প দখলে নেয়ার প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছে ভুক্তভোগীরা। এসময় ভুক্তভোগীরা জমি রক্ষায় নিরুপায় হয়ে কান্নায় ভেঙ্গে পড়ে। পূর্ব পুরুষ থেকে পাওয়া এসব জমিতে ধান আর পুকুরে মাছের চাষ করে জীবিক নির্বাহ করলেও আবাসন প্রকল্পের আগ্রাসনের কারণে এখন তারা নিঃস্ব হতে চলেছে। অনুমতি ছাড়াই এসব কৃষকের জমিতে বালু ভরাট করে দখল নিয়ে যাচ্ছে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান। আর বাধা দিতে গেলে শিকার হচ্ছেন হামলা মামলার।
মঙ্গলবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জ আদালতপাড়ায় ভুক্তভোগী কৃষকরা মানববন্ধন করলে আইনজীবীসহ বিভিন্ন স্তরের লোকজন সংহতি প্রকাশ করেন।
মানববন্ধনে সংহতি প্রকাশ করেন আওয়ামী লীগের জাতীয় পরিষদের সদস্য নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি আনিছুর রহমান দিপু, বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা ও নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম প্রমুখ।
কান্নাজড়িত কণ্ঠে ভুক্তভোগী কৃষক শাহজাহান মোল্লা বলেন, ‘৮ ভাইয়ের ২৮ বিঘা জমি ও ২টি পুকুর আছে। যেখান থেকে আমাদের পরিবারের সারা বছরের চাল ও মাছ আসে। পরিবারের চাল ও মাছ রেখেও আমরা কয়েক লাখ টাকার মাছ ও ধান বিক্রি করে অন্য খরচ চলে যায়। কিন্তু আজ সবই দখল করে নিচ্ছে বিভিন্ন হাউজিং কোম্পানিসহ বিভিন্ন কোম্পানি। বাধা দিতে গেলেই বলে মেরে লাশ বালু চাপা দিয়ে দিবে।’
অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার বলেন, হাউজিংসহ অন্যান্য ১৭টি প্রাতিষ্ঠানিক ভূমিদস্যুরা ভোলাব ইউনিয়ন চারিতালুক এলাকার কাজলা সরকারি খাল ও কাজলা বিল ও দড়ি চারিতালুক, বাসন্দা, পাইস্কা, কুড়িয়াল, করটিয়া, পূর্বের গাঁও, কুতুবপুর এলাকার সরকারী খাল-বিল ও পাশের প্রায় ৩ হাজার বিঘা কৃষি জমি জোরপূর্বক বালু ভরাট চলছে। কিন্তু স্থানীয় প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর দ্বারস্থ হলেও অসহায়দের পাশে দাঁড়াচ্ছে না। অচিরেই এর সমাধান না হলে আমরা ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক অবরোধ করবো।
রূপগঞ্জ উপজেলা পরিষদের নির্বাহী কর্মকর্তা আবুল ফতেহ মোহাম্মদ সফিকুল ইসলাম বলেন, সোমবার আমি আবেদন পেয়েছি। ইতোমধ্যে ভোলাব ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও এসিল্যান্ডকে চিঠি দিয়েছি যাতে সরেজমিনে পরিদর্শন করে এবং যে সকল কোম্পানিগুলো এখানে সাইনবোর্ড লাগিয়েছে তাদের তালিকা করে জমা দেওয়ার জন্য। এছাড়া যেসব ড্রেজার দিলে বালু ফেলা হচ্ছে সেগুলো বন্ধ করা করা হবে। তাছাড়া কৃষকদের জমি রক্ষার জন্য সব ধরনের ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫