ঢাকা, বৃহস্পতিবার,২৩ নভেম্বর ২০১৭

অর্থনীতি

স্ট্র্যাটেজিক পার্টনারের খোঁজে সিএসই

অর্থনৈতিক প্রতিবেদক

১৭ আগস্ট ২০১৭,বৃহস্পতিবার, ১৯:৫৮


প্রিন্ট

স্ট্র্যাটেজিক পার্টনার (কৌশলগত অংশীদার) নেয়ার জন্য কাজ শুরু করেছে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ (সিএসই)। এ বছরের ডিসেম্বরের মধ্যে এ প্রক্রিয়া শেষ হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

আজ বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের সাথে সিএসই’র পর্ষদের বৈঠকের পর সংস্থাটির চেয়ারম্যান ড. একে আব্দুল মোমেন সাংবাদিকদের একথা বলেন।

বৈঠকে আরো উপস্থিত ছিলেন সিএসই ব্যবস্থাপনা পরিচালক এম সাইফুর রহমান মজুমদার, স্বতন্ত্র পরিচালক ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক মমতাজ উদ্দিন আহমেদ, শেয়ারহোল্ডার পরিচালক (অবসরপ্রাপ্ত) মেজর এমদাদুল ইসলাম প্রমুখ।

সিএসই চেয়ারম্যান বলেন, স্ট্র্যাটেজিক পার্টনার নিয়োগ দিতে চীন, দুবাই, হংকংসহ বেশ কয়েকটি দেশের প্রতিষ্ঠানের সাথে আলোচনা চলছে। ডিসেম্বরের মধ্যে এই পার্টনার নেয়া হবে।

সিএসই’র কিছু দুর্বলতা আছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমাদের কিছু দুর্বলতা আছে। স্ট্র্যাটেজিক পার্টনার নেয়া হলে এই দুর্বলতা কেটে যাবে বলে আশা করছি। একইসাথে বাজারেও গতি আসবে।

আব্দুল মোমেন বলেন, সৌজন্য সাক্ষাতে এসে আমরা আলাপ করলাম কিভাবে পুঁজিবাজারকে প্রাণবন্ত, গতিশীল করা যায়। চট্টগ্রাম স্টক একচেঞ্জ এখনো অনেক দুর্বল সেটা কিভাবে কাটানো যায় এগুলো নিয়ে অলোচনা হয়েছে। এর আগে আমরা বিএসইসি’র সাথে আলোচনা করেছি।

তিনি বলেন, অন্যান্য দেশে, বিশেষ করে যুক্তরাষ্ট্রে জিডিপি হচ্ছে ১৩ ট্রিলিয়ন ডলার আর স্টক মার্কেট হচ্ছে ৩৯ ট্রিলিয়ন ডলার, তিনগুনের বেশি। আর আমাদের পুরো পুজিবাজার জিডিপির (মোট দেশজ উৎপাদন) ২০ শতাংশ মধ্যে। দেশে অনেক বড় বড় প্রকল্প হচ্ছে। আমরা এগুলো ঋণের মাধ্যমে করি অথবা ব্যাংক থেকে নেই। এসব প্রকল্পে পুঁজিবাজার থেকে নেয়ার সুযোগ আছে।

পরিচালক (অবসরপ্রাপ্ত) মেজর এমদাদুল ইসলাম বলেন, স্ট্র্যাটেজিক পার্টনার নেয়ার জন্য ডিসেম্বর পর্যন্ত সময় আছে। আমরা চেষ্টা করে যাচ্ছি- ভালো অফার পাচ্ছি। আমাদের ইকোনমি গ্রোথ ৭ শতাংশ এবং পুঁজিবাজারের গ্রোথ এই দু’টির সাথে সমন্বয় হলেই আমরা সামনে যাব। আশা করি-ডিসেম্বরের মধ্যে স্ট্র্যাটেজিক পার্টনার নিতে পারব। এটা হলে বাজারে এক্সপোজার বেড়ে যাবে, সার্বিক বাজার ভালো হবে।

এক প্রশ্নের জবাবে ব্যবস্থাপনা পরিচালক এম সাইফুর রহমান মজুমদার বলেন, চট্টগ্রাম স্টক একচেঞ্জের পরিশোধিত মূলধন হচ্ছে ৮০ মিলিয়ন (আট কোটি টাকা)। সে হিসাব ২৫ শতাংশ হচ্ছে ২০ (২ কোটি টাকা) মিলিয়ন। তাই ফেইসভ্যালুতে আমরা ২০ মিলিয়ন পযন্ত স্ট্র্যাটেজিক পার্টনার দিতে পারব, তবে টোটাল ফিগারটা নির্ভর করবে স্টকের প্রাইজের ওপর।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫