ঢাকা, শুক্রবার,২৪ নভেম্বর ২০১৭

আরো খবর

মৌচাক লঞ্চের যাত্রী পারভীনসহ ২ জনের লাশ উদ্ধার

লঞ্চের সন্ধান মেলেনি এখনো

শরীয়তপুর সংবাদদাতা

১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৭,বৃহস্পতিবার, ০০:০০


প্রিন্ট

শরীয়তপুরের নড়িয়ায় পদ্মা নদীর তীব্র স্রোতে পন্টুন থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পানির তোড়ে উল্টে ডুবে যাওয়া তিনটি লঞ্চের উদ্ধারের জন্য অভিযান চালানো হলেও এদের মধ্যে এমভি নড়িয়া-২ ও এমভি মহানগর লঞ্চের সন্ধান মেলেনি। এর আগে গত মঙ্গলবার বিকেলে পদ্মায় প্রবল স্রোতের কারণে উদ্ধারকারী জাহাজ প্রত্যয় শনাক্ত করা মৌচাক-২ নামের লঞ্চটি উদ্ধার করতে ব্যর্থ হয়ে তীরে ফিরে যায়। এ দিকে লঞ্চডুবির তিনদিন পর মৌচাক লঞ্চের যাত্রী ও নবজাতকের মা পারভীন আক্তারসহ ২৫-৩০ বছর বয়সের এক যুবকের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। তবে ওই যুবকের কোনো পরিচয় পওয়া যায়নি। অপর দিকে পদ্মা নদীর পাড়ে নিখোঁজদের স্বজনেরা ছবি হাতে নিয়ে লাশের অপেক্ষায় আহাজারি করছেন।
নড়িয়া থানা, নৌপরিবহন কর্তৃপ ও সরেজমিন জানা গেছে, গত সোমাবর ভোর ৫টায় হঠাৎ করে নড়িয়ার পদ্মা নদীর ওয়াপদা লঞ্চঘাটে অবস্থিত পন্টুনের সামনে তীব্র স্রোতের কারণে ২-৩ শতাংশ জমি নিয়ে পদ্মার পাড় দেবে পন্টুনের পাশে ও পদ্মার পাড়ে নোঙর করা তিনটি লঞ্চ পন্টুন থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পানির তোড়ে ডুবে যায়। ডুবে যাওয়া তিনটি লঞ্চের মধ্যে গত মঙ্গলবার মৌচাক নামের লঞ্চটি নড়িয়া পদ্মা নদীর দুলারচরে সন্ধান পাওয়া গেলে নদীতে তীব্র স্রোত ও ঘোলা পানির কারণে উদ্ধার করতে ব্যর্থ হয়ে উদ্ধারকারী জাহাজ প্রত্যয় তীরে ফিরে যায়। গতকাল সন্ধ্যা পর্যন্ত এমভি নড়িয়া-২ ও এমভি মহানগর লঞ্চের কোনো সন্ধান করতে পারেনি উদ্ধারকারীদল। তারা জানিয়েছেন, নদীতে তীব্র স্রোত ও ঘোলা পানির কারণে আধুনিক যন্ত্র দিয়েও কোনো সন্ধান করতে পারছেন না তারা। এ ঘটনায় তিনটি লঞ্চের কর্মচারী ও মৌচাক-২ লঞ্চে এক নবজাতকসহ তিন যাত্রী ও অন্তত ২০ থেকে ২৫ জন নিখোঁজ হয়। এদের মধ্যে গতকাল সকালে পদ্মা পারের সুরেশ্বর এলাকা থেকে ২৫-৩০ বছর বয়সের এক যুবকের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। একই এলাকা থেকে মৌচাক লঞ্চের যাত্রী ও এক নবজাতকের মা পারভীন আক্তারের লাশ উদ্ধার করা হয়। পারভীনের লাশ তার স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করেছে স্থানীয় প্রশাসন।
পারভীনের স্বজনেরা জানান, গত ৭ সেপ্টেম্বর ঢাকার একটি হাসপাতালে কন্যাসন্তানের জন্ম দেন শরীয়তপুরের নড়িয়া পৌরসভার লোনশিং গ্রামের মোহাম্মদ আলী মাদবরের স্ত্রী পারভীন আক্তার। অনেক আনন্দ নিয়ে মৌচাক লঞ্চে পাঁচ দিনের নবজাতক কন্যাসন্তান, স্ত্রী ও শাশুড়িকে নিয়ে লঞ্চে বাড়ি ফিরছিলেন মোহাম্মদ আলী। সোমবার ভোরে লঞ্চটি যখন ঘটে পৌঁছে তখন বাইরে ছিল অন্ধকার। বাইরে অন্ধকার থাকায় তারা লঞ্চে অপো করছিলেন। ভোর ৫টায় হঠাৎ নদীভাঙন ও তীব্র স্রোতের কারণে পন্টুন থেকে বিছিন্ন হয়ে লঞ্চটি তলিয়ে যায়। মোহাম্মদ আলী কোনো রকমে সাঁতরে তীরে উঠলেও নিখোঁজ হয় তার নবজাতক কন্যাসন্তান, স্ত্রী পারভীন আক্তার ও শাশুড়ি ফকরুন্নেছা বেগম। তিন দিন পর পারভীনের লাশ উদ্ধার হয়। এ ছাড়া অজ্ঞাত এক যুবকের লাশ উদ্ধার হলেও এখনো নিখোঁজ রয়েছে অন্তত ২০ থেকে ২৩ জন। তবে প্রশাসনের হিসাব অনুযায়ী নিখোঁজ রয়েছে ১৩ জন।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫