ঢাকা, রবিবার,১৯ নভেম্বর ২০১৭

আমার ঢাকা

গ্রিন লাইনের ডাবল ডেকার বাস

২৯ আগস্ট ২০১৭,মঙ্গলবার, ০০:০০


প্রিন্ট

ঢাকা-চট্টগ্রাম রুটে প্রথমবারের মতো দূরপাল্লার ডাবল ডেকার বাস সার্ভিস চালু করল গ্রিন লাইন পরিবহন। প্রাথমিকভাবে এ রুটে ১০টি বাস চলাচল করবে। গত শনিবার সন্ধ্যায় রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে গ্রিন লাইনের ডাবল ডেকার বাস সার্ভিসের উদ্বোধন করেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। গ্রিন লাইন পরিবহনের স্বত্বাধিকারী হাজী মোহাম্মদ আলাউদ্দিন বলেন, দেশের বিভিন্ন রুটে গ্রিন লাইন পরিবহন যাত্রীদের উন্নত সেবা দিয়ে আসছে। এরই অংশ হিসেবে ঢাকা-চট্টগ্রাম রুটে আমরা শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত ডাবল ডেকার বাস চালু করতে যাচ্ছি। আশা করছি, উন্নত সেবা প্রদানের মধ্য দিয়ে আমাদের নতুন এ বাসগুলো যাত্রীদের আস্থা অর্জন করতে সক্ষম হবে।
গ্রিন লাইনের এ ডাবল ডেকার বাসগুলো জার্মানির এমএন কোম্পানি থেকে সংগ্রহ করা হয়েছে। ডাবল ডেকার বাসগুলো অত্যাধুনিক সুবিধাসংবলিত। এ রুটে প্রতিটি বাস ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ১০০ কিলোমিটার গতিতে চলবে। বাসগুলো ১০ আগস্ট বাংলাদেশে এসেছে। এরপর জার্মানির আট প্রকৌশলী এসব বাসগুলো চালানোর বিভিন্ন কলাকৌশল শিখিয়ে দিচ্ছেন।
গ্রিন লাইন পরিবহনের জেনারেল ম্যানেজার আব্দুস সাত্তার জানান, ৪০ আসনের এসব বাসে ‘বিজনেস ক্লাস’ সেবা থাকবে। প্রতি আসনের ভাড়া হবে এক হাজার ৩০০ টাকা। এক পাশে দু’টি, আরেক পাশে একটি করে আসন বিন্যাস করা আছে। পাঁচ রঙের ১০টি বাসের মধ্যে দু’টি আকাশি নীল, দু’টি লাল, দু’টি সাদা, দু’টি কমলা ও দু’টি গাঢ় নীল রঙের। ৪৬০ হর্সপাওয়ারের আট চাকার ‘মাল্টি এক্সেল’ বাসগুলোর নিচ তলায় থাকছে আটটি আসন। বাকি ৩২টি আসন থাকছে উপরের তলায়। সুইডেন, মালয়েশিয়া, সিঙ্গাপুরে ও ব্যাংককে এ রকম বাস সচরাচর দেখা যায়। সম্প্রতি মিয়ানমারে চলা শুরু হয়েছে। বাংলাদেশে ডাবল ডেকারের এটাই প্রথম।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫