ঢাকা, সোমবার,২০ নভেম্বর ২০১৭

থেরাপি

ঈদের টিকিট হাতে পাওয়ার সহজ উপায়

মাহবুবুর রশিদ

২৪ আগস্ট ২০১৭,বৃহস্পতিবার, ০০:০০


প্রিন্ট

ঈদের ছুটিতে বাড়ি যাওয়ার জন্য টিকিট হাতে পাওয়া মানে সোনার হরিণ পাওয়া। দীর্ঘ লাইনে দাঁড়ানোর পরও অনেকে এই সোনার হরিণ না পেয়ে খালি হাতে বাসায় ফেরেন। তবে সহজ পদ্ধতিতে লাইনে না দাঁড়িয়ে টিকিট পাওয়ার সহজ কিছু উপায় বাতলে দিচ্ছে থেরাপি...
গুজব ছড়ানো
ঈদে বাড়ি ফিরবেন, কাউন্টারের দীর্ঘ লাইনে না দাঁড়িয়ে আপনাকে সহজ পদ্ধতিতে টিকিট পেতে হলে কাউন্টারের আশপাশে জঙ্গি হামলার আশঙ্কা রয়েছে বলে গুজব ছড়িয়ে দিন। দেখবেন হামলার ভয়ে সবাই টিকিট না নিয়ে লাইন ছেড়ে পালাচ্ছে। আর এই সুযোগে সহজ পদ্ধতিতে আপনিও পেয়ে যাবেন টিকিট নামক সোনার হরিণ।
সাপ আতঙ্ক
টিকিটের জন্য কাউন্টারের সামনে দীর্ঘ লাইন। আপনি লাইনের একেবারে পেছনে। হয়তো আপনার ভাগ্যে টিকিট নাও মিলতে পারে। তাই টিকিট তাড়াতাড়ি পাওয়ার জন্য লাইনে দাঁড়িয়ে হঠাৎ সাপ... সাপ... বলে চিৎকার করে উঠুন। দেখবেন সাপ আতঙ্কে সবাই লাইন ছেড়ে দিগি¦দিক দৌড়াচ্ছে। ব্যস... আপনি অনায়াসেই লাইনে না দাঁড়িয়ে পেয়ে যাবেন টিকিট।
মন্ত্রীর আত্মীয় পরিচয়ে
টিকিট তাড়াতাড়ি হাতে পাওয়ার জন্য কাউন্টারে গিয়ে নিজেকে কোনো মন্ত্রীর খালাতো ভাইয়ের তালতো বোনের আত্মীয় পরিচয় দিন। মন্ত্রীর সম্মানার্থে তাড়াতাড়ি টিকিট পেতেও পারেন। তবে শিউর করে আমরা বলতে পারছি না।
গোয়েন্দা অফিসার
লাইনে দাঁড়ানো মাত্রই টিকিট হাতে পাওয়ার জন্য আপনি গলায় দু-চারটি কার্ড ঝুলিয়ে বনে যান গোয়েন্দা অফিসার। টিকিটের জন্য লাইনে না দাঁড়িয়ে আপনি সোজা চলে যাবেন কাউন্টারে। সেখানে গিয়ে ধমকের সূরে বলবেন, ‘দেখি দেখি এখানে নাকি কালোবাজারে টিকিট বিক্রি হচ্ছে। কালোবাজারে টিকিট বিক্রির কথা শুনে কাউন্টারের কর্মকর্তাদের চোখ ছানাবড়া। তারা আপনাকে অগ্রিম টিকিট দিয়ে কোনোমতে আপদ বিদায় করবে।

বি:দ্র: এইসব টাউটামি করতে গিয়ে ধরা খেলে তার জন্য থেরাপি কোনোভাবেই দায়ী থাকবে না।

 

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫