ঢাকা, বৃহস্পতিবার,১৭ আগস্ট ২০১৭

অ্যাথলেটিকস

সবার কাছে ক্ষমা চাইলেন বোল্ট (ভিডিও)

নয়া দিগন্ত অনলাইন

১৩ আগস্ট ২০১৭,রবিবার, ১৩:৪৩


প্রিন্ট
ট্র্যাকে ইনজুরিতে আক্রান্ত উসাইন বোল্ট

ট্র্যাকে ইনজুরিতে আক্রান্ত উসাইন বোল্ট

শেষ পর্যন্ত দেশের হয়ে নিজের বিদায়টা সুখকর করতে পারলেন জ্যামাইকান গতি মানব উসাইন বোল্ট। ৪x১০০ মিটার রিলেতে ক্যারিয়ারের শেষ পদকটা এনে দিতে পারেননি দেশকে, বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশীপের ফাইনালে ৫০ মিটার দৌড় শেষ করার পরে বাম থাইয়ের পেশীতে টান পড়ায় তিনি ট্র্যাকে লুটিয়ে পড়েন। সাথে সাথে জ্যামাইকার স্বর্ণ জয়ের স্বপ্ন শেষ হয়ে যায়। রিলেতে বৃটেন ৩৭.৪৭ সেকেন্ড সময় নিয়ে স্বর্ণ জয় করেছে।

ইনজুরি আক্রান্ত বোল্টকে ট্র্যাক থেকে হুইল চেয়ারে করে বাইরে নিয়ে আসা হয়। দলের হয়ে শেষ খেলোয়াড় হিসেবে বোল্ট যখন দৌড় শুরু করেছিলেন তখন জ্যামাইকা তৃতীয় স্থানে ছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত লন্ডন স্টেডিয়ামে ৬০ হাজার সমর্থককে খুশি করতে পারেননি সময়ের সবচেয়ে জনপ্রিয় এই অ্যাথলেট।

চিজিনডু উজা, এ্যাডাম জেমিলি, ড্যানিয়েল টালবোট ও নেদাননিল মিচেল-ব্লেককে নিয়ে গঠিত স্বাগতিক বৃটেন স্বর্ণ জয় করায় কিছুটা স্বস্তি পেয়েছে বোল্ট সমর্থকরা। বৃটেন থেকে ০.০৫ সেকেন্ড কম সময় নিয়ে রৌপ্য জিতেছে জাস্টিন গ্যাটলিনের নেতৃত্বাধীন যুক্তরাষ্ট্র। ৩৮.০৪ সেকেন্ড সময় নিয়ে ব্রোঞ্জ জয় করে অবাক করেছে জাপান।

জ্যামাইকান দলের চিকিৎসক ড: কেভিন জোনস জানিয়েছেন বাম পায়ের হ্যামস্ট্রিংয়ে টান পড়েছে বোল্টের। কিন্তু প্রচণ্ড ব্যাথার কারণে তিনি শেষ পর্যন্ত আর দৌড়াতে পারেননি। গত তিন সপ্তাহ তার উপর দিয়ে দারুণ চাপ গেছে। এখন তার সুস্থতার জন্য সবাই আশাবাদী।

এদিকে জ্যামাইকান দলের হয়ে দ্বিতীয় লেগে দৌড়ানো জাস্টিন ফর্টে বলেছেন, ‘আসলেই কি ঘটেছিল সে সম্পর্কে বোল্ট আমাদের কিছুই বলেনি। কিন্তু আমি যতটুকু দেখেছি তার পেশীতে টান পড়েছিল। সে এজন্য আমাদের সবার কাছে ক্ষমা চেয়েছে। কিন্তু আমরা তাকে জানিয়েছি এখানে ক্ষমা চাওয়ার কিছু নেই। ইনজুরি খেলারই একটি অংশ।’

সদ্য ১১০ মিটার হার্ডলসে চ্যাম্পিয়ন জ্যামাইকার নেতৃত্বে থাকা ওমর ম্যাকলিওড বলেছেন, বোল্টের ইনজুরি নিয়ে সবাই চিন্তা করেছে। উসাইন বোল্টের নাম সবসময়ই সবার মধ্যে জীবিত থাকবে।

চলতি সপ্তাহের শুরুতে গ্যাটলিন ও ক্রিস্টিয়ান কোলম্যানের কাছে পরাজিত হয়ে ১০০ মিটারে নিজের শিরোপা ধরে রাখতে পারেননি বোল্ট। কিন্তু ক্যারিয়ারের শেষ প্রতিযোগিতাটি নিয়ে বোল্টকে ঘিরে পুরো বিশ্ব দারুণ আশাবাদী ছিল। সে কারণেই ম্যাকলিওড, ফোর্টে, বোল্ট ও ২০১১ সালের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ইয়োহান ব্লেককে নিয়ে শক্তিশালী দল গঠন করেছিল জ্যামাইকা। লন্ডন স্টেডিয়ামে আগত সমর্থকরা নিজ নিজ দেশকে বাদ দিয়ে যেন বোল্টকে দেখতে ও তাকে শেষবারের মত সমর্থন দিতেই উন্মুখ ছিল। স্টেডিয়ামে জায়ান্ট স্ক্রিনও বোল্টের দিকেই আটকে ছিল।

প্রথম তিন লেগে বৃটেন, যুক্তরাষ্ট্র ও জ্যামাইকা সমান তালে লড়াই চালিয়েছে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত বোল্ট পড়ে গেলে জাপান তৃতীয় স্থানে উঠে আসে।

এর মাধ্যমে ১০০ ও ২০০ মিটারে বিশ্বরেকর্ড ধারী বোল্ট ১১টি বিশ্ব আসরের পদক নিয়ে ক্যারিয়ার শেষ করলেন, যুক্তরাষ্ট্রের এলিসন ফেলিক্সের থেকে যা মাত্র একটি কম। এছাড়া তার ঝুলিতে রয়েছে আটটি অলিম্পিক স্বর্ণ।

দেখুন কী হয়েছিল ট্র্যাকে-

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫