ঢাকা, বুধবার,২৩ আগস্ট ২০১৭

বিবিধ

ট্রেন চলবে আকাশে! (ভিডিওসহ)

নয়া দিগন্ত অনলাইন

২৫ জুলাই ২০১৭,মঙ্গলবার, ১৩:৪২ | আপডেট: ২৫ জুলাই ২০১৭,মঙ্গলবার, ১৩:৪৬


প্রিন্ট
স্কাইট্রেন

স্কাইট্রেন

গতি প্রতি ঘণ্টায় ৭০ কিলোমিটার। ধারণ ক্ষমতা সর্বোচ্চ ৫১০ জন। 'আকশপথে' পরীক্ষামূলক ভাবে শুরু হল 'ঝুলন্ত' ট্রেনের ট্রায়াল। সফল হলেই চীনে চালু হবে হাই স্পিড স্কাইট্রেনের যাত্রা।

আপাতত শানদং প্রদেশের কুইংদাও শহরেই পরীক্ষামূলকভাবে শুরু হয়েছে 'স্কাইট্রেনে'র ট্রায়াল।

চীন দাবি করছে, যদি এই ট্রেনের ট্রায়াল পিরিয়ডে সফলতা অর্জন করা যায় তাহলে এটিই হবে চীনের সবচেয়ে দ্রুত গতির রেলপথ।

তাদের আরো দাবি, এই 'স্কাইট্রেন' নাকি চীনের বহুল প্রচলিত সাবওয়ে ট্রেনের তুলনায় তিন গুণ ভালো পারফর্ম করতে পারবে। মূলত পার্বত্য অঞ্চল এবং বড় বড় শহরের যানজট জর্জরিত এলাকায় এই ট্রেন পরিষেবা বেশ কার্যকরী হবে বলেই মনে করছে তারা।

এছাড়াও কম খরচ এবং প্রচলিত যানবাহনের তুলনায় সহজভাবে পরিচর্যা করা যাবে এই 'স্কাইট্রেন'র, দাবি এই ট্রেনের ডিজাইনারের।

ট্রেনটি বানিয়েছে কুইংদাও সিআরআরসি শিফাং কোং লিমিটেড।

এই প্রজেক্টের টেকনিক্যাল ডিরেক্টর লিয়ু হুয়েন জানিয়েছেন, "স্বল্প খরচে সবচেয়ে ক্ষমতাশীল যান তৈরির দিকেই আমাদের নজর ছিল। এই স্কাইট্রেন শব্দ নিয়ন্ত্রিত, আধুনিক অপারেটিং সিস্টেমই এটি চলবে।"

উল্লেখ্য, 'স্কাইট্রেনে'র পরিষেবা এর আগে প্রথম শুরু হয় জার্মানিতে, তারপর জাপানে। ১৯০১ সালে জার্মানিতে প্রথম 'স্কাইট্রেনে'র পরিষেবা চালু হয়। চীন এই ক্ষেত্রে বিশ্বের তিন নম্বর দেশ হিসাবে দ্রুত গতির স্কাইট্রেন পরিষেবা চালু করতে চলেছে।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫