ঢাকা, সোমবার,১১ ডিসেম্বর ২০১৭

প্রশাসন

জলবায়ু প্রকল্প নিয়ে টিআইবি : প্রভাব খাটিয়ে পাস করা হয় প্রকল্প

অর্থনৈতিক প্রতিবেদক

২৩ আগস্ট ২০১৭,বুধবার, ১৫:৫৪


প্রিন্ট
ড. ইফতেখারুজ্জামান

ড. ইফতেখারুজ্জামান

বিচার-বিশ্লেষণ না করে পানি উন্নয়ন বোর্ড কর্তৃক পরিচালিত জলবায়ু প্রকল্পসমূহ নির্বাচনে রাজনৈতিক প্রভাব খাটিয়ে অনুমোদন করা হয়েছে। বাস্তবায়ন-প্রক্রিয়ায় শুদ্ধাচার, অনিয়ম ও সুশাসনের ঘাটতি লক্ষ করা যায়। যা পাউবির ব্যর্থতা বলে ট্রান্সপারেসি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি) মনে করছে। টিআইবি বলছে, তথ্যের উন্মুক্ততার ব্যাপারে আইনি বাধ্যবাধকতা থাকলেও তার যথাযথ প্রয়োগের ক্ষেত্রে ব্যত্যয় পরিলক্ষিত হয়েছে। প্রকল্পসমূহের গুণগত মানও নিশ্চিত করা সম্ভব হয়নি। তবে প্রকল্পের ক্ষেত্রে বিস্তারিত আর্থিক অনিয়ম ও রাষ্ট্রের ক্ষতির বিষয়টি টিআইবির গবেষনায় অনুপস্থিত ছিল।

ট্রান্সপারেসি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি) আয়োজিত 'জলবায়ু অর্থায়ন ও প্রকল্প বাস্তবায়নে সুশাসন: প্রেক্ষিত পানি উন্নয়ন বোর্ড' নিয়ে এক প্রতিবেদনে আজ বুধবার এই তথ্য প্রকাশ করা হয়েছে। সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে টিআইবি এই প্রতিবেদনটি তুলে ধরা হয়। অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান। প্রতিবেদনটি তুলে ধরেন ক্লাইমেট ফাইন্যাস গর্ভনেন্স (সিএফজি) ইউনিটের প্রোগ্রাম ম্যানেজার গোলাম মহিউদ্দিন। উক্ত গবেষণায় আরো সংযুক্ত ছিলেন প্রোগ্রাম ম্যানেজার মহুয়া রউফ এবং এ্যাসিসটেন্ট প্রোগ্রাম ম্যানেজার রাজু আহমেদ মাসুম। উল্লেখ্য, জলবায়ু পরিবর্তনজনিত ঝুঁকি মোকাবেলায় পানি উন্নয়ন বোর্ড কর্তৃক জলবায়ু তহবিল ব্যবহারে সুশাসনের চ্যালেঞ্জ চিহ্নিত করাই এই গবেষণার উদ্দেশ্য। গবেষণাটি মার্চ ২০১৫ থেকে জুলাই ২০১৭ সময়কালে পরিচালিত হয়েছে। পাউবি ২০০৯-১০ থেকে এখন পর্যন্ত ১৪১টি জলবায়ু প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে। যার আর্থিক ব্যয় এক হাজার ১৩২ কোটি টাকা।

গবেষণা প্রতিবেদনে টিআইবি বলছে, সরকারি ক্রয় কার্যক্রমের ক্ষেত্রে প্রচলিত ই-টেন্ডারিং পদ্ধতিকে একটি আদর্শ ব্যবস্থা মনে করা হলেও এর মাধ্যমে শুধু দরপত্র জমা দেয়া যায়। দরপত্র মূল্যায়ন ও নির্বাচন পূর্বতন পদ্ধতিতে হওয়ায় স্বচ্ছতা ও শুদ্ধাচার নিশ্চিতে এই ব্যবস্থার কার্যকারিতা সীমিত। পাউবোর স্থানীয় অফিসের কর্মকর্তা ৬টি প্রকল্পেই পরিদর্শন করেছেন। তবে এই তদারকি সংক্রান্ত কোনো লিখিত প্রতিবেদন নেই। পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের পরিবীক্ষণ দল এবং পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের বাস্তবায়ন, পরিবীক্ষন এবং মূল্যায়ন বিভাগ কর্তৃক গবেষণাধীন কোনো প্রকল্পেই পরিবীক্ষণ করা হয়নি। বিসিসিটিএফ কর্তৃক ৬টি প্রকল্পের শুরুতে ও শেষাংশে কার্যক্রম পরিদর্শনে গিয়েছে। তবে সমাপ্তির পর মূল্যায়ন হয়নি। কম্পট্রোলার ও অডিটর জেনারেলের কার্যালয়ের নিরীক্ষা দল কর্তৃক গবেষণাধীন কোনো প্রকল্পেই নিরীক্ষা করা হয়নি। গবেষণায় কার্যকর অভিযোগ নিরসন ব্যবস্থাপনার অনুপস্থিতিও চিহ্নিত করা হয়।

টিআইবি’র নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, পানি উন্নয়ন বোর্ড কর্তৃক পরিচালিত জলবায়ু প্রকল্পসমূহ বাস্তবায়ন প্রক্রিয়ায় শুদ্ধাচার, অনিয়ম ও সুশাসনের ঘাটতি লক্ষ্য করা যায়। তথ্যের উন্মুক্ততার ব্যাপারে আইনী বাধ্যবাধকতা থাকলেও তার যথাযথ প্রয়োগের ক্ষেত্রে ব্যত্যয় পরিলক্ষিত হয়েছে। প্রকল্পসমূহের গুণগত মানও নিশ্চিত করা সম্ভব হয়নি। তিনি বলেন, কার্যাদেশ প্রক্রিয়ায় বিভিন্ন ধরনের যোগসাজস রয়েছে।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫