ঢাকা, বৃহস্পতিবার,২১ সেপ্টেম্বর ২০১৭

প্রশাসন

২৪ ঘণ্টায় কোরবানির পশুর বর্জ্য অপসারণ : সাঈদ খোকন

নিজস্ব প্রতিবেদক

২৯ আগস্ট ২০১৭,মঙ্গলবার, ১৮:১১


প্রিন্ট

ঈদের দিন দুপুর ২টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে রাজধানীর কোরবানির পশু বর্জ্য অপসারণ করা হবে বলে জানিয়েছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন।
মঙ্গলবার নগর ভবনে ঢাকা দক্ষিণ ও উত্তর সিটি করপোরেশনের উদ্যোগে আয়োজিত যৌথ সংবাদ সম্মেলনে ডিএসসিসির মেয়র এ কথা বলেন। সাঈদ খোকন জানান, উত্তরের মেয়র আনিসুল হক অসুস্থ থাকায় এ বছর দুই সিটির কোরবানির বর্জ্য ব্যবস্থাপনার খবর যৌথভাবে জানানো হবে। তবে কাজ চলবে যার যার পরিকল্পনা ও জনবল দিয়ে। সংবাদ সম্মেলনে ডিএসসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা খান মো: বিলাল, উত্তর সিটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো: মেসবাহুল ইসলামসহ দুই সিটির বর্জ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
সাঈদ খোকন বলেন, বর্জ্য ব্যবস্থাপনার কাজ সুষ্ঠু ও দ্রুত সময়ে সম্পন্ন করতে উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের বর্জ্য ব্যবস্থাপনা সংশ্লিষ্ট সব কর্মকর্তা-কর্মচারীর ছুটি বাতিল করা হয়েছে। আমরা আশা করছি নির্ধারিত সময়ের মধ্যেই কোরবানির পশুর বর্জ্য অপসারণ করতে পারব।
মেয়র জানান, রাজধানীতে পশু কোরবানির জন্য ১ হাজার ১৭৪টি স্থান নির্ধারণ করে দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে দক্ষিণ সিটি করপোরেশনে ৬২৫টি এবং উত্তর সিটি করপোরেশনে ৫৪৯টি স্থানে পশু কোরবানি করা যাবে। নির্ধারিত স্থানে পশু কোরবানি করতে সবার প্রতি আহ্বান জানিয়ে মেয়র বলেন, আপনারা নির্ধারিত স্থানে পশু কোরবানি করুন, তাহলে আমাদের বর্জ্য অপসারণ করা সহজ হবে। এছাড়া বাড়ির ভেতরে কোরবানি করলেও নির্ধারিত ব্যাগে ময়লাগুলো বাইরে এনে রাখবেন। কোরবানির পশুর বর্জ্য অপসারণের জন্য দক্ষিণ সিটি করপোরেশন আড়াই লাখ চটের ব্যাগ এবং উত্তর সিটি করপোরেশন ৪ লাখ ৫৫ হাজার পলিব্যাগ সরবরাহ করবে বলেও জানান তিনি। এবার দুই সিটি করপোরেশন এলাকায় প্রায় ৪ লাখ ৭৫ হাজার পশু কোরবানি হতে পারে বলে জানান মেয়র সাঈদ খোকন। এ কারণে ঈদের তিন দিন অতিরিক্ত প্রায় ২৫ হাজার টন বর্জ্য উৎপন্ন হবে। এসব বর্জ্য অপসারণে মোট ১৭ হাজার পরিচ্ছন্নকর্মী কাজ করবে বলেও তিনি জানান।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫