ঢাকা, শুক্রবার,১৮ আগস্ট ২০১৭

মিউজিক

ঈদে কী নিয়ে আসছেন হৈমন্তী

অভি মঈনুদ্দীন

১১ আগস্ট ২০১৭,শুক্রবার, ১৭:৪২


প্রিন্ট
 হৈমন্তী

হৈমন্তী

হৈমন্তী রক্ষিত, পঞ্চম শ্রেণীতে পড়ার সময়ই জীবনের প্রথম গানের অ্যালবাম প্রকাশ হয় তার। সেই থেকে আজ পর্যন্ত বাজারে তার ছয়টি একক অ্যালবাম রয়েছে। হৈমন্তীর গান যারা একবার শুনেছেন, তারাই মুগ্ধ হয়েছেন। ঠিক যেমনটি হয়েছিলেন প্রয়াত বরেণ্য চলচ্চিত্র পরিচালক চাষী নজরুল ইসলাম।

তার গান শুনেই তিনি তার ‘কোথায় আছ কেমন আছ’ চলচ্চিত্রে হৈমন্তীকে দিয়ে মুনশী ওয়াদুদের কথায় ও শেখ সাদী খানের সুর সঙ্গীতে ‘আমি এত সুখী হব’ গানটি গাওয়ার সুযোগ পেয়েছিলেন। আর এটিই ছিল হৈমন্তীর এখন পর্যন্ত শেষ প্লেব্যাক। এরপর আর প্লেব্যাক করার সুযোগ পাননি তিনি।

তবে প্লেব্যাকে না থাকলেও গেল ঈদে হৈমন্তীকে প্রিন্স মাহমুদের কথা ও সুরে তার ষষ্ঠ একক অ্যালবাম ‘প্রথম প্রেম’র দু’টি গানে পাওয়া যায় ইউটিউবে। মিউজিক ভিডিওসহ পাওয়া যায় ‘অজস্র রাত’ এবং শুধু অডিও পাওয়া যায় ‘প্রথম প্রেম’ গানটির।

দু’টি গানেই হৈমন্তীর গায়কী চমৎকারভাবে ফুটে উঠেছে। তার গায়কীতে মুগ্ধ হয়েছেন শ্রোতা দর্শক। আগামী ঈদেও এই অ্যালবামের নতুন একটি গান নিয়ে হাজির হচ্ছেন তিনি। অপ্রকাশিত ‘ফাগুন’, ‘বহুদূরে’ ও ‘বৃষ্টি’ এই তিনটি গানের একটি তিনি কোরবানির ঈদে প্রকাশ করবেন।

হৈমন্তী বলেন, ‘গানের ব্যাপারে আমি সবসময়ই ভীষণ চুজি। যে কারণে খুব ধীরে ধীরেই আমি এগিয়ে যেতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করি। আমার গান যদি কারো ভালোলাগে সেটাই আমার অনেক শান্তির আর অর্জনের বিষয় বলে মনে হয়। আমি মনেপ্রাণে একজন সঙ্গীতশিল্পী। গানই আমার আরাধনা, গানই আমার সাধনা। পথ চলতে গিয়ে শুধু সবার দোয়া আর সঙ্গীতাঙ্গনের সবার সহযোগিতা চাই। একজন শুদ্ধ সঙ্গীতশিল্পী হিসেবেই নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে চাই।’

হৈমন্তীর গানে হাতেখড়ি ছোটবেলায় ওস্তাদ বাণী কুমার চৌধুরীর কাছে। উচ্চাঙ্গ সঙ্গীতে তালিম নিয়েছেন তিনি নিরোদ বরণ বরুয়ার কাছে। পঞ্চম শ্রেণীতে থাকাবস্থায় ‘ডাকপিয়ন’ নামের প্রথম একক অ্যালবাম বাজারে আসে। এরপর ‘মনে পড়ে তোমাকে’, ‘প্রেমের ছোঁয়া’, ‘স্মৃতির ক্যানভাস’, ‘ফিরে দেখা’ একক অ্যালবাম বাজারে আসে। প্লেব্যাক প্রথম করেন তিনি শাহআলম কিরণের নির্দেশনায় ‘সাজঘর’ চলচ্চিত্রে মুনশী ওয়াদুদের কথা ও ইমন সাহার সুর সঙ্গীতে।

এখন পর্যন্ত ১৫টি চলচ্চিত্রে তিনি প্লেব্যাক করেছেন।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫