ঢাকা, শনিবার,১৮ নভেম্বর ২০১৭

আইন ও বিচার

বিচারপতি খায়রুল হকের অপসারণ ও গ্রেফতার দাবি আইনজীবী ফোরামের

নিজস্ব প্রতিবেদক

১৩ আগস্ট ২০১৭,রবিবার, ১৫:২০


প্রিন্ট
এ বি এম খায়রুল হক

এ বি এম খায়রুল হক

ষোড়শ সংশোধনীর রায় নিয়ে আইন কমিশনের চেয়ারম্যান ও সাবেক প্রধান বিচারপতি এ বি এম খায়রুল হক আপত্তিকর বক্তব্য দেয়ায় তাকে অপসারণ ও গ্রেফতার দাবি করেছে বিএনপিপন্থী আইনজীবীদের সংগঠন জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম।

এদিকে ষোড়শ সংশোধনী রায়ের পক্ষে ও বিপক্ষে-বিক্ষোভ মিছিল করেছে আওয়ামী লীগ ও বিএনপিপন্থী আইনজীবীরা।

বিএনপিপন্থী শতাধিক আইনজীবী আজ রোববার সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী ভবনে বিক্ষোভ মিছিল করে। মিছিল শেষে আইনজীবী ভবনের নিচে সমাবেশ করে।

সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সম্পাদক ও জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের মহাসচিব মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেন, বিচারপতি খায়রুল হক ডাবল স্ট্যান্ডার্ড গ্রহণ করেছেন। তিনি তার রায়ে বলেছেন, বিচারপতিদের অবসরগ্রহণের পর চাকরিতে যোগদান করা উচিৎ ন। আবার তিনি সরকারি চাকরি নিয়েছেন। তিনি প্রধান বিচারপতি ও ষোড়শ সংশোধনী নিয়ে আপত্তিকর বক্তব্য দিয়ে চাকরিবিধি লঙ্ঘন করেছেন।

তিনি বলেন, তত্ত্বাবধায়ক সরকারের বাতিল সংক্রান্ত মামলায় ওপেন কোর্টে যে রায় দেয়া হয়েছিল, ১৬ মাস পর সেই রায় পাল্টে দিয়েছেন। এ রায় দিয়ে তিনি জাতির সঙ্গে প্রতারণা করেছেন। অনেকে বলছেন, তাকে দেশ ছাড়া করতে হবে, আমি বলছি, তাকে গ্রেফতার করে জনতার আদালতে বিচার করতে হবে।

রায় নিয়ে সরকারের মন্ত্রীদের আপত্তিকর বক্তব্য দিচ্ছেন উল্লেখ করে মাহবুব উদ্দিন খোকন বলেন, ষোড়শ সংশোধনীর রায় ভালোভাবে না পড়ে তারা লাগামহীন বক্তব্য দিচ্ছেন। অর্থমন্ত্রী বলেছেন, যতবার ষোড়শ সংশোধনী বাতিল করবে ততবার সংসদে তা পাস করা হবে। এটা বলে তিনি আদালত অবমাননা করেছেন। একমাত্র তিনি তার বয়সের কারণে মাথা ঠিক নেই বলে বাঁচতে পারেন।

খাদ্যমন্ত্রী সর্বোচ্চ আদালত থেকে সাজাপ্রাপ্ত উল্লেখ করে আইনজীবী ফোরামের মহাসচিব বলেন, রায় নিয়ে খাদ্যমন্ত্রী কী বলেছেন। অথচ তিনি সর্বোচ্চ আদালত থেকে সাজাপ্রাপ্ত।

সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন নিতাই রায় চৌধুরী, বিএনপির আইন সম্পাদক সানাউল্লাহ মিয়া, সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী ফোরামের সম্পাদক বরুদ্দোজা বাদল প্রমুখ।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫