ঢাকা, শুক্রবার,২৪ নভেম্বর ২০১৭

প্রিয়জন

বইপোকা মেয়ের হিমু

রবিউল কমল

১২ আগস্ট ২০১৭,শনিবার, ০০:০০


প্রিন্ট

আমাকে বিয়ে করবেন?
রাত একটা সাইত্রিশ মিনিটে জানাব।
ছেলেটির সকাল সাতটায় অফিস। তবুও সে মেয়েটির উত্তরের আশায় জেগে আছে। ঘড়ির কাটা ঠিক রাত একটা বেজে সাইত্রিশ মিনিট। তখন ছেলেটি আবারো মেয়েটিকে নক করল।
কী করছেন?
এই তো বসে আছি। আপনি?
আপনার কথা ভাবছি।
কী ভাবছেন?
অনেক কিছ্।ু আচ্ছা এবার বলুন আমাকে বিয়ে করবেন কি না। এখন তো রাত একটা বেজে আটত্রিশ মিনিট।
কালকে বলি।
বুঝতে পারছি। আপনি এখনো ভাবতে চান। ঠিক আছে ভাবুন। আসলে বিয়ের ব্যাপার তো একটু ভেবেই সিদ্ধান্ত নেয়া ভালো। সিরিয়াসলি ভাববেন কিন্তু।
হ্যাঁ, সিরিয়াসলি ভাবব।
আমি কিন্তু বিয়ের পরে প্রেম করব।
কার সঙ্গে?
আপনার সঙ্গে।
আর কী করবেন?
জোছনা আমার খুব ভালো লাগে। তাই আপনাকে নিয়ে জোছনা দেখব। আপনার হাত ধরে হাঁটব। গন্তব্যহীন হাঁটব।
যদি পা ব্যথা করে?
তাহলে রাস্তার পাশে কোনো গাছের নিচে বসব। আপনি আমার বুকে মাথা রেখে বিশ্রাম নেবেন। আমি আপনাকে গান শোনাব।
কোন গান?
চাঁদনী পসরে কে আমায় স্মরণ করে, কে আইসা দাঁড়াইছে গো আমার দুয়ারে...
আপনি জানেন এটা আমার সবচেয়ে প্রিয় গান?
হ্যাঁ জানি।
কিভাবে?
হুমায়ূন আহমেদ আপনার প্রিয় লেখক তাই।
বেশ কিছুক্ষণ কথা নেই। দু’জনই চুপ। মেয়েটিই এবার ছেলেটিকে নক করলÑ
আমার কিন্তু বৃষ্টি ভালো লাগে। আমি আপনার হাত ধরে বৃষ্টিতে ভিজব। তবে হাঁটব না। হাঁটতে আমার ভালো লাগে না।
গান শোনাবেন না?
শোনাবো তো।
কোন গানটা?
যদি মন কাঁদে তুমি চলে এসো এক বর্ষায়...
আরে এটা তো খুব প্রিয় গান।
জানি তো।
কিভাবে?
আপনি হুমায়ূন আহমেদের ভক্ত তাই। এখানেই আমাদের দু’জনের অনেক মিল। আমরা হুমায়ূন আহমেদের ভক্ত।
বিয়ে করলে আমাকে কী দেবেন?
একগুচ্ছ কদম ফুল দেব।
কদম তো বর্ষাকালে ছাড়া পাওয়া যায় না।
তাহলে আমরা না হয় বর্ষাকালেই বিয়ে করব।
ঠিক আছে। আর কিছু দেবেন না?
এক ডজন হুমায়ূন দেবো।
সত্যি বলছেন?
তিন সত্যি।
আচ্ছা আমাকে একজন হিমু দেবেন?
কিভাবে?
আপনি হিমু হলেই তো হয়ে গেল।
তাহলে কী হবে?
আমি আপনার রূপা হবো। তারপর চুটিয়ে প্রেম করব। তবে তার আগে বিয়ে করব। বিয়ের পরে প্রেম।
ঠিক আছে আজ থেকে আমি আপনার হিমু।
তাহলে বিয়ে করতে আপত্তি নেই।
কবে বিয়ে করছেন?
কালকে বলি।
মোহাম্মদপুর, ঢাকা

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫