ঢাকা, সোমবার,২১ আগস্ট ২০১৭

ঘটনা-দুর্ঘটনা

বাড্ডায় পুড়ে গেছে ফার্মেসিসহ ৫ দোকান

তদন্ত ও ক্ষতিপূরণ দাবি ক্ষতিগ্রস্তদের

নয়া দিগন্ত অনলাইন

০৪ আগস্ট ২০১৭,শুক্রবার, ১৮:০৩


প্রিন্ট

রাজধানীর উত্তর বাড্ডার খাঁন মসজিদের দক্ষিণ পাশে ২টি ওষুধের ফার্মেসিসহ ৫টি দোকান ও টিন সেডের কয়েকটি বসতঘর পুড়ে গেছে। শুক্রবার ভোররাতে এ ঘটনা ঘটে। এতে কমপক্ষে ১ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে দাবি করেছেন ফার্মেসি মালিকসহ ক্ষতিগ্রস্তরা। এ ঘটনায় তদন্ত ও ক্ষতিপূরণ দাবি করেছেন তারা।

আগুনে পুড়ে যাওয়া জননী ফার্মেসির মালিক ডা. বেলাল হোসাইন বলেন, আমার সহায় সম্বল বলতে যা ছিল সবই পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। আমার ফার্মেসিতে ১৫ লাখ টাকার মালামাল ছিল, আগুনে সব পুড়ে গেছে। কিছুই বের করতে পারিনি।
তিনি জানান, মমিন ফার্মেসি, এ টু জেড ইলেক্ট্রনিক্স, খালেদা জেনারেল স্টোর নামে একটি বড় মুদি দোকান ও একটি লন্ড্রি পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। এছাড়া দোকানগুলোর পেছনে থাকা কয়েকটি টিন সেডের বসতঘরও পুড়ে গেছে। সবমিলিয়ে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ ১ কোটি টাকার মতো হবে বলে তিনি জানান।

আগুনের সূত্রপাতের বিষয়ে তিনি বলেন, কিভাবে আগুন লেগেছে আমরা এখনও বলতে পারছি না। ফায়ার সার্ভিসের লোকজন ধারণা করছে লন্ড্রি থেকে অথবা রাস্তার ট্রান্সমিটার থেকে আগুনের সূত্রপাত হতে পারে।

ফায়ার সার্ভিস সদর দফতরের ডিউটি অফিসার মামহমুদুল হাসান জানান, বৈদ্যুতিক গোলযোগের কারণে সৃষ্ট এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় প্রায় ৬ লাখ টাকা পরিমাণের ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। এছাড়াও যাবতীয় সবকিছু মিলিয়ে ৫ লাখ টাকা পরিমাণের মালামাল উদ্ধার করতে সক্ষম হয়েছে ফায়ার সার্ভিস। ফায়ার সার্ভিসের বারিধারা স্টেশনের ৩টি ইউনিট ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে এবং উদ্ধার কাজ সম্পন্ন করে বলেও জানান তিনি।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বাড্ডা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এম এ জলিল ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন।
এ ঘটনায় হতাহত নেই বলে জানান তিনি। তবে ফার্মেসি ও বসতঘরসহ কয়েকটি দোকান পুড়ে ছাই হয়ে গেছে বলেও তিনি জানান।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫