ঢাকা, বৃহস্পতিবার,১৪ ডিসেম্বর ২০১৭

প্রযুক্তি দিগন্ত

অ্যাপলের নতুন তিন আইফোন

১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৭,শনিবার, ০০:০০


প্রিন্ট
অ্যাপলের প্রধান নির্বাহী টিম কুক আইফোন টেনের সাথে সবাইকে পরিচয় করিয়ে দিচ্ছেন

অ্যাপলের প্রধান নির্বাহী টিম কুক আইফোন টেনের সাথে সবাইকে পরিচয় করিয়ে দিচ্ছেন

প্রতি বছর সেপ্টেম্বরে আইফোনের নতুন সংস্করণ উন্মোচন অ্যাপলের রেওয়াজ হয়ে দাঁড়িয়েছে। এ কারণে সেপ্টেম্বর আসার আগেই নতুন আইফোন নিয়ে নানা জল্পনা-কল্পনা ও আলোচনা শুরু হয়। ব্যতিক্রম ছিল না এবারো। বিশেষ করে আইফোনের পরবর্তী সংস্করণ নিয়ে উৎসাহ-উদ্দীপনা আর কৌতূহল তো ছিলই। এতে নতুন মাত্রা যোগ করেছে দশকপূর্তি সংস্করণ। নতুন আইফোনের আদ্যপান্ত নিয়ে লিখেছেন আহমেদ ইফতেখার
অ্যাপল সাধারণত আইফোন উন্মোচনের এক বা দুই সপ্তাহ আগেই ক্রেতাদের কাছ থেকে প্রাক-আদেশ নিয়ে থাকে। তবে প্রতিষ্ঠানটি এবার এমন করেনি, তাই ক্রেতাদের মধ্যে উন্মোচনের দিনটি নিয়ে উৎকণ্ঠাও ছিল অনেক বেশি। গুঞ্জন ছিল আইফোন ৭ এর পর এবার ৮ আসছে। অবশেষে অ্যাপল আইফোন ৮ ও ৮ প্লাস উন্মোচন করেছে। আর চলতি বছর আইফোন বাজারে আসার ১০ বছর পূর্ণ হয়েছে বলে চমক হিসেবে আরো একটি আইফোন উন্মোচন করেছে। আর অ্যাপলের সেই চমক হলো ‘আইফোন টেন’।
যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ায় এক অনুষ্ঠানে আইফোন এক্স বা আইফোন টেনের ঘোষণা দিয়েছেন অ্যাপলের প্রধান নির্বাহী টিম কুক। নতুন এই আইফোন সম্পর্কে তিনি বলেছেন, আইফোন টেন উন্মুক্ত করার মাধ্যমে প্রথম আইফোন সংস্করণের চেয়ে প্রযুক্তিগত উন্নয়নের েেত্র বড় একধাপ এগিয়ে যাওয়ার ঘটনা ঘটল।
আইফোন টেন
প্রায় বেজলহীন ডিসপ্লের এই ফোনে নেই অ্যাপলের চিরচেনা হোম বাটন। স্ক্রিনে ট্যাপ করলেই ডিভাইসটি চালু হবে আর হোম স্ক্রিনে যেতে স্ক্রিনের ওপরের দিকে সোয়াইপ করতে হবে। নিরাপত্তার জন্য নতুন রূপে এসেছে ফেইস রিকগনিশন সুবিধা। অ্যাপল এ প্রযুক্তির নাম দিয়েছে ফেস আইডি। ফলে কষ্ট করে পাসওয়ার্ড না দিয়ে চেহারা ফোনের সামনে ধরলেই ডিভাইসটি আনলক হয়ে যাবে। এতে রয়েছে ছয় কোরের এ১১ বায়োনিক প্রসেসর, যা আগের এ১০ প্রসেসর থেকে ৭০ শতাংশ বেশি শক্তিশালী। অ্যাপলের চমক হিসেবে আসা আইফোন টেন স্টেইনলেস স্টিল ও গ্লাসের সমন্বয়ে তৈরি করা হয়েছে। রুপালি (সিলভার) ও ধূসর (গ্রে) এ দু’টি রঙে বাজারে আসবে আইফোন টেন। এতে ৫ দশমিক ৮ ইঞ্চি মাপের সুপার রেটিনা ডিসপ্লে ব্যবহৃত হয়েছে।
আইফোন ১০ ফোনটিতে সিরি সফটওয়্যারের বিশেষ ব্যবহার সুবিধা ও ফেস আইডি ফিচার আছে। যুক্ত হয়েছে ট্রু ডেপথ ক্যামেরা সিস্টেম। অ্যাপলের দাবি, এর দ্রুত চার্জিং সুবিধার ব্যাটারি থাকায় আইফোন ৭-এর চেয়ে দুই ঘণ্টা বেশি চার্জ থাকবে। ফোনটির পেছনে রয়েছে ১২ মেগাপিক্সেল ডুয়েল ক্যামেরা। সেখানে আইফোন ৭ থেকে উন্নত সেন্সর ব্যবহার করা হয়েছে। ওয়াইড অ্যাঙ্গেল ছবি তোলার জন্য এতে রয়েছে এফ/১.৮ ও এফ/২.৪ অ্যাপারচার।
৬৪ জিবি ও ২৫৬ জিবি স্টোরেজ সুবিধার দু’টি মডেলে বাজারে আসবে আইফোন টেন। এর দাম শুরু হবে ৯৯৯ মার্কিন ডলার থেকে। অক্টোবরের ২৭ তারিখ থেকে প্রি-অর্ডার শুরু হবে এবং গ্রাহকেরা ডিভাইসটি হাতে পাবেন আগামী ৩ নভেম্বর।
আইফোন ৮ ও ৮ প্লাস
সাদামাটা গ্লাস ও অ্যালুমিনিয়ামের তৈরি আইফোন ৮ ও ৮ গ্লাস ডিভাইস দু’টিতে আছে রেটিনা এইচডি ডিসপ্লে ও উন্নত প্রসেসর। এতে আরো আছে ৬৪ বিট ডিজাইনের ৬ কোর এ১১ বায়োনিক সিপিইউ, যা আগের এ১০ থেকে ৭০ শতাংশ বেশি গতিময়। ফলে আগের চেয়ে একই সময় একাধিক অ্যাপ্লিকেশন চালু করলে তা আরো দ্রুত কাজ করবে। ছবি তোলার জন্য আইফোন ৮ এর পেছনে রয়েছে ১২ মেগাপিক্সেলের একটি ক্যামেরা। তবে আইফোন ৮ প্লাসে রয়েছে ১২ মেগাপিক্সেল ডুয়েল ক্যামেরা সেটআপ। ক্যামেরায় রয়েছে নতুন সেন্সর, অধিক পিক্সেল, নতুন কালার ফিল্টার ও অপটিক্যাল ইমেজ স্ট্যাবিলাইজেশন সুবিধা। এ ছাড়া রয়েছে পোর্ট্রেট মোড সুবিধা। ব্যাক ক্যামেরায় আছে কোয়াড এলইডি ট্রু টোন ফ্যাশ। পানিরোধক ডিভাইস দুটিতে রয়েছে স্টোরিও স্পিকার, ব্লুটুথ ৫, ওয়্যারলেস ও কুইক চার্জিং সুবিধা। অপারেটিং সিস্টেম হিসেবে এতে থাকবে আইওএস ১১।
আইফোন ৮-এর মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ৬৯৯ মার্কিন ডলার এবং ৮ প্লাসের মূল্য ধরা হয়েছে ৭৯৯ মার্কিন ডলার। চলতি মাসের ১৫ তারিখ থেকে প্রি-অর্ডার শুরু হবে আর বাজারে পাওয়া যাবে ২২ তারিখ থেকে।
অ্যাপল ওয়াচ সিরিজ ৩
আইফোনের পাশাপাশি পরিধেয় বাজার ধরে রাখতে নতুন সংস্করণের একটি স্মার্টওয়াচও উন্মোচন করেছে অ্যাপল। স্মার্টওয়াচটির নাম দেয়া হয়েছে ‘অ্যাপল ওয়াচ সিরিজ ৩’। এতে রয়েছে সেলুলার সুবিধা। এতে সিমকার্ড ব্যবহার করে আইফোনের সাহায্য ছাড়াই কল করা যাবে।
অ্যাপলের প্রধান নির্বাহী টিক কুম বলেন, গত বছর স্মার্টওয়াচের বাজারে দ্বিতীয় অবস্থানে ছিল অ্যাপল। তবে চলতি বছর শীর্ষ স্থানটি অ্যাপলেরই দখলে রয়েছে। গ্রাহকের আস্থা অর্জনেই এই সফলতা। এর পাশাপাশি নতুন স্মার্টওয়াচটিও সবাই পছন্দ করবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন। নতুন স্মার্টওয়াচ থেকে সরাসরি সিরিকে কমান্ড করা এবং সিরির উত্তর শোনা যাবে। এ ছাড়া চাইলে আলাদাভাবেও ফোনের সাহায্য ছাড়াই এয়ারপডসে গান শোনা যাবে। সেলুলার সুবিধা থাকায় আইফোন ছাড়াই অ্যাপলওয়াচ দিয়ে যোগাযোগ করা যাবে। এই সুবিধা আগের অ্যাপলওয়াচ সংস্করণে ছিল না। ডিভাইসটি থেকে অ্যাপল মিউজিকে থাকা ৪০ মিলিয়ন গান শোনা যাবে। এটি আগের অ্যাপল ওয়াচ থেকে ৫০ শতাংশ পাওয়ার সেভিং সুবিধা দিবে। গোল্ড অ্যালুমিনিয়াম ও স্পেশাল কালো সিরামিক রঙে পাওয়া যাবে এটি। পানিরোধক সুবিধাযুক্ত ডিভাইসটিতে অপারেটিং সিস্টেম হিসেবে রয়েছে ওয়াচওএস ৪। সেলুলারসহ অ্যাপলওয়াচ সিরিজ ৩ এর মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ৩৯৯ মার্কিন ডলার। তবে সেলুলার ছাড়া ডিভাইসটি পাওয়া যাবে ৩২৯ মার্কিন ডলারে।
অ্যাপল টিভি
আইফোন উন্মোচন মঞ্চে নতুন সেট-টপ বক্স উন্মোচন ও বিস্তারিত তুলে ধরেন অ্যাপলের ইন্টারনেট সফটওয়্যার ও সার্ভিস বিভাগের জ্যেষ্ঠ ভাইস প্রেসিডেন্ট এডি কু। এটি বিভিন্ন রেজুল্যুশনের টিভি শো, মুভি ও অ্যাপল টিভি ফোরকে কনটেন্ট সমর্থন করবে। আগামীকাল থেকে এটির প্রাক-ক্রয়াদেশ নেয়া হবে। বৈশ্বিক বাজারে এটির সরবরাহ শুরু হবে ২২ সেপ্টেম্বর। অ্যাপল ফোরকে টিভির ৩২ গিগাবাইট সংস্করণের মূল্য ধরা হয়েছে ১৭৯ ডলার এবং ৬৪ গিগাবাইট সংস্করণের মূল্য ধরা হয়েছে ১৯৯ ডলার।

 

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫