১ ঘন্টায় রোপণ হলো সাড়ে ৭ লাখ গাছের চারা

বিপুল আশরাফ, চুয়াডাঙ্গা

১ ঘন্টায় সাড়ে ৭ লাখ গাছের চারা রোপণ করিয়ে অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসক। “সবুজ চুয়াডাঙ্গা, সমৃদ্ধ বাংলাদেশ” শ্লোগানকে সামনে রেখে পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষা এবং মানুষকে আর্থিকভাবে লাভবান করতেই এই বৃক্ষ রোপণ। শনিবার দুপুর ১২টা থেকে ১টা পর্যন্ত জেলাব্যাপী একযোগে বৃক্ষ রোপণ অভিযান পরিচালিত হয়। উৎসব মুখর পরিবেশে বৃক্ষরোপণ করতে পেরে দারুণ খুশি এ জনপদের মানুষ।

বৃক্ষরোপণ অভিযানে জেলার সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, জেলা পরিষদ, ৪টি উপজেলা পরিষদ, ৪টি পৌরসভা, ৪০টি ইউনিয়ন পরিষদ, কৃষি বিভাগ, বনবিভাগ, স্বাস্থ্য বিভাগসহ বিভিন্ন সরকারি বে-সরকারি প্রতিষ্ঠান অংশ নেয়। ইতোপূর্বে ৫ লাখ ২৫ হাজার বনজ, ফলদ,ঔষধি গাছের চারা এবং ২ লাখ ২৫ হাজার তাল বীজ বিতরণ ও রোপণ করে জেলা পরিষদ। এই সকল গাছের চারা চুয়াডাঙ্গা, মেহেরপুর, ঝিনাইদহ, কুষ্টিয়া, মাগুরা জেলা থেকে সংগ্রহ করা হয়।

চুয়াডাঙ্গা বনবিভাগের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সামসুল হক বলেন, বর্ষা মৌসুমে দেশব্যাপী বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি থাকায় চারা গাছের সংকট থাকে।  এ সময় এই বিপুল পরিমাণ বৃক্ষ একক কোনো জেলার পক্ষে সংগ্রহ করা সম্ভব না। যার কারণে বিভিন্ন জেলা থেকে সংগ্রহ করতে হয়েছে।

চুয়াডাঙ্গা পুলিশ সুপার নিজাম উদ্দীন বলেন, দেশের সীমান্তবর্তী এ জেলায় তুলনামূলকভাবে বৃক্ষ কম থাকায় শীতের সময় অধিক শীত এবং গ্রীষ্মের সময় অধিক গরম অনুভূত হয়।

জেলা প্রশাসক জিয়াউদ্দীন আহমেদ বলেন, চুয়াডাঙ্গা জেলা বজ্রপাত প্রবণ এলাকা। বজ্রপাতে দেশের মধ্যে সুনামগঞ্জের অবস্থান শীর্ষে থাকলেও চুয়াডাঙ্গার অবস্থান দ্বিতীয়। এর থেকে রক্ষা পেতে হলে তাল গাছের পাশাপাশি অধিক বৃক্ষরোপণ জরুরি। আজকের এই বৃক্ষরোপণের সুফল আগামী দিনগুলোতে পাবে মানুষ। একটি জেলায় ১ ঘন্টায় সাড়ে ৭লাখ বৃক্ষরোপণ, আমার বিশ্বাস এটি গিনেজ বুকে স্থান পাবে।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.