ঢাকা, বুধবার,২৩ আগস্ট ২০১৭

রংপুর

ডিসি অফিস থেকে ৪০০ ভূয়া অস্ত্রের লাইসেন্স

রংপুরে আরো ২৫ আগ্নেয়াস্ত্র ও ১৯৮ গুলি জমা

রংপুর অফিস

০৮ আগস্ট ২০১৭,মঙ্গলবার, ১৬:৪৩


প্রিন্ট

রংপুর ডিসি অফিসের জিএম শাখা থেকে ডিসির সই জাল করে ও ভুয়া পুলিশ ভেরিফিকেশন দিয়ে পুরাতন তারিখের ভুয়া কাগজপত্র তৈরি করে চারশ’ অস্ত্রের লাইসেন্স প্রদানের ঘটনায় আরও ২৫টি আগ্নেয়াস্ত্র এবং আরও ১৯৮ রাউন্ড গুলি জমা পড়েছে। এনিয়ে মোট অস্ত্র জমাহলো ৩৪টি এবং গুলি জমা হলো ২৮৭টি। এসব অস্ত্র আদালতের মাধ্যমে রংপুর ডিসি অফিসের ট্রেজারিতে জমা করা হয়েছে।

আজ মঙ্গলবার দুপুরে দুদকের রংপুর সমন্বিত কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক ও মামলার তদন্ত কর্মকর্তা আতিকুর রহমান এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এই তথ্য জানান।

তিনি জানান, গত দুইদিনে আমাদের তলব পেয়ে ২৫ জন দুদক অফিসে এসে ২৫টি আগ্নেয়াস্ত্র ও ১৯৮ রাউন্ড গুলি জমা দিয়েছে। এর আগে তিন তারিখে ৯টি অস্ত্র ও ৮৯ রাউন্ড গুলি জমা পড়েছিল। এর মধ্যে ৫টি একনালা বন্দুক ও ২৯টি শটগান।

তিনি জানান, কয়েকজন বাদে জমা হওয়া ৩৪টি অস্ত্রের মালিকদের সবাইসেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত বিভিন্ন পর্যায়ের সদস্য। এসব অস্ত্র রাজশাহী, দিনাজপুর ও ঢাকা থেকে কেনা হয়েছে এবং অধিকাংশই তুরস্কের। অস্ত্র ও গুলি ছাড়াও তাদের কাছে থাকা লাইসেন্সের কপিসহ অস্ত্র কেনার কাগজপত্রও জব্দ করা হয়েছে। বিকেলে রংপুর চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের মাধ্যমে অস্ত্র ও গুলিগুলো ডিসি অফিসের ট্রেজারিতে জমা দেয়া হয়েছে। এসব অস্ত্র এবং কাগজপত্রগুলো আমরা পরীক্ষা করবো।

গত ৫ জুলাই ভুয়া লাইসেন্স দেয়ার মূল হোতা রংপুর ডিসি অফিসের অফিস সহকারী কাম কম্পিউটার অপারেটর সামসুল ইসলামকে(৪৮) ঢাকা থেকে গ্রেফতার করে র‌্যাব। তার বিরুদ্ধে পুরাতন তারিখে ডিসের সই জাল করে, ভুয়া পুলিশ ভেরিফিকেশন দেখিয়ে ভুয়াভাবে দেশের বিভিন্ন স্থানে ৪০০ বেশি ভুয়া অস্ত্রের লাইসেন্স দেয়ার অভিযোগে দুদুক ও কোতয়ালী থানায় মামলা আছে।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫