ঢাকা, রবিবার,১৯ নভেম্বর ২০১৭

ফ্যাশন

মেয়েদের ব্যাগের রকমফের

আলমগীর কবির

১৪ আগস্ট ২০১৭,সোমবার, ১৭:২১


প্রিন্ট
ব্যাগে লাক্সারি

ব্যাগে লাক্সারি

ফ্যাশনের অন্যতম অনুষঙ্গ ব্যাগ। বিশেষ করে নারীদের পোশাকের সাথে মানানসই ব্যাগ না হলে যেন সাজটাই অপূর্ণ থেকে যায়। ফ্যাশন এবং প্রয়োজন বিবেচনায় দিন দিনে ব্যাগের কদর বাড়ছে। কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় থেকে শুরু করে বিভিন্ন পার্টি কিংবা অনুষ্ঠানে মেয়েদের সব সময়ের সঙ্গী ব্যাগ। বছর কয়েক আগেও যা কেবল সাধারণ প্রয়োজন বলে বিবেচিত হতো এখন তা ফ্যাশনে পরিণত হয়েছে। এ কারণেই মেয়েদের পোশাকের সাথে মিলিয়ে প্রয়োজন ব্যাগ।

ভ্রমণ, আড্ডা ও ক্যাম্পাসে তরুণীরা কেমন ব্যাগ ব্যবহার করছেন সেটাও এখন দেখার বিষয়। সে দিকে লক্ষ রেখেই বাজারে আছে বিভিন্ন ধরনের ব্যাগের সমারোহ। সেখানে আছে বিভিন্ন ডিজাইন, কালার ও সাইজের ব্যাগ। আছে লেদার, রেক্সিন, কাপড় ও প্লাস্টিকের ব্যাগ। কালারফুল ব্যাগগুলো চাইলে ড্রেসের সাথে ম্যাচিং করেও নেয়া যায়। কালারফুল ব্যাগের মধ্যে আছে মেরুন, রেড, হোয়াইট, পিঙ্ক, স্কাই ব্লু, ব্ল্যাক, প্রভৃতি রঙের ব্যাগ। পোশাক আর প্রয়োজনের সাথে সামঞ্জস্য রেখে ব্যাগ বাছাই করাটাই দক্ষতা। সেই সাথে লক্ষ রাখতে হবে ব্যাগটা যেন হয় হাল-ফ্যাশনের।

খ্যাতনামা প্রতিষ্ঠান সেলিব্রেশন এক্সক্লুসিভ ব্যাগের জন্য সুপরিচিত। সেলিব্রেশনের পরিচালক ডা. লাভলী তাদের ব্যাগের কালেকশনের বিষয়ে জানান, ফর্মাল ও ক্যাজুয়াল সব ধরনের ব্যাগের কালেকশন রয়েছে তাদের। ক্যাজুয়ালের মধ্যে ক্যারিয়ার, পার্স, অফিস ব্যাগ, ব্যাগপ্যাকসহ সব ধরনের ব্যাগই রয়েছে।
প্রয়োজন মেটানোর সাথে সাথে দেখতে আকর্ষণীয় এমন ব্যাগই এখন সবার পছন্দ।

বিভিন্ন ধরনের ব্যাগ
বিভিন্ন ধরনের ব্যাগ রয়েছে বাজারে সকলের প্রয়োজন অনুসারে। এগুলো ডিজাইন ও কাজ অনুসারে ব্যবহার করা হয়।

টোটি ব্যাগ
বাজারে এখন টোটি ব্যাগের বেশি চাহিদা। আকৃতিতে একটু বড় এই ব্যাগের হাতাটা একটু ছোট হয়ে থাকে। আর সেই হাতলের ফাঁক গলিয়ে হাতে প্রবেশ করানোটাই এখন জনপ্রিয় ফ্যাশন। বিশ্বের অনেক দেশেই এই ব্যাগ খুব জনপ্রিয়। টোটি ব্যাগ সাধারণত কাপড় বা চামড়ার হয়ে থাকে। তবে এখন নানা সিনথেটিক সামগ্রী দিয়েও তৈরি হচ্ছে থাকে নানা ধরনের টোটি ব্যাগ। ট্র্যাডিশনাল কামিজের সাথে টোটি ব্যাগ সবচেয়ে মানানসই। তবে জিন্স, ফতুয়া, টিশার্ট এসবের সাথেও টোটি ব্যাগ চলে বেশ।

মেসেঞ্জার ব্যাগ
হালের আরো একটি জনপ্রিয় আর স্টাইলিশ ব্যাগ হলো মেসেঞ্জার ব্যাগ। কাঁধের এক পাশ দিয়ে ঝোলানো এ ব্যাগ এখন হিপহপ স্টাইলের সনদপ্রাপ্ত। আর তাই জনপ্রিয়তাও তুঙ্গে। কিন্তু চামড়ার তৈরি বেশ কিছু মেসেঞ্জার ব্যাগ পাওয়া যায় যেগুলো পুরোদস্তুর ফরমাল। আর তাই ফরমাল পোশাক-আশাকের সাথেও মানিয়ে যাবে মেসেঞ্জার ব্যাগ।

পার্স
পার্স যেন না হলেই মেয়েদের চলে না। কিন্তু এই পার্সের সংজ্ঞা কিন্তু একেক সময় একেক রকম। অর্থাৎ আকৃতিগত পার্থক্য খুব বেশি হওয়ায় অনেক সময় ছোট টোটি ব্যাগও কিন্তু পার্স গোত্রাধীন হয়ে থাকে। আবার ভাঁজ করে পকেটে রাখা যায় এমন ব্যাগও কিন্তু পার্স। পার্স হতে পারে পার্টি কিংবা ক্যাজুয়াল সব ধরনের। একটু বয়সী যারা তারা এ ধরনের ব্যাগ ব্যবহার করে থাকে বেশি। শাড়ি বা গর্জিয়াস কামিজের সাথে হাতে ম্যাচ করা ঝলমলে পার্স না থাকলেই নয়।

ন্যাপস্যাক
তরুণদের জন্য একটি স্টাইলিশ ব্যাগ হচ্ছে ন্যাপস্যাক। কাপড় বা চামড়া দুটো দিয়েই এই ব্যাগ তৈরি হতে পারে। এ ব্যাগের কোনো আলাদা লক সিস্টেম থাকে না। শুধু দড়ি দিয়ে মুখটা পেঁচানো থাকে। এখানে আলাদা কোনো পকেটও থাকে না। দামে কম হওয়ায় চাইলেই ড্রেসের সাথে মিল রেখে ইচ্ছামতো ন্যাপস্যাক কেনা যেতে পারে। আর ন্যাপস্যাক যেহেতু একটু রাফ এন টাফ স্টাইল- তাই জিন্সের সাথে ব্যবহার করলেই বেশি মানাবে। কাপড়ের ন্যাপস্যাক খুব কালারফুল পাওয়া যায়। পোশাকের সাথে মিল রেখে এসব ন্যাপস্যাক ব্যবহার করা যেতে পারে।

ব্যাকপ্যাক
স্কুল বা কলেজের ছেলেমেয়েদের কাঁধে বইভর্তি এই ব্যাকপ্যাকের দেখা পাওয়া যায়। সেই সাথে অনেকে বেড়াতে গেলেও এ ধরনের ব্যাগ ব্যবহার করে থাকেন। এ ধরনের ব্যাগের সবচেয়ে বড় সুবিধা হলো, এটি আঁটসাঁট হয়ে শরীরের সাথে ঝুলে থাকে। ইদানীং অনেক স্টাইলিশ ধরনের ব্যাকপ্যাক বাজারে এসেছে। পাশ্চাত্যের কায়দায় এসব ব্যাকপ্যাকে একসাথে প্রয়োজনীয় সব কিছু নেয়া সম্ভব।

ট্রাভেল ব্যাগ
ট্রাভেল ব্যাগ আজকাল এক অপরিহার্য অনুষঙ্গ। ভ্রমণে সবসময় একসাথে অনেক জিনিস নিতে হয় তাই ট্রাভেল ব্যাগ খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আপনার ভ্রমণের জন্য প্রয়োজনীয় ক্যামেরা, জামাকাপড়, জুতা, কসমেটিকসসহ আরো অন্যান্য প্রয়োজনীয় সব কিছু গুছিয়ে নেয়ার জন্যই একটি ভালো মানের ট্রাভেল ব্যাগ অবশ্যই দরকার।

কোথায় পাবেন
মৌচাক, নর্থ টাওয়ার, চাঁদনীচক, বেলী কমপ্লেক্স-উত্তরা, নিউমার্কেট, বসুন্ধরা শপিংমল, যমুনা ফিউচার পার্ক, পিংক সিটি শপিংমল প্রভৃতি জায়গা থেকেও কিনতে পারেন আপনার প্রয়োজন ও পছন্দের যেকোনো ধরনের ব্যাগ। অনলাইনেও একটু খুঁজে ফরমায়েশ দিতে পারেন ব্যাগের। শুধু ব্যাগ পাওয়া যাচ্ছে এমন ফেসবুক পেজও আছে বেশ কিছু। নকশা ও মান বিবেচনায় ব্যাগগুলোর দাম পড়বে, ১২০০ থেকে ৪ হাজার টাকার মধ্যে।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫