ঢাকা, শনিবার,২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭

বিবিধ

এবার হ্যাকারদের টার্গেট বড় বড় জাহাজ কোম্পানি

নয়া দিগন্ত অনলাইন

২০ আগস্ট ২০১৭,রবিবার, ১০:৪০ | আপডেট: ২০ আগস্ট ২০১৭,রবিবার, ১০:৫৪


প্রিন্ট
 একটা শিপিং কোম্পানির কম্পিউটার সিস্টেম হ্যাক করতে পারলে পাওয়া যাবে অনেক স্পর্শকাতর তথ্য

একটা শিপিং কোম্পানির কম্পিউটার সিস্টেম হ্যাক করতে পারলে পাওয়া যাবে অনেক স্পর্শকাতর তথ্য

সাইবারকীল নামের একটি সাইবার সিকিউরিটি ফার্ম একটি মাঝারি সাইজের শিপিং কোম্পানির ই-মেইল চালাচালি তদন্ত করে দেখছিল। তদন্তে তারা একটি বিরাট জালিয়াতি উদঘাটন করেছে।

কেউ একজন এই কোম্পানির কম্পিউটার সিস্টেমে একটা ভাইরাস ঢুকিয়ে দিয়েছে। ফলে কোম্পানির ফাইন্যান্স ডিপার্টমেন্টের যে কোনো ই-মেইল তারা মনিটর করতে পারে।

এই শিপিং কোম্পানি যাদের কাছ থেকে জ্বালানি কেনে, তারা যখন জ্বালানির বিল পরিশোধ করছে, সেই বিল যে একাউন্ট নাম্বারে যাওয়ার কথা, ভাইরাসটি সেটি পরিবর্তন করে অন্য একাউন্ট নম্বরে পাঠিয়ে দিচ্ছে।

এভাবে কয়েক মিলিয়ন ডলার হ্যাকাররা সরিয়ে নেয়ার পর বিষয়টি কোম্পানির নজরে আসে।

কেবল মাঝারি সাইজের শিপিং কোম্পানি নয়, বিশ্বের সবচেয়ে বড় শিপিং কোম্পানিগুলোর একটি, মায়েস্কও এখন এরকম হ্যাকিং নিয়ে উদ্বিগ্ন।

তারা বুঝতে পেরেছে, হ্যাকাররা চাইলে জাহাজ চলাচলের মতো ব্যাপারেও হ্যাকিং এর মাধ্যমে বিঘ্ন ঘটাতে পারে।

একটা জাহাজ কোম্পানির কম্পিউটার সিস্টেমে হ্যাক করতে পারলে বিস্তর স্পর্শকাতর তথ্য হাতিয়ে নেয়া সম্ভব। একটা ঘটনার কথা জানাজানি হয়েছে ইতোমধ্যে।

জলদস্যুরা একটা বিরাট বড় শিপিং কোম্পানির নেটওয়ার্ক হ্যাক করে জানার চেষ্টা করছিল যে জাহাজে তারা ডাকাতি করার পরিকল্পনা করছে সেটাতে কি মালামাল পরিবহন করা হচ্ছে।

একজন সাইবার সিকিউরিটি বিশেষজ্ঞ বলেন, জলদস্যুরা একটি জাহাজে উঠে বারকোড দেখেই তখন বুঝতে পারবে কোন কনটেইনারে কি মাল আছে। তখন তারা কেবল সেই মালামাল নিয়ে কেটে পড়বে।

কিন্তু কেবল মালামাল ভর্তি কনটেইনার নয়, পুরো জাহাজই এখন আসলে ঝুঁকিপূর্ণ। কারণ জাহাজ চলে এখন পুরোপুরি কম্পিউটার ব্যবস্থার ওপর নির্ভর করে।

একটি জাহাজের কম্পিউটার ব্যবস্থা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার পর সেটিকে আর চালানো যাচ্ছিল না।

ইলেকট্রনিক চার্ট ডিসপ্লের মতো স্পর্শকাতর নেভিগেশন সিস্টেম করাপ্ট হয়ে পড়েছিল।

এমন আশংকা বাড়ছে যে হ্যাকাররা কম্পিউটার সিস্টেমে ভাইরাস ঢুকিয়ে দিয়ে পুরো জাহাজের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নিতে পারে।

এমনকি হ্যাকাররা নেভিগেশন সিস্টেমের নিয়ন্ত্রণ দখল করে একটি জাহাজ যেখানে আছে, সেখান থেকে অনেক দূরবর্তী কোন স্থানে এটি অবস্থান করছে বলে দেখাতে পারে।

বিশ্বে প্রায় ৫১ হাজার বাণিজ্যিক জাহাজ আছে, যেগুলো বিশ্ব বাণিজ্যের ৯০ শতাংশ পরিবহন করে। কাজেই হ্যাকাররা যে এই জাহাজ চলাচল খাতকে টার্গেট করেছে তাতে অবাক হওয়ার কিছু নেই।

ইনস্টাগ্রাম হ্যাক করল ১০ বছরের শিশু

সামাজিক মাধ্যমে ছবি শেয়ার করার সাইট ইনস্টাগ্রাম ফিনল্যান্ডের এক ১০ বছর বয়সী ছেলেকে দশ হাজার ডলার অর্থ পুরস্কার দিয়েছে।

'ইয়ানি' নামে ফিনল্যান্ডের এ শিশুটি ইনস্টাগ্রামের একটি নিরাপত্তা দুর্বলতা খুঁজে পাওয়ার পর ইনস্টাগ্রামের মালিক ফেসবুক তাকে এই পুরস্কার দিয়েছে।

১০ বছরের ইয়ানির নিয়ম অনুযায়ী এই সাইটে যোগ দিতে এখনও তিন বছর দেরি আছে।

কিন্তু ইনস্টাগ্রামে এমন এক দুর্বলতা সে খুঁজে বের করেছিল যাতে সিস্টেম হ্যাক করে বা তাতে ঢুকে পড়ে অন্য সাইট ব্যবহারকারীদের মন্তব্য সে মুছে ফেলতে পারছিল।

ফেসবুক কর্তৃপক্ষ বলছে এই সমস্যা তাদের নজরে আনার কিছুক্ষণের মধ্যেই তারা দ্রুত তা সমাধান করে ফেলেছে।

কিন্তু সমস্যাটা ধরতে পারার জন্য ক্ষুদে ইয়ানিকে তারা প্রায় সাথে সাথেই পুরস্কৃত করেছে।

ইয়ানি ই-মেইল করে তাদের এই সমস্যার কথা জানায়।

এধরনের সমস্যা বা 'বাগ' চিহ্ণিত করে যারা এ যাবৎ পুরস্কৃত হয়েছে তাদের মধ্যে সর্বকনিষ্ঠ ইয়ানি।

ইয়ানি যে সমস্যা চিহ্নিত করেছিল তা যে আসলেই একটা সমস্যা তা প্রমাণ করার জন্য ইনস্টাগ্রামের নিরাপত্তা প্রকৌশলীরা একটি পরীক্ষামূলক অ্যকাউন্ট খোলে পরীক্ষার জন্য।

হেলসিঙ্কির এই ক্ষুদে প্রযুক্তিবিদ ইয়ানি স্থানীয় এক পত্রিকাকে জানিয়েছে এই পুরস্কারের অর্থ দিয়ে সে নতুন সাইকেল, ফুটবলের কিছু সরঞ্জাম আর ভাইদের জন্য কম্প্যুটার কিনবে।

ফেসবুক কর্তৃপক্ষ বিবিসিকে জানিয়েছে, এধরনের সমস্যা খুঁজে বের করার জন্য তারা এ পর্যন্ত বিভিন্ন ব্যক্তিকে ৪৩ লাখডলার অর্থমূল্যের পুরস্কার দিয়েছে।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫