ষোড়শ সংশোধনী রায়ের মধ্য দিয়ে ষড়যন্ত্রের নীলনকশা দেখছি : তাপস

নিজস্ব প্রতিবেদক

আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য এবং সরকার সমর্থক আইনজীবীদের সংগঠন বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদের সদস্য সচিব ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নুর তাপস এমপি বলেছেন, ষোড়শ সংশোধনীর এ রায়ের মধ্যদিয়ে ষড়যন্ত্রের নীলনকশার উপস্থিতি দেখছি। ষড়যন্ত্রের দানা বাধতে দেখছি। এ রায়ের মাধ্যমে বিচারিক নৈরাজ্য (জুডিশিয়াল এনার্কি) সৃষ্টির অপপ্রয়াস চলছে। যতক্ষণ এ অগণতান্ত্রিক, অপ্রাসঙ্গিক ও অসাংবিধানিক বক্তব্য প্রত্যাহার করা না হবে ততক্ষণ আন্দোলন চলবে। বিচারাঙ্গনকে কলুষিত করার অপচেষ্টা সহ্য করা হবে না।

আজ সুপ্রিম কোর্ট বার ভবনের সামনে বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদ আয়োজিত ষোড়শ সংশোধনী বাতিল করে দেয়া রায় অপ্রাসঙ্গিক ও অসাংবিধানিক উল্লেখ করে আয়োজিত মানবন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশে তিনি একথা বলেন।
সংগঠনের আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট ইউসুফ হোসেন হুমায়ুনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বার কাউন্সিলের ভাইস চেয়ারম্যান ও সংগঠনের যুগ্মআহ্বায়ক অ্যাডভোকেট আবদুল বাসেত মজুমদার, আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও সংগঠনের সদস্য সচিব ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নুর তাপস এমপি, অ্যাডভোকেট মাহবুব আলী এমপি, সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সহসভাপতি মো. ওয়াজিউল্লাহ, সমিতির সাবেক সম্পাদক অ্যাডভোকেট এসএম মুনীর ও মমতাজউদ্দিন আহমেদ মেহেদী, আজহার উল্লাহ ভুইয়া, সানজিদা খানম এমপি প্রমুখ বক্তৃতা করেন।

শেখ ফজলে নূর তাপস বলেন, জাতীয় শোক দিবসে আমাদের নেত্রীকে হত্যার ষড়যন্ত্র করেছিলো জঙ্গিরা। কিন্তু আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সেই পরিকল্পনাকে ব্যর্থ করে দিয়েছে।

তিনি বলেন, এ রায় আইনের শাসন ও সংবিধান বিরোধী হয়েছে। এ রায় কোনোভাবেই কার্যকর নয়। যখন ’৭২’র আদি সংবিধানের বিধান কার্যকর না হয়ে সামরিক শাসনামলের বিধান বৈধ বলে ঘোষণা করা হয় তখন ষড়যন্ত্রের নীল নকশা দেখতে পাই।

ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন বলেন, ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায়কে বিএনপির এক নেতা বলেছেন ঐতিহাসিক, আরেক নেতা বলেছেন রায়ের পর এখনই সরকারের পদত্যাগ করা উচিত। কিন্তু আমরা বলতে চাই সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির ব্যানারে এখানে কোনো রাজনীতি করতে দেয়া হবে না। যতক্ষণ পর্যন্ত স্বত:প্রণোদিত হয়ে রায়ের অপ্রাসঙ্গিক পর্যবেক্ষণ বাদ দেয়া না হবে ততক্ষণ পর্যন্ত এই কর্মসূচি চলবে।

বার কাউন্সিলের ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল বাসেত মজুমদার বলেন, ষোড়শ বাতিলের রায় প্রত্যাখ্যাত হয়েছে। আইনজীবীরা এই রায়কে সমর্থন করতে পারে না। আপনারা নিজেরাই (বিচারকরা) ওই রায় পুন:বির্বেচনা করে সত্যিকারের রায় দিন।

অ্যাডভোকেট মাহবুব আলী এমপি বলেন, বঙ্গবন্ধুকে কখনো খাটো বা অস্বীকার করা যাবে না। দ্রুত রিভিউ পিটিশন দাখিল করে অপ্রাসঙ্গিক বিষয় বাদ দেয়ার দাবি জানান তিনি।

 

সম্পাদকঃ আলমগীর মহিউদ্দিন,
প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ
১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

Copyright 2015. All rights reserved.