ঢাকা, শুক্রবার,১৮ আগস্ট ২০১৭

সিনেমা

মাহির স্বপ্নপূরণ

আলমগীর কবির

০৮ আগস্ট ২০১৭,মঙ্গলবার, ১৭:১৫


প্রিন্ট
মাহিয়া মাহি

মাহিয়া মাহি

প্রথম অভিনয় করে ছিলেন ২০১২ সালে ভালোবাসার রঙ ছবিতে। এরপর থেকেই মাহিয়া মাহি নামটি সবার কাছে পরিচিত। কারণ ব্যবসা সফল অনেক ছবির পাশে মাহির নামটি বসেছে। কিন্ত আলোচিত এই অভিনেত্রীর মনে একটি আক্ষেপ ছিল, সম্প্রতি তা পূরণ হয়েছে শাবনূরের সাথে একটি ছবিতে অভিনয়ের সুযোগ পাওয়ায়।

মাহি বলেন, ছবিটি পরিচালনা করবেন মোস্তাফিজুর রহমান মানিক। নাম এখনও চূড়ান্ত হয়নি, শুটিং শুরু হবে চলতি বছরের নভেম্বর থেকে। মাহি বলেন, ‘শাবনূর আপু আমার স্বপ্নের নায়িকা। তার সাথে আমাকে স্বল্প সময়ের জন্য দেওয়া হলেও আমি অভিনয় করব। কারণ তার সাথে ক্যামেরার সামনে দাড়াতে পারা মানে নতুন কিছু শেখা।’

তিনি বলেন, ‘আমার অনেক দিনের স্বপ্ন ছিল শাবনূর আপার সাথে কাজ করবো। সেই সুযোগটা পেয়ে ভালো লাগছে।’

এদিকে সম্মান জানিয়ে কথা বলায় মাহির প্রতি মুগ্ধ হয়েছেন শাবনূর। তিনি বলেন, নতুনদের জন্য সব সময় আমার পক্ষ থেকে শুভ কামনা। কেউ যখন কাউকে সম্মান করেন তখন সে নিজেই সম্মানিত হয়। মাহি নতুন প্রজন্মের অনেক ভালো একজন শিল্পী। তার ভবিষৎ অনেক উজ্জ্বল। কারণ সে অনেক পরিশ্রমী।’

সম্প্রতি অস্ট্রেলিয়া থেকে দেশে ফিরে কাজে মনোযোগ দিয়েছেন শাবনূর। পাশাপাশি অভিনেত্রী নামের সাথে যোগ করেছেন গায়িকা বিশেষণ। মোস্তাফিজুর রহমান মানিক পরিচালিত ‘এতো প্রেম এতো মায়া’ চলচ্চিত্রের টাইটেল ট্র্যাকে কণ্ঠ দিয়েছেন তিনি। গানের সুর-স্কেল-রিহার্সেল সবই ঠিক হয়ে আছে, অপেক্ষা শুধু রেকর্ডিংয়ের। শাবনূরের কণ্ঠ নিতে আগামি সপ্তাহে কলকাতা থেকে ঢাকায় আসছেন গানটির সংগীত পরিচালক। শ্রী প্রীতমের সুরে সুদীপ কুমার দ্বীপের কথায় ‘এতো প্রেম এতো মায়া’ সিনেমার টাইটেল গান এটি। গানটিতে তিনি একাই কণ্ঠ দিচ্ছেন। আর চলচ্চিত্রেও তিনি এই গানটির সাথে ঠোঁট মেলাবেন।

ঈদের পর ছবিটির শুটিংয়ের শিডিউল দিয়েছেন শাবনূর। টাঙ্গাইলে শুরু হবে শুটিং। গতবছর ছবিটির শুটিং শুরু হয়েছিল। সিনেমার অন্যান্য অভিনয়শিল্পী সাইমন সাদিক ও পিয়া বিপাশার দৃশ্যায়ন প্রায় শেষ। শাবনূর দেশের বাইরে থাকায় শুটিং করতে পারেননি। এতে তার বিপরীতে অভিনয় করছেন ফেরদৌস।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫