ঢাকা, শনিবার,১৬ ডিসেম্বর ২০১৭

বিবিধ

দিনভর বৃষ্টি ঝরবে

নয়া দিগন্ত অনলাইন

১২ আগস্ট ২০১৭,শনিবার, ১৩:৩৯


প্রিন্ট
সারাদিন হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি হতে পারে

সারাদিন হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি হতে পারে

মাঝরাত থেকে শুরু হওয়া বৃষ্টি আজ সারাদিন অব্যাহত থাকবে। আবহাওয়া অফিস এমনটাই জানিয়েছে।

আগামী ৭২ ঘণ্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে জানানো হয়েছে, দেশের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারী থেকে অতি ভারী বর্ষণ হতে পারে। এবং বৃষ্টিপাতের প্রবণতা অব্যাহত থাকতে পারে।

আজ শনিবার সকাল ৯টা থেকে আগামী ২৪ ঘণ্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, রাজশাহী, রংপুর, ঢাকা, ময়মনসিংহ, খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের অধিকাংশ জায়গায় অস্থায়ী দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সাথে দেশের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারী থেকে অতি ভারী বর্ষণ হতে পারে।

আবহাওয়া অধিদফতর জানায়, সারাদেশে দিন ও রাতের তাপমাত্রা ১ থেকে ২ ডিগ্রী সেলসিয়াস হ্রাস পেতে পারে।

ঢাকায় বাতাসের গতি ও দিক দক্ষিণ/দক্ষিণ-পূর্ব দিক থেকে ঘণ্টায় ১০ থেকে ১৫ কি. মি.। আজ সকাল ৬টায় ঢাকায় বাতাসের আপেক্ষিক আদ্রতা ছিল ৯৭ শতাংশ।

ঢাকায় আজ সূর্যাস্ত সন্ধ্যা ৬টা ৩৪ মিনিটে এবং আগামীকাল সূর্যোদয় ভোর ৫টা ৩৩ মিনিটে।

আবহাওয়া চিত্রের সংক্ষিপ্তসারে বলা হয়েছে, মৌসুমী বায়ুর বর্ধিতাংশের অক্ষ পাঞ্জাব, হরিয়ানা, উত্তর প্রদেশ, বিহার, পশ্চিমবঙ্গ ও বাংলাদেশের মধ্যাঞ্চল হয়ে আসাম পর্যন্ত বিস্তৃত। এর একটি বর্ধিতাংশ উত্তর বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। মৌসুমী বায়ু বাংলাদেশের উপর সক্রিয় এবং উত্তর বঙ্গোপসাগরে মাঝারি অবস্থায় বিরাজ করছে।

এভাবে বৃষ্টি ঝরবে কতদিন?
বাংলাদেশের আকাশে মওসুমি বায়ু বেশ সক্রিয়। বৃষ্টির পরিমাণও বেড়েছে আগের চেয়ে বেশি। নদীতে পানির স্তরও ওপরের দিকে। পানি উন্নয়ন বোর্ড পর্যবেক্ষণ করে এমন নদীর ৮০টি পয়েন্টে গতকাল পানি বেড়েছে এবং পানি কমেছে মাত্র ১০ পয়েন্টে।

পানি বৃদ্ধির এ প্রবণতা ইঙ্গিত দিচ্ছে সামনের কয়েক দিন পানি বাড়বে। এ ছাড়া সারা দেশের বড় নদীর মধ্যে যমুনা, ব্রহ্মপুত্র, পদ্মা, সুরমা নদীর পানি বেড়েছে। এসব নদীর পানি এ সপ্তাহের পুরো সময় ধরেই বাড়ার আশঙ্কা রয়েছে।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের বন্যার পূর্বাভাস ও সতর্ক কেন্দ্রের প্রকৌশলীরা জানিয়েছেন, অভ্যন্তরীণ বর্ষণ এবং সীমান্তের ওপারের ভারতের বিভিন্ন অঞ্চলের বর্ষণের পানি নামছে ধীরে ধীরে। সীমান্তের ওপারের পানি বাংলাদেশের উল্লেখিত নদীগুলো দিয়ে নেমে আসছে এবং তা অব্যাহত থাকতে পারে। ফলে নদীর পানি বৃদ্ধির পাশাপাশি এসব নদীর তীরবর্তী এলাকায় বন্যারও আশঙ্কা রয়েছে।

আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, বাংলাদেশের আকাশে মৌসুমি বায়ু বেশ সক্রিয় অবস্থায় রয়েছে। ফলে দেশের বিভিন্ন স্থানে গত সপ্তাহজুড়েই মাঝারি ধরনের বর্ষণ হয়েছে। কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারী থেকে ভারী বর্ষণও হয়েছে।

চলতি সপ্তাহজুড়ে বাংলাদেশের আবহাওয়া এরকমই থাকতে পারে। হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বর্ষণ থাকবে। তবে কোথাও কোথাও ভারী বর্ষণও হতে পারে।

আবহাওয়া অফিসের রিপোর্ট অনুযায়ী গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যা ৬ট পর্যন্ত পূর্ববর্তী ২৪ ঘণ্টায় চট্টগ্রাম ও রংপুর বিভাগে প্রচুর বৃষ্টি হয়েছে। সবচেয়ে বেশি বৃষ্টি হয়েছে চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ড এলাকায়। এখানে রেকর্ড করা বৃষ্টির পরিমাণ ২২৮ মিলিমিটার। চট্টগ্রামের ১৩০ মিলিমিটার, রাঙ্গামাটিতে ২২৫ মিলিমিটার, হাতিয়ায় ৮৩ মিলিমিটার, কুমিল্লায় ৮১ মিলিমিটার।

গতকাল রংপুর বিভাগের সর্বত্র ভারী বর্ষণ হয়েছে।

আবহাওয়া দফতরের রেকর্ড অনুযায়ী সবচেয়ে বেশি বৃষ্টি হয়েছে ডিমলায় ১৮৯ মিলিমিটার। এরপর তেঁতুলিয়ায় ১৬৯ মিলিমিটার, রংপুরে ১২২ মিলিমিটার, সৈয়দপুরে ১০৭ মিলিমিটার, রাজারহাটে ৮২ মিলিমিটার এবং দিনাজপুরে ৬০ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। এ ছাড়া দেশের অন্যত্র ৫০ থেকে ১০০ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫