ঢাকা, বৃহস্পতিবার,২১ সেপ্টেম্বর ২০১৭

প্রিয়জন

শিশির মাহমুদের একগুচ্ছ কবিতা

১২ আগস্ট ২০১৭,শনিবার, ০০:০০


প্রিন্ট

তবুও ছুঁতে পারিনি আকাশের ঘুড়ি

আজকাল কলমি ফুলেরা প্রেম বোঝে না।
রাত্রির কপাট খুলে কেউ তো
খুঁজে নাকো আর রাত্রির রঙ।
এ মায়াপথে, যেখানে বাসকের গন্ধ ছড়িয়ে থাকেÑ
যেখানে অবেলায় ঝরে পড়ে কানন মালা;
ঠিক সেখানেই বসতি আমার।
মিছামিছি মায়ার সুতোয় বেঁধেÑ
কী লাভ হবে আর?
সমস্ত স্বপ্নেরা তো কফিনে মোড়া আজ।
বহুদিন আগেই হারিয়ে গেছেÑ
শেষ বিকেলের নীল অপরাজিতার ঘ্রাণ।
এখানে এখন শঙ্খের শরীরে হাসে
পোড়া পৃথিবীর বুক।
যেখানে একদিন নরম হাত রেখেছিল কেউ।
চেনা শহরে বৃষ্টিস্নাত দুপুরে হুড তোলা রিকশায়
হাতভর্তি কদম ফুল নিয়েÑ
পাশাপাশি বসেছিল বহুবার।
মেঘের আঁচল হয়েÑ
তবুও আমি ছুঁতে পারিনি আকাশের ঘুড়ি।

হৃদয় নিংড়ানো প্রেম

পাথর নুড়ির পথেÑ
যেদিন স্্েরাতের মতো ভেসে যাবে
নীল রঙের দুঃখগুলো;
সেদিন তুমিও হয়তো একচিলতে আকাশ হবে।
জল রঙের আকাশ দেখতেÑ
আমি ভীষণ ভালোবাসি।

ভালোবাসি শঙ্খের পাহাড়,
কাঠ গোলাপের ঘ্রাণ।
যদি তুমি ভাটফুল ভালোবাসো,
কোনো এক সপ্তমীর সন্ধ্যায়
দু’জনের আবার দেখা হবে।
হৃদয় নিংড়ানো প্রেমেÑ
রাত শেষে বিছানায় পড়ে রবে
কোঁচকানো চাদর।

বিবর্ণ কিছু স্বপ্ন

বহুদিন পরে যদি বেজে ওঠে হাতের কাঁকন,
ফিরে আসে চিরচেনা শরীরের গন্ধ।
তবে খইরঙা কপালে কালো টিপ হবো আমি;
যেখানে ধূসর বাতাসেÑ
শঙ্খের মতো কাঁদে ফেরারি গাঙশালিক।
শতচন্দ্র বছর পরেওÑ বুকের বামপাশে হাত দিও,
বাউণ্ডুলে এক যুবকের অস্তিত্ব টের পাবে তুমি।
ওটাই যে চিরকালের ঠিকানা আমার।
গাঢ় বিষণœতায় আজ হয়তোÑ
অবেলায় ঝরে গেছে কাঁঠালপাতারা
মহুয়া রাতের শেষেÑ
আমার জানালায় আজ উঁকি দেয়না প্রভাত রশ্মি
জানি, একদিন রোদের পৃথিবীতে রাতের বাঁশবন
চুমু খাবে নীল মেঘ।
বিবর্ণ কিছু স্বপ্নÑ
ডুমুরের গাছে রেখে যাবে একটা ভোরের দোয়েল।
লালপুর, নাটোর

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫