ঢাকা, বুধবার,২৩ আগস্ট ২০১৭

তুরস্ক

'আল-আকসা মসজিদ কেড়ে নিতে চায় ইসরাইল'

নয়া দিগন্ত অনলাইন

২৭ জুলাই ২০১৭,বৃহস্পতিবার, ১১:৪৬


প্রিন্ট
তুরস্কের পর্যটন শহর মারমারিসে গণমাধ্যমের সাথে কথা বলছেন প্রেসিডেন্ট রজব তৈয়ব এরদোগান

তুরস্কের পর্যটন শহর মারমারিসে গণমাধ্যমের সাথে কথা বলছেন প্রেসিডেন্ট রজব তৈয়ব এরদোগান

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তৈয়ব এরদোগান বলেছেন, মুসলিমদের কাছ থেকে আল-আকসা মসজিদ কেড়ে নিতে চায় ইসরাইল। বুধবার দেশটির রাজধানী আঙ্কারায় জাস্টিস অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট পার্টির সাথে এক বৈঠকের পর তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, আল-আকসায় নামাজ পড়তে যাওয়া মুসলিমদের সন্ত্রাসী বলে চিহ্নিত করা কোনোভাবেই মেনে নেয়া যায় না।

এরদোগান বলেন, ‘সবাই জানে ইসরাইল শুধু নিরাপত্তার স্বার্থে এই পদপেক্ষ নেয়নি। তারা মুসলিমদের কাছ থেকে আল-আকসা ছিনিয়ে নিতে চায়।’ বিশ্ব মুসলিম সম্প্রদায়কে আল-আকসা রায় এগিয়ে আসার আহ্বান জানান তিনি।

তিনি আরো বলেন, ‘আমি মুসলিমদের বলতে চাই- যাদের সুযোগ আছে তারা জেরুসালেমে আসুন। সবাই মিলে এর রক্ষা করতে হবে।’

এদিকে জাতিসঙ্ঘের ফিলিস্তিনি রাষ্ট্রদূত রিয়াদ মানসুর বলেছেন, আল-আকসা মসজিদ নিয়ে এখন সঙ্কট চরমসীমায় পৌঁছেছে। মঙ্গলবার নিরাপত্তা পরিষদে ইসরাইলের ধ্বংসাত্মক নীতি ও আগ্রাসন থেকে ফিলিস্তিনিদের রার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

রিয়াদ মনসুর বলেন, ‘আল-আকসায় এখন পরিস্থিতি উত্তপ্ত। আমাদের এই পরিস্থিতি সামলানো উচিত। নইলে সহিংসতা আরো বাড়বে এবং পরিণতি খুব খারাপ হবে।’

তিনি বলেন, ‘ইসরাইলের কারণে আল-আকসায় এখন উত্তেজনা চরমে বিরাজ করছে। তারা মুসলিমদের কাছ থেকে এই মসজিদের দখল নিতে চায়।’


নেতানিয়াহুর নতুন নির্দেশ

ইসরাইলবিরোধী প্রচারণাকারীদের নিষিদ্ধ করতে নতুন নির্দেশ জারি করেছে নেতানিয়াহু সরকার। মার্চে নেসেটে পাস হওয়া এক আইনের বলে নতুন ওই নির্দেশ জারি করা হয়েছে।

নতুন মানদণ্ড অনুযায়ী, যেসব অধিকারকর্মী ও সংস্থা ‘সক্রিয়ভাবে এবং অনবরত’ ইসরাইলকে বর্জনের পে প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছে তারা নিষিদ্ধ বলে বিবেচিত হবেন।

তেলআবিব কর্তৃপরে দাবি, সমালোচনা কিংবা ফিলিস্তিনের প্রতি অঙ্গীকারের কারণে নয়, তারা নিষিদ্ধ বিবেচিত হবেন ইসরাইলের জন্য ‘হুমকি’ হওয়ার কারণে।


সোমবার বয়কট, ডাইভেস্টমেন্ট অ্যান্ড স্যাংকশনস (বিডিএস) মুভমেন্টের সঙ্গে জড়িত থাকা ভিন্ন ভিন্ন ধর্মের পাঁচ অ্যাক্টিভিস্টকে যুক্তরাষ্ট্র থেকে ইসরাইলগামী একটি ফাইটে উঠতে বাধা দেয়া হয়। এ নিয়ে সমালোচনার মুখে একদিনের মাথায় ইসরাইলের পক্ষ থেকে নতুন মানদণ্ডে নিষেধাজ্ঞার সিদ্ধান্তের বিস্তারিত জানানো হলো।


নিষেধাজ্ঞা আরোপের আইনটি ইসরাইলি পার্লামেন্ট নেসেটে পাস হয় গত মার্চে। মঙ্গলবার ইসরাইলের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে দেয়া এক বিবৃতিতে নতুন নির্দেশনার কথা জানানো হয়েছে।

বিবৃতিতে জোর দিয়ে বলা হয়, ‘ইসরাইল সরকারের নীতিমালার প্রতি সমালোচনামূলক এজেন্ডা বাস্তবায়নের কারণে ইসরাইলবিরোধী কিংবা ফিলিস্তিনপন্থী কোনো সংস্থার প্রবেশাধিকার নিষিদ্ধ হচ্ছে না।’

ইসরাইলবিরোধী প্রচারণাকে রাষ্ট্র হিসেবে এর বৈধতা খর্ব করার চেষ্টা এবং দেশটির স্থায়িত্ব ও জাতীয় নিরাপত্তার জন্য ‘হুমকি’ বলেও উল্লেখ করা হয়েছে বিবৃতিতে।

ইসরাইলি সংবাদমাধ্যম হারেৎজ জানিয়েছে, পাঁচ মার্কিনিকে প্রবেশে বাধা দেয়ার পক্ষে অবস্থান জানিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আরিয়ে ডেরি এবং কৌশলবিষয়ক মন্ত্রী গিলাড এরডান যৌথ বিবৃতি দিয়েছেন।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫