ঢাকা, সোমবার,২০ নভেম্বর ২০১৭

অর্থ-শিল্প-বাণিজ্য

বিডিংয়ের অনুমতি পেল আমান কটন

টানা দ্বিতীয় দিন পুঁজিবাজারে দরপতন

অর্থনৈতিক প্রতিবেদক

১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭,বুধবার, ০০:০০


প্রিন্ট

টানা দ্বিতীয় দিনের মতো দরপতন হয়েছে পুঁজিবাজারে। পতনের শিকার হয়েছে লেনদেন হওয়া বেশির ভাগ কোম্পানি। কমেছে পুঁজিবাজার সূচক। গতকাল দেশের দুই পুঁজিবাজারেই এ ঘটনা ঘটে। ঊর্ধ্বমুখী সূচকে শুরু করা বাজারগুলো লেনদেনের বিভিন্নপর্যায়ে বিক্রয়চাপের মুখে পড়লে সূচকের ওঠানামার মধ্য দিয়ে পার করে দিনটি। দিনশেষে উভয় বাজারেই বেশির ভাগ কোম্পানির দর হারায়।
ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের প্রধান সূচক ডিএসইএক্স গতকাল ১ দশমিক ৮ পয়েন্ট কমে যায়। ৬ হাজার ১৫১ দশমিক ২ পয়েন্ট থেকে লেনদেন শুরু করা সূচকটি গতকাল লেনদেনের বিভিন্নপর্যায়ে ব্যাপক ওঠানামার পর দিনশেষে ৬ হাজার ১৪৯ দশমিক ৩৯ পয়েন্টে স্থির হয়। ডিএসই-৩০ ও শরিয়াহ সূচকের অবনতি হয় যথাক্রমে ৮ দশমিক ০৬ ও ৬ দশমিক ০৪ পয়েন্ট।
চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সার্বিক মূল্যসূচক ও সিএসসিএক্স সূচকের অবনতি হয় যথাক্রমে ২৮ দশমিক ৬ ও ২০ দশমিক ৬৭ পয়েন্ট। সিএসই-৫০ ও শরিয়াহ সূচক হারায় যথাক্রমে ৪ পয়েন্ট ও ৭ দশমিক ০৬ পয়েন্ট।
সূচকের অবনতি সত্ত্বেও গতকাল ঢাকা শেয়ারবাজারে লেনদেন বেড়েছে। এ দিন এখানে ১ হাজার ২০৩ কোটি টাকার লেনদেন নিষ্পত্তি করে, যা আগের দিন অপেক্ষা ৫১ কোটি টাকা বেশি। তবে গতকাল ডিএসইর লেনদেনের ২৪২ কোটি টাকা ছিল ব্লক মার্কেটের। ব্লøক লেনদেনের মধ্যে ১৯৭ কোটি ৫৯ লাখ টাকা ছিল স্যোশাল ইসলামী ব্যাংকের। এ টাকায় কোম্পানিটির ৫ কোটি ৮৬ লাখ ৩৪ হাজার শেয়ার হাতবদল হয় গতকাল। অন্য দিকে লেনদেন কমেছে চট্টগ্রাম শেয়ারবাজারে। সেখানে ৭১ কোটি টাকা থেকে ৫৮ কোটিতে নেমে আসে লেনদেন।
এ দিকে বুক বিল্ডিং পদ্ধতিতে আইপিওর মাধ্য্যমে পুঁজিবাজার থেকে মূলধন সংগ্রহে আগ্রহী প্রতিষ্ঠান আমান কটন ফাইবার্স লিমিটেডকে বিডিংয়ের অনুমোদন দিয়েছে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। গতকাল বিএসইসির ৬১১তম সভায় এ অনুমোদন দেয়া হয়।
বিএসইসি সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।
এখন প্রতিষ্ঠানটি বিএসইসি অনুমোদিত প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের অংশগ্রহণে বিডিংয়ের মাধ্যমে শেয়ারের কাট অফ প্রাইস নির্ধারণ করবে। নির্ধারিত কাট অফ প্রাইসে আইপিওর মোট শেয়ারের ৬০ শতাংশ প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের জন্য নির্ধারিত থাকবে। বাকি ৪০ শতাংশ শেয়ার কাট অফ প্রাইসের ১০ শতাংশ কম মূল্যে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের জন্য নির্ধারিত থাকবে, যা পরবর্তী সময়ে আইপিও আবেদনের মাধ্যমে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের মাঝে বিতরণ করা হবে। সূত্র মতে, কোম্পানিটি প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) মাধ্যমে পুঁজিবাজার থেকে ৮০ কোটি টাকা সংগ্রহ করবে।
কোম্পানি সূত্রে জানা গেছে, পুঁজিবাজার থেকে সংগ্রহ করা অর্থের একটি বড় অংশ দিয়ে কারখানায় আধুনিক মেশিনারি স্থাপন করা হবে। এতে ব্যয় করা হবে ৪৯ কোটি ৩৭ লাখ ৯৮ হাজার টাকা। উত্তোলিত অর্থ থেকে ১৭ কোটি ১২ লাখ টাকা ব্যয় হবে ঋণ পরিশোধে। ওয়ার্কিং মূলধন হিসাবে ব্যয় করা হবে ১০ কোটি টাকা। আর আইপিওতে ব্যয় হবে সাড়ে ৩ কোটি টাকা। কোম্পানির শেয়ারের অভিহিত মূল্য হবে ১০ টাকা।
আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী কোম্পানিটি (জুলাই, ১৫-মার্চ, ১৬) পর্যন্ত মোট ৯ মাস সময়ে শেয়ার-প্রতি আয় করেছে ২ টাকা ৪৬ পয়সা, যা এর আগের বছর ছিল ২ টাকা ৪২ পয়সা। ৩০ জুন ২০১৫ সমাপ্ত হিসাব বছরে কোম্পানির শেয়ার-প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৩ টাকা ২১ পয়সা। আলোচ্য বছরে শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য ছিল ৩১ টাকা ৮৯ পয়সা। আর কর পরবর্তী মুনাফা ছিল ২৫ কোটি ৬৭ লাখ টাকা। আমান কটন ফাইবার্স লিমিটেডকে আইপিওতে আনতে ইস্যু ম্যানেজারের দায়িত্ব পালন করছে আইসিবি ক্যাপিটাল ম্যানেজমেন্ট লিমিটেড। আর ইস্যুর রেজিস্টারের দায়িত্বে আছে প্রাাইম ব্যাংক ইনভেস্টমেন্টস লিমিটেড।
গতকাল দিনের শুরুতে ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানে বড় ধরনের দরপতন ঘটলেও শেষদিকে এসে তার অনেকটাই ফিরে পায়। এতে দুই বাজারই সূচকের বড় ধরনের অবনতি থেকে রক্ষা পায়। সবচেয়ে বেশি দরপতন ঘটে পাট, সিমেন্ট, সেবা, কাগজ, টেক্সটাইল, খাদ্য ও বিবিধ খাতে। ঢাকায় লেনদেন হওয়া ৩৩২টি কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের মধ্যে ১২৭টির মূল্যবৃদ্ধির বিপরীতে দর হারায় ১৫৭টি। অপরিবর্তিত ছিল ৪৮টির দর। অপর দিকে চট্টগ্রাম শেয়ারবাজারে লেনদেন হওয়া ২৫৪টি সিকিউরিটিজের মধ্যে ১০৮টির দাম বাড়ে ১২০টির কমে এবং ২৬টির দাম অপরিবর্তিত থাকে।
ঢাকা স্টকে গতকালও লেনদেনের শীর্ষস্থানটি দখলে রাখে লঙ্কা-বাংলা ফিন্যান্স। ৭৩ কোটি ৬৭ লাখ টাকায় কোম্পানিটির ১ কোটি ১৪ লাখ ৭৫ হাজার শেয়ার হাতবদল হয়। ২৯ কোইট ৩২ লাখ টাকায় ২৩ লাখ ৪৫ হাজার শেয়ার বেচাকেনা করে মোবিল যমুনা ছিল দিনের দ্বিতীয় কোম্পানি। ডিএসইর লেনদেনের শীর্ষ দশ কোম্পানির অন্যগুলো ছিল যথাক্রমে ফার্স্ট ফিন্যান্স, প্রিমিয়ার ব্যাংক, গ্রামীণফোন, সিটি ব্যাংক, মার্কেন্টাইল ব্যাংক, ন্যাশনাল ব্যাংক, স্কয়ার ফার্মা ও লাফার্জ সুরমা সিমেন্ট।

 

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫