ভিডিও খাতে ইউটিউবের প্রতিদ্বন্দ্বি হবে ফেসবুক

নয়া দিগন্ত অনলাইন

ইউটিউবের সাথে প্রতিদ্বন্দ্বিতা জোরদারে সম্প্রতি ‘ওয়াচ’ ভিডিও প্লাটফর্ম চালু করেছে ফেসবুক। এ প্লাটফর্মের জন্য প্রকৃত ভিডিও কনটেন্ট তৈরির লক্ষ্যে শতকোটি ডলার ব্যয় করার পরিকল্পনা রয়েছে ফেসবুকের। আগামী বছরের মধ্যে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুক নিজেদের প্লাটফর্মের জন্য মৌলিক ভিডিও ও টেলিভিশন কনটেন্ট আনাসহ এই  ভিডিও প্লাটফর্মের সাফল্যের ওপর ভিত্তি করে বিনিয়োগের পরিমাণ আরো বাড়তে পারে। ভিডিও স্ট্রিমিং খাতে ফেসবুকের প্রতিদ্বন্দ্বী প্রতিষ্ঠান ইউটিউব, অ্যামাজন ও নেটফ্লিক্স। আগামী বছরের জন্য নেটফ্লিক্স যে পরিমাণ বিনিয়োগের লক্ষ্য নির্ধারণ করেছে, সে তুলনায় ফেসবুকের অঙ্কটা বেশ কম। চলতি বছর ভিডিও স্ট্রিমিং সাইট নেটফ্লিক্স ৬০০ কোটি ডলার ও অ্যামাজন ৪৫০ কোটি ডলার ব্যয় করেছে। ভিডিও স্ট্রিমিং খাতে আধিপত্য বিস্তারে নিজেদের কনটেন্ট নিয়ে কৌশল উন্নত করেছে ফেসবুক। চলতি মাসের শুরুতে যুক্তরাষ্ট্রের ব্যবহারকারীদের জন্য ‘ওয়াচ’ নামে নতুন একটি সেবা চালু করেছে প্রতিষ্ঠানটি। ‘ওয়াচ’ ভিডিও প্লাটফর্মের কনটেন্ট নির্মাতা ও প্রকাশকদের অর্থ পরিশোধ করার পরিকল্পনা রয়েছে ফেসবুকের।বিভিন্ন প্রযুক্তিবিষয়ক সাইটের তথ্যমতে, শিগগিরই ‘ওয়াচ’ ভিডিও স্ট্রিমিং প্লাটফর্মে বিজনেস ইনসাইডারের দু’টি নতুন অনুষ্ঠানের যাত্রা শুরু হতে যাচ্ছে। অনুষ্ঠান দু’টি হচ্ছে- ‘দ্য গ্রেট চিজ হান্ট’ ও ‘ইটস কুল, বাট ডাজ ইট রিয়েলি ওয়ার্ক’ এ ছাড়া এর মাধ্যমে ডিসকভারি ও এইচবিওর অনুষ্ঠান স্ট্রিমিংয়ের পরিকল্পনা রয়েছে। পাশাপাশি খাবারের ভিডিও নির্মাতা প্রতিষ্ঠান টেস্টমেড আগামী সপ্তাহের মধ্যে নতুন চারটি অনুষ্ঠান শুরু করতে যাচ্ছে। এগুলো হচ্ছে সেফ ডিপোজিট, স্ট্রাগল মিলস, ফুডস টু ডাই ফর ও কিচেন লিটল। ভবিষ্যতে ভিডিও প্লাটফর্মে বিজ্ঞাপন প্রদর্শনের পরিকল্পনা রয়েছে ফেসবুকের। ডিজিটাল বিজ্ঞাপন এরই মধ্যে ফেসবুকের আয়ের অন্যতম উৎসে পরিণত হয়েছে। প্রযুক্তি বিশ্লেষকদের তথ্যমতে, ইউটিউবের সাথে পাল্লা দেয়ার লক্ষ্যে চলতি মাসের শুরুতে এ সেবা চালুর ঘোষণা দিয়েছিল ফেসবুক। এর আগে স্থানীয় বাজারে ভিডিও ট্যাব চালু করেছিল সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমটি। এই ট্যাবে গ্রাহক ফেসবুকের ভিডিওগুলো খুঁজে পেতে পারেন। এবার ‘ওয়াচ’ প্লাটফর্ম চালুর মাধ্যমে ভিডিও স্ট্রিমিং খাতে আরো এক ধাপ এগিয়ে গেল  ফেসবুক। আহমেদ ইফতেখার

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.