ঢাকা, শনিবার,১৮ নভেম্বর ২০১৭

অনলাইন জগৎ

অনলাইনে জমজমাট কোরবানির হাট

আহমেদ ইফতেখার

২৫ আগস্ট ২০১৭,শুক্রবার, ২০:২০


প্রিন্ট
অনলাইনে জমজমাট কোরবানির হাট

অনলাইনে জমজমাট কোরবানির হাট

রাজধানীতে কোরবানির হাটগুলোতে এখনো পুরোদমে পশু কেনাবেচা শুরু না হলেও ইতোমধ্যে জমে উঠেছে অনলাইন কোরবানির হাট। যারা হাটে গিয়ে দরদাম করে কোরবানির পশু কেনার ঝক্কিঝামেলা পোহাতে চান না, তারা অনলাইনে কেনেন। প্রবাসীরা অনলাইনে পশু কিনতে পারছেন বিদেশে বসেই। রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বাইরে থেকেও ক্রেতারা এখন ভিড় করছেন অনলাইন কোরবানির হাটে। ক্লাসিফায়েড অনলাইন ও ই-কমার্স সাইটগুলোর পাশাপাশি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকেও বিভিন্ন গ্রুপ এবং পেজ খুলে চলছে কোরবানির পশু বিক্রি। এতে এক দিকে হাটের ঝক্কিঝামেলা থেকে ক্রেতারা মুক্ত থাকছেন, অন্য দিকে গরু-ছাগলের খামারিরাও প্রকৃত মূল্য পাচ্ছেন। লিখেছেন আহমেদ ইফতেখার

অনলাইনে কোরবানির পশু বিক্রির সাথে জড়িতরা জানিয়েছেন, প্রতি বছরই অনলাইনে কোরবানির পশু বিক্রির সংখ্যা বাড়ছে। গত কয়েক বছরের তুলনায় এবার অনলাইনে কোরবানির পশু কেনার ক্রেতাদের সাড়া বেশি পাওয়া যাচ্ছে। ঈদ যতই এগিয়ে আসবে অনলাইন কোরবানির পশুর হাট ততই জমে উঠছে বলে তারা জানিয়েছেন। কয়েক বছর ধরে অনলাইনে কোরবানির পশু বিক্রি করছে সাদেক এগ্রো, আমারদেশ ই-শপ, বিক্রয় ডটকম, বেঙ্গল মিট, ক্লিকবিডি ডটকম, কেইমু ডটকম, বগডুম ডটকমসহ আরো কয়েকটি ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান। এ ছাড়া পেশাদার অনলাইন ই-কমার্স সাইটের পাশাপাশি ঈদকে কেন্দ্র করে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে গড়ে উঠেছে বেশ কয়েকটি কোরবানির হাট। এসব সাইটে কোরবানির পশুর পাশাপাশি কোরবানি পশু জবাইয়ের বিভিন্ন সরঞ্জামাদিও বিক্রি করা হচ্ছে।

এসব সাইট ঘুরে দেখা গেছে, বিভিন্ন জাতের গরু ও ছাগল রয়েছে। তবে দেশী গরুর প্রাধান্যই বেশি। গরুর দাম ৬৫ হাজার থেকে শুরু করে কয়েক লাখ টাকা পর্যন্ত। এ ছাড়া ছাগলের দাম ১৫ হাজার টাকা থেকে শুরু হয়েছে। ঈদের কত দিন আগে বাসায় গরু নিতে চান, তা নির্ধারণ করার সুযোগও আছে। রাজধানী ঢাকার পাশাপাশি সিলেট ও চট্টগ্রামেও পৌঁছে যাচ্ছে পছন্দের গরু-ছাগল।

অনলাইনে পশু ক্রেতা এবং বিক্রেতাদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, কিছুটা প্রতারিত হওয়ার আশঙ্কা থাকলেও বিভিন্ন কারণে তারা অনলাইনে পশু কেনার প্রতি ঝুঁকছেন। তবে বিক্রেতারা বলেছেন, ত্রুটি-বিচ্যুতি থাকলেও ক্রেতাদের সন্তুষ্টিই সবচেয়ে বড় কথা। সে বিষয়টি মাথায় রেখেই তারা আগের চেয়ে অনেক বেশি সতর্ক। এজন্য তারা সাইটে পশুর ছবির পাশাপাশি পুুরো বিবরণ তুলে ধরেন। এতে পশুর জাত, উচ্চতা, ওজন, রঙ, দাম, কোন এলাকা থেকে আনা হয়েছে তা তুলে ধরা হয়। এরপরও গ্রাহকদের আশঙ্কা দূর করতে বিভিন্ন সাইটে সতর্কতা জারি করা হয়েছে। এ ছাড়া কোনো কোনো সাইটে অনলাইনে গরু অর্ডার দেয়ার পর সরাসরি খামারে এসে তা দেখার সুযোগ রয়েছে বলেও জানিয়েছে।

আমারদেশ ই-শপ
দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে গৃহস্থ ও খামারিদের গরু নিয়ে অনলাইনে হাট জমিয়ে তুলেছে দেশের প্রথম অনলাইন কোরবানির পশুর হাট-আমারদেশ ই-শপ-এ। সাইটটি ঘুরে দেখা গেছে, এখানে কিশোরগঞ্জের গরুর প্রাধান্য বেশি। আছে অল্প বিস্তর ছাগল। ছাগলের মূল্য ১৪ হাজার থেকে শুরু হয়েছে। গরুর মূল্য ৬৩ হাজার থেকে লক্ষাধিক টাকা পর্যন্ত। বন্যার কারণে এখনো গরুর সরবরাহ কম এবং খামারিদের পাশে দাঁড়াতেই এখন এই কমার্স সাইটটি ব্যস্ত, বলে জানালেন আমারদেশের আমার গ্রাম প্রধান নির্বাহী আতাউর রহমান। পুরো অনলাইন কোরবানির পশুর হাট চালু হতে আরো একটু অপেক্ষা করতে হবে। এখনো উত্তরাঞ্চলের অনেক এলাকায় পানি থাকায় আমরা স্থানীয় উদ্যোক্তাদের মাধ্যমে তাদের সহায়তা করার চেষ্টা করছি। অল্প দিনের মধ্যেই আশা করি ওই সব এলাকার গরুও এ হাটে তোলা হবে। আগামী ২৮ আগস্ট পর্যন্ত এই অনলাইনে কোরবানির পশু বিক্রি হবে। আর বিক্রীত পশু ৩০ আগস্টের মধ্যে ক্রেতার বাড়িতে পৌঁছে দেয়া হবে।

বেঙ্গল মিট
গত দুই বছরের মতো এ বছরও অনলাইনে কোরবানির পশুর হাটের তালিকায় সক্রিয় বেঙ্গল মিট। কোরবানির পশু জবাই থেকে প্রক্রিয়াজাতকরণেরও ব্যবস্থা করছে এ প্রতিষ্ঠান। তাই গরুর অর্ডার করে দিলে বাড়িতে গরু না এনেই দেয়া যাবে কোরবানি। এ ক্ষেত্রে হালাল ও নিরাপদ কোরবানির প্রতিশ্রুতি দেয়া যাবে। পশু কিনে বাড়িতে এনে দুই-একদিন রেখে ঈদের দিন জবাই করে চামড়া ছাড়িয়ে গোশত পাওয়ার জন্য আর চিন্তা করতে হবে না বলে জানিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। এর ফলে এক দিকে যেমন হাটে গিয়ে গরু কিনতে হবে না, তেমনি কসাইয়ের কাছেও যেতে হবে না ক্রেতাদের। শুধু অনলাইনে বুকিং দিয়ে অগ্রিম অর্থ পরিশোধ করলেই তার নামে পশু কোরবানি করে নির্দিষ্ট সময়ে কোরবানির গোশত পৌঁছে দেয়া হবে বাড়িতে।

এ বিষয়ে বেঙ্গল মিটের সহকারী মহাব্যবস্থাপক সৈয়দ হাসান হাবিব বলেন, এবারের হাটের প্রধান আকর্ষণ হলো বেঙ্গল মিটের নিজস্ব ফিডলটে কমপক্ষে তিন মাস থেকে এক বছর পেশাদার ভেটেরিনারি ও পশুপালকের পর্যবেক্ষণে সম্পূর্ণ স্বাস্থ্যকর খাবার ও প্রাকৃতিক উপায়ে পালিত কোরবানির পশু। এর মাধ্যমে ক্রেতারা সম্পূর্ণ স্টেরয়েডমুক্ত, রোগমুক্ত, স্বাস্থ্যবান গরু পাচ্ছেন ঘরে বসেই। নির্দিষ্ট ডেলিভারি চার্জের বিনিময়ে ক্রেতার বাসাতেই পৌঁছে দেয়া হবে অর্ডার করা পশু। ডেলিভারি ঈদের পাঁচ দিন আগে থেকে শুরু হয়ে চলবে ঈদ শুরুর দুই দিন আগ পর্যন্ত। গরু সরবরাহের সেবা মিলবে কেবল ঢাকা, সিলেট, চট্টগ্রাম শহরে। আর কোরবানির সব সেবা শুধু ঢাকা শহরে সরবরাহ করা হবে। পশু লভ্যতার ওপর ভিত্তি করে অনলাইন হাটটি আজ পর্যন্ত চলবে।

বিক্রয় ডটকম
দেশী-বিদেশী পশুর সমাহার নিয়ে কোরবানির হাট জমাতে পিছিয়ে নেই ক্লাসিফায়েড বিজ্ঞাপনের ওয়েব ঠিকানা বিক্রয় ডটকম। এখানে মিলছে ফ্রিজিয়ান গাভী, দেশী ষাঁড়, বকনা গরু। এবার তারা শুধু পশুর হাটই বসায়নি; হাট জমাতে দেশী ইলেকট্রনিক্স ব্র্যান্ড মিনিস্টার হাইটেক পার্ক লিমিটেডের সাথে জোট বেঁধে ক্রেতা আকর্ষণে মনোনিবেশ করেছে। গত ১৯ আগস্ট থেকে তারা যৌথভাবে ঘোষণা করেছে ‘বিরাট হাট’ (#BiratHaat) শীর্ষক অফার। এ ছাড়া গ্রাহকেরা বিক্রয়ের ‘বাই নাউ (Byu Now)’ ফিচারের মাধ্যমে উপভোগ করতে পারবেন তাদের পছন্দের ক্রয়কৃত কোরবানির পশুর ফ্রি হোম ডেলিভারি সুবিধাসহ বেশ কিছু উপহার। গ্রাহকেরা চাইলে পশু ক্রয়ের আগে তাদের প্রত্যাশিত পশুকে যেখানে রাখা হচ্ছে সেই খামারটি সরাসরি পরিদর্শন করতে পারবেন বলে জানালেন বিক্রয়ের মার্কেটিং ডিরেক্টর ইয়াসের নূর।

রাজশাহীর খামারি মাসুদ মোল্লা তার কালো রঙের গরুটি বিক্রির বিজ্ঞাপন দিয়েছেন বিক্রয় ডটকমে। তিন মণ ওজনের গরুটির দাম হেঁকেছেন ৫৭ হাজার টাকা। মোবাইল ফোনে কথা হয় তার সাথে। মাসুদ জানান, খামারের ১৭টি গরু বিক্রির জন্য ছবি বিক্রয় ডটকমে পোস্ট করেছি। সেখান থেকে ছয়টি গরু ইতোমধ্যে বিক্রি হয়েছে। খামার থেকেও সরাসরি কয়েকটি বিক্রি হয়েছে।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫