ঢাকা, শনিবার,২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭

আইন ও বিচার

এমবিবিএস পরীক্ষায় নম্বর কাটার সিদ্ধান্ত বাতিল চেয়ে রিটের আদেশ কাল

নিজস্ব প্রতিবেদক

১১ সেপ্টেম্বর ২০১৭,সোমবার, ১৯:২১


প্রিন্ট

এমবিবিএস দ্বিতীয় মেয়াদের ভর্তি পরীক্ষায় ৫ নম্বর কর্তন করাকে বেআইনি ঘোষণার নির্দেশনা চেয়ে করা রিট আবেদনের শুনানি শেষ হয়েছে। আগামীকাল মঙ্গলবার আদেশের দিন ধার্য করেছেন আদালত।

আজ বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো: জাহাঙ্গীর হোসেনের সমন্বয়ে গঠিত অবকাশকালীন হাইকোর্ট বেঞ্চ আদেশের দিন ধার্য করেন।

আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল শশাঙ্ক শেখর সরকার। রিট আবেদনের পক্ষে অ্যাডভোকেট ইউনুছ আলী আকন্দ নিজেই শুনানি করেন।

এ বিষয়ে ইউনুছ আলী বলেন, আবেদনের পক্ষে শুনানি শেষ করেছি। এরপর আদালত আদেশের জন্য মঙ্গলবার দিন রেখেছেন। তবে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম এ মামলায় শুনানি করতে পারেন। হয়তো মঙ্গলবার আদেশের আগে তিনি শুনানি করবেন।

গত ২৭ আগস্ট নতুন শিক্ষাবর্ষে এমবিবিএস/বিডিএস ভর্তি পরীক্ষায় আগের বছর এইচএসসি উত্তীর্ণদের প্রাপ্ত মোট নম্বর থেকে পাঁচ নম্বর কেটে মেধাতালিকা তৈরির সিদ্ধান্ত বাতিল চেয়ে রিট করেন ইউনুছ আলী আকন্দ।

রিটের বিষয়ে তিনি বলেন, এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষার বিজ্ঞপ্তির ৬ নম্বর অনুচ্ছেদে দ্বিতীয়বার পরীক্ষার্থীদের থেকে পাঁচ নম্বর কাটা হবে, অন্যদের কাটা হবে না বলে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এটা সমতার লঙ্ঘন। এ সিদ্ধান্ত বৈষম্যমূলক বলে তিনি দাবি করেন।

রিটে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব, স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক ও পরিচালক, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি ও ডেন্টাল কাউন্সিলের চেয়ারম্যানকে বিবাদী করা হয়।

রিটে বলা হয়েছে, মেডিক্যালে ভর্তি পরীক্ষা যে ৫ নম্বর কাটার কথা বলা হয়েছে তা ২০১০ সালের মেডিক্যাল কাউন্সিল ৫ (৫) ধারা এবং জাতীয় শিক্ষা ২০১০ এরও লঙ্গন।

২১ আগস্টের পত্রিকায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের এক বিজ্ঞপ্তির ৬ নম্বর কলামে বলা হয়, ২০১৭-২০১৮ শিক্ষাবর্ষে এমবিবিএস/বিডিএস ভর্তি পরীক্ষায় পূববর্তী বছরের এইচএসসি উত্তীর্ণদের পরীক্ষার্থীদের সর্বমোট নম্বর থেকে ৫ নম্বর কর্তন করে মেধা তালিকা তৈরি করা হবে।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫