ঢাকা, রবিবার,১৯ নভেম্বর ২০১৭

পাঠক গ্যালারি

পরাজিত বন্ধু আমি

কাজী সুলতানুল আরেফিন

০৫ আগস্ট ২০১৭,শনিবার, ২০:১৯


প্রিন্ট
পরাজিত বন্ধু আমি

পরাজিত বন্ধু আমি

আমার বন্ধুত্ব ছিন্ন করে সে খুব সুখী হয়েছিল। খুব ধনী স্বামী পেয়েছিল। দামি গহনা আর দামি দামি কাপড় চোপড় কোনো কিছুর অভাব ছিল না তার। না চাইতেই সব কিছু হাজির করার মতো স্বামী পেয়ে খুব দাম্ভিক হয়ে উঠেছিল সে। এখন তার অহঙ্কারে মাটিতে পা পড়ে না যেন। মাঝে মধ্যে ঘটনাচক্রে আমি সামনে এসে পড়লেও সে আমাকে না চেনার ভান করত। আমি যেন অচেনা কোনো দিশেহারা যাত্রী ছিলাম তার কাছে। আমিও মুখ বুঝে সব পরাজয় মেনে নিয়েছিলাম। অথচ এ নাহিদা আমার বুকে শুয়ে আকাশছোঁয়ার স্বপ্ন দেখত। আমার হাতে হাত ধরে নির্জন রাতে হেঁটে হেঁটে ঝিঁঝিঁ পোকাদের ডাক শোনার কথা বলত। এই ভালোবাসার বন্ধুত্ব আজীবন ধরে রাখার ওয়াদা করেছিল। আমি একটা ছোটখাটো চাকরি পেয়েছিলাম। অল্প বেতন। তবে সুখে থাকার মতো ছিল। কিন্তু রাজকীয়তা করার মতো আমার সামর্থ্য ছিল না।

অবশেষে তার পরিবার আর শুভাকাঙ্ক্ষীরা তাকে বোঝাতে সক্ষম হয়ে হয়েছিল, দুনিয়ায় টাকা থাকলে তবেই সুখ। টাকা থাকলে এসব ভালোবাসা উপচে পড়ে। সে অবশেষে আমার মতো দরিদ্রের ভালোবাসা উপেক্ষা করে ইতালি প্রবাসী ধনীর গলায় মালা পরিয়ে দিয়েছিল। আমি পরাজিত সৈনিক হয়েও সুখে ছিলাম। তার সুখ দেখে আমার সুখ হতো।

কিন্তু একদিন বাড়ির আঙিনায় একটা দাঁড়কাক আমার জন্য দুঃসংবাদ নিয়ে এলো। আচমকা নাহিদার স্বামী খারাপ অসুখের যন্ত্রণায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেল। কিছু দিনের মধ্যে নাহিদা শোকে পাথর হয়ে গেল। নাহিদার শোক কাটানোর জন্য তার আত্মীয়স্বজন আমার শরণাপন্ন হলো। আমাদের বন্ধুত্বের দোহাই দেয়া হলো! আমি তাদের ফিরিয়ে দিতে পারলাম না। অল্প কয়েক দিনের মধ্যে আমি অনেক আনন্দ দিয়ে নাহিদার শোক কাটিয়ে দিতে সমর্থ হলাম। সবাই আমার ওপর যারপরনাই খুশি। আমিও খুশি ছিলাম। এরই মাঝে আমি আরো বড় কিছু করার খেয়ালে নিজের এলাকা ছেড়ে বড় শহরে গেলাম। অনেক চেষ্টার পর নিজের একটা ভালো অবস্থান তৈরি করতে লাগলাম। খুব দ্রুত সফলও হলাম।

এক সন্ধ্যায় আমি নিজের এলাকায় ফিরে এলাম। পরদিন ছুটে গেলাম নাহিদাকে দেখার জন্য। তার বাসায় গিয়ে দেখি সে খুব হ্যান্ডসাম আর স্মার্ট এক ভদ্রলোকের সাথে বসে হাসাহাসি করছে। আমি যেতেই আমাকে তার নতুন বন্ধুর সাথে পরিচয় করিয়ে দিলো। ভদ্রলোক নাহিদার মৃত স্বামীর বন্ধু ছিল। এখন নাহিদার বন্ধু। বুঝতে পারলাম তিনিও খুব ধনী। তাদের খুব অন্তরঙ্গ হতে দেখলাম। আমি আবারো পরাজয় মেনে নিয়ে কিছুক্ষণ পর নীরবে বেরিয়ে পড়লাম। আমি এক পরাজিত বন্ধু।

পূর্ব শিলুয়া, ছাগলনাইয়া, ফেনী

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫