ঢাকা, শনিবার,২১ অক্টোবর ২০১৭

রাজশাহী

অবিরাম বর্ষণে নওগাঁয় আত্রাই নদীর পানি বৃদ্ধি : আতঙ্কে কৃষকরা

আব্দুর রশীদ তারেক, নওগাঁ

১৩ আগস্ট ২০১৭,রবিবার, ১৭:০১


প্রিন্ট

নওগাঁয় গত তিন দিনের অবিরাম বর্ষণে ও উজান থেকে নেমে আসা পানির তোড়ে আত্রাই নদীর পানি আশঙ্কাজনক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। নদীর পানি বাড়ার সাথে সাথে আত্রাই উপজেলার ৮ ইউনিয়নে আমনচাষী কৃষকদের মাঝে আতঙ্ক সৃষ্টি হয়েছে। কোনোভাবেই যেন বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ ভেঙ্গে ফসলহানি না হয় এ জন্য কড়া নজরদারি রাখছেন উপজেলা প্রসাশন। নওগাঁ পৌরসভায় অতি বর্ষণের কারণে জলাবদ্ধাতায় পৌরবাসী দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন।

এদিকে বর্ষা মৌসুমের শুরু থেকে আত্রাই নদীতে তেমন পানির চাপ না থাকায় ব্যাপক উৎসাহের সাথে প্রায় ৮ হাজার হেক্টর জমিতে আমন চাষ শুরু করে কৃষকরা। ইতোমধ্যেই উপজেলার মনিয়ারী, ভোঁপাড়া, বিশা, পাঁচুপুর ও শাহাগোলাসহ ৮ ইউনিয়নেই কৃষকরা আমন ধান রোপন প্রায় সম্পন্ন করেছে।

গত তিন দিনের অবিরাম বর্ষণে ও উজান থেকে নেমে আসা পানির তোড়ে হঠাৎ করে আত্রাই নদীর পানি আশঙ্কাজনক হারে বেড়ে গেছে। আজ রোববার এ সংবাদ লেখা পর্যন্ত আত্রাই নদীর পানি বিপদসীমা ছুঁই ছুঁই অবস্থা। উপজেলার বিভিন্ন স্থানে নাজুক পরিস্থিতি রয়েছে বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধের। এ জন্য কৃষকরাও রয়েছে চরম আতঙ্কে।

এদিকে নদীর পানি বৃদ্ধির সাথে সাথে উপজেলার উদনপৈ, জাতোপাড়া, মিরাপুর, ফুলবাড়ি, জাতআমরুল জিয়ানীপাড়াসহ প্রায় ২৫ টি গ্রামের লোকজন পানিবন্দী হয়ে পড়েছে।

উদনপৈ গ্রামের ইউপি সদস্য জিল্লুর রহমান বলেন, নদীর পানি বৃদ্ধির কারণে আমরা পানিবন্দী হয়ে পড়েছি। আমাদের সন্তানদের বিদ্যালয়ে যাতায়াত কষ্টকর হয়ে পড়েছে।

আরেক ইউপি সদস্য আব্দুল মজিদ মল্লিক বলেন, ২০১৫ সালে উপজেলার ফুলবাড়িতে বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ ভেঙ্গে গেলেও তা আজও সংস্কার করা হয়নি। এটি এখন এলাকাবাসীর জন্য মরণফাঁদ হয়েছে।

আত্রাই উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো: মোখলেছুর রহমান বলেন, আত্রাইয়ের বন্যা পরিস্থিতি আমরা নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করছি। সকল জনপ্রতিনিধিদের সজাদ থাকতে বলা হয়েছে। কোনো জায়গায় যেন বাঁধ ভেঙ্গে জনগণের জানমালের ক্ষতি না হয় এ জন্য আমরা সজাগ দৃষ্টি রাখছি।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫