ঢাকা, বুধবার,২০ সেপ্টেম্বর ২০১৭

খুলনা

ছেলের দায়ের কোপে মায়ের মৃত্যু

যশোর সংবাদদাতা

১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৭,বৃহস্পতিবার, ২০:৩১ | আপডেট: ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৭,বৃহস্পতিবার, ২০:৫০


প্রিন্ট

বেনাপোল সীমান্তে ছেলে বাপ্পী (১৭) এর হাতে মা-আয়রা বেগমের (৪৫) নারীর মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। ছেলের দায়ের আঘাতে তিনি মারা গেছেন। ঘটনাটি ঘটেছে বৃহস্পতিবার সকাল ৮টার দিকে বেনাপোল সীমান্তের পুটখালী গ্রামের উত্তর পাড়ায়। আয়রা বেগম পুটখালী এলাকার মৃত. মাসুদ মাস্টারের স্ত্রী। ছেলে বাপ্পীকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে।

স্থানীয়রা জানান, মৃত্যু আয়রা বেগম আদিবাড়ি বরিশালে। তার একটি মেয়ে বিয়ে দেওয়া পুটখালী উত্তরপাড়া গ্রামের সাহেব আলীর সাথে। সেই সুবাদে আয়রা বছর দশেক আগে তার স্বামীকে নিয়ে পুটখালী এলাকায় জমি ক্রয় করে বাড়ি তৈরি করে সেখানেই থাকতেন। স্বামীর মৃত্যুর পর (পাঁচেক আগে) আবার বরিশালে চলে যায় সন্তানাদী নিয়ে। তার আরও একটি মেয়ে বিয়ে দেওয়া পুটখালী সীমান্তে।

কয়েক মাস আগে আয়রা বেগমের ছেলে বাপ্পী (১৭) বরিশাল থেকে পুটখালীতে ভগ্নিপতি সাহেব আলীর বাড়িতে আসেন। সেই থেকে সে এখানে থাকেন। মঙ্গলবারে আয়রা বেগম মেয়ের জামাই বাড়ি আসেন ছেলে বাপ্পীকে বরিশালে নেওয়ার জন্য। কিন্তু বাপ্পী বরিশালে যাবেন না বলে মাকে জানান।

এ বিষয়টি নিয়ে সন্তান মায়ের মধ্যে কথা কাটাকাটি শুরু হয়। এক পর্যায়ে বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে বাপ্পী একটি দায়ের উল্টা পিট দিয়ে মায়ের ঘাড়ে আঘাত করেন। এতে ঘটনাস্থলেই মা আয়রা বেগমের মৃত্যু হয়। সকাল সাড়ে ৯টার দিকে খবর পেয়ে বেনাপোল পোর্ট থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে যেয়ে আয়রা বেগমের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদান্তের জন্য যশোর জেনারেল হাসপাতালে প্রেরণ করেন। এ সময়ে পুলিশ ঘাতক পুত্র বাপ্পীকেও আটক করেন।

আয়রা বেগমের জামাই সাহেব আলী জানান, গত মাস তিনেক আগে শালা বাপ্পী তার বাড়িতে আসে। সে এখানে এসে বলে- আর বরিশালে যেতে চাই না। সে এখানে থেকে মানুষের দিন মজুরির কাজ করেন। কিছুদিন ধরে তার মাথায় সমস্যা দেখা দেয়। অনেক সময় খাওয়া দাওয়া করে না। পাগলের মত যেখানে-সেখানে ঘুরে বেড়ায়। মঙ্গলবারে আমার শাশুড়ি বরিশাল থেকে বাপ্পীকে বরিশালে নিয়ে যাওয়ার জন্য আসে। কিন্তু বাপ্পী বরিশালে যেতে চায় না। এ নিয়ে মা-ছেলের মাঝে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে বাপ্পী একটি দা-দিয়ে তার মায়ের ঘাড়ে আঘাত করলে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।

বেনাপোল পোর্ট থানার পুলিশ জানান, পারিবারিক কলেহের জের ধরে ছেলে বাপ্পী মা আয়রা বেগমের ঘাড়ে দা দিয়ে আঘাত করে। দায়ের আঘাতে ঘটনাস্থলেই মায়ের মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় ছেলে বাপ্পীকে  গ্রেফতার করা হয়েছে।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫