ঢাকা, বুধবার,১৩ ডিসেম্বর ২০১৭

উপমহাদেশ

চীন সীমান্তে ভারতের সাড়ে ৪ হাজার সৈন্য মোতায়েন!

নয়া দিগন্ত অনলাইন

১২ আগস্ট ২০১৭,শনিবার, ১৫:৪০


প্রিন্ট

দোকলামের পরিস্থিতি ক্রমশই আরো খারাপ হচ্ছে। চীন ও ভারতের সেনা কর্মকর্তারা মুখোমুখি হয়েও কোনো সমাধান সূত্র বের করতে পারেনি। এবার সীমান্তের দিকে আরো বেশি সেনাবাহিনী পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারত। উত্তর-পূর্বে চীন সীমান্তে আরো বেশি বাহিনী মোতায়েন করার পাশাপাশি, বিমানবাহিনীকেও হাই অ্যালার্টে রাখা হয়েছে।

সিকিম, অরুণাচল, কাশ্মীর, হিমাচল ও উত্তরাখণ্ডের মোট ৩৪৮৮ কিলোমিটার সীমান্ত জুড়ে রয়েছে চীন। আর এই সমস্ত অঞ্চলেই ভারতীয় সেনা মোতায়েন করা হয়েছে।

পিটিআই সূত্রে খবর, অন্তত ৪৫০০০ সেনা মোতায়েন করা হয়েছে।

দোকলাম এলাকাটি ১১০০০ ফুট উঁচুতে অবস্থিত। ১৪০০০ ফুট উচ্চতায় তৈরি হয়েছে ভারত-চীন সংঘাত। তাই কোনো যুদ্ধের সম্ভাবনা তৈরি হলে ভারতের ওই উচ্চতায় গিয়ে লড়াই করার ক্ষমতা রাখতে হবে।

জানা গেছে, ভারত ও চীন উভয়েই সীমান্তে ৩৫০ সেনা মোতায়েন করে রেখেছে।

এদিকে, সুকনার সামরিক ঘাঁটিতে যুদ্ধ মহড়া ছয় সপ্তাহ এগিয়ে আনা হয়েছে। যাতে যে কোনো জরুরিকালীন পরিস্থিতিতে সেনাবাহিনী প্রস্তুত থাকতে পারে। ডিমাপুরে থ্রি কর্পস ও তাওয়াং-এ ফোর কর্পসকেও তৈরি থাকতে বলা হয়েছে। এই তিন বাহিনী মিলেই শিলিগুড়ি থেকে অরুণাচল পর্যন্ত সীমান্ত পাহারা দেয়।

এক উচ্চপদস্থ কর্মকর্ত জানিয়েছেন, ‘এখনও পর্যন্ত যুদ্ধ সীমাবদ্ধ শুধুই গ্লোবাল টাইমসে। চীনের দিক থেকে যেভাবে হুমকি আসছে, তাতে সতর্ক থাকা প্রয়োজন। সর্বোপরি দুটিই পরমাণু শক্তিধর দেশ।’

বর্তমানে চীন সীমান্তে ভারত সেনা পাহারা বাড়িয়েছে ঠিকই, তবে এতটাও বাড়ায়নি যাতে পরিস্থিতি অন্যদিকে ঘুরে যেতে পারে।

দোকলামের গ্রাম খালি করার রিপোর্টও ভুল বলে জানিয়েছে চীন।

আগামী সেপ্টেম্বরেই ব্রিকস সামিটে যোগ দিতে চীনে যাচ্ছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এরপরেই পরিস্থিতির কিছু উন্নতি হতে পারে বলে আশা করা হচ্ছে।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫