ঢাকা, শুক্রবার,১৮ আগস্ট ২০১৭

বিবিধ

চীনে ৮টি প্র্যাকটিস ম্যাচ খেলবে হকি দল

ক্রীড়া প্রতিবেদক

২৩ জুলাই ২০১৭,রবিবার, ২১:৫৮


প্রিন্ট

অবশেষে আশা পূরণ হতে চলেছে জাতীয় হকি দলের। ৩ আগস্ট ২২ জন হকি খেলোয়াড় ও দুইজন কোচসহ মোট ২৪ জনের দল চীনের উদ্দেশে ঢাকা ছাড়বে। সেখানে তারা বিভিন্ন ক্লাবের সাথে আটটি প্র্যাকটিস ম্যাচ খেলবে। প্র্যাকটিস ম্যাচগুলো হবে ৬, ৭, ৯, ১১, ১২, ১৪, ১৬ ও ১৮ আগস্ট। পরিকল্পনা অনুযায়ী ১৯ আগস্ট ঢাকায় ফিরবে পুরো দল।
তবে সেখানে কাদের সাথে খেলবে সেটি এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি। চীনে গান্সটু অ্যাথলেটিক অ্যান্ড হকি
অ্যাডমিনিস্ট্রেশন সেন্টারে উঠবে জাতীয় দলটি। সেখান থেকেই তারা ঠিক করবে কোন কোন ক্লাবের সাথে খেলবে জিমি চয়নরা। অর্থাৎ মিডিয়া হিসেবে কাজ করছে গান্সটু।

যা হোক, আশা পূরণ হতে চলেছে পুরো দলের। ঘরের মাঠে অনুষ্ঠিত ওয়ার্ল্ড হকি লিগ রাউন্ড টুয়ের আগে দলটি কতবার যে বাহফের কাছে অনুরোধ করেছে প্র্যাকটিস ম্যাচ খেলার। বাহফে কর্তারা শুধু আশ্বাসই দিয়েছেন। বাস্তবে রূপ দিতে পারেননি। এবার সেটির ব্যত্যয় হলো। এশিয়া কাপের আগেই দলটিকে প্র্যাকটিস ম্যাচ খেলার জন্য চীন পাঠাচ্ছে বাহফে। এরপর ফেডারেশন সূত্র মতে মাসখানেকের মধ্যে ভারতে চার-পাঁচটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলতে যাবে জাতীয় হকি দল। তা ছাড়া সেপ্টেম্বরের দ্বিতীয় সপ্তাহে মালয়েশিয়া গিয়ে কয়েকটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলার পরিকল্পনা আছে।

খেলোয়াড়দের মতে, এখানে বছরের পর বছর প্র্যাকটিস করলেও কোনো কাজে আসবে না। কারণ আমরা যা শিখছি, তা প্রয়োগ করার জায়গা নেই। সবাই সবাইকে চিনি বা জানি। কার কী ফরম্যাট সব কিছুই জানা। যাদের সাথে প্র্যাকটিস ম্যাচ খেলি তারা তো আমাদেরই সমকক্ষ কিংবা জুনিয়র। ম্যাচ টেম্পারমেন্ট আসে না। সিরিয়াস হতে চাইলেও পারা যায় না। অটোম্যাটিক মনের মধ্যে একটা ভাব চলে আসে, প্রতিপক্ষ তো আমাকে আটকাতে পারবে না কিংবা সে তো আমার সমকক্ষ নয়। এ ক্ষেত্রে যদি প্রতিপক্ষ অপরিচিত হয়, সে জুনিয়র কিংবা শিক্ষানবিশ হলেও অটোম্যাটিক ম্যাচে সিরিয়াসনেস চলে আসে। আমরা যেহেতু এশিয়া কাপে বিদেশী দলগুলোর বিপক্ষেই খেলব তখন এই চীন সফর আমাদের আরো বেশি উজ্জীবিত করবে। এরপর যদি ভারত ও মালয়েশিয়ায় গিয়ে কয়েকটি ম্যাচ খেলতে পারি তখন অন্যরকম টেম্পারমেন্ট তৈরি হবে। বাহফেকে ধন্যবাদ এমন একটি আয়োজন করার জন্য।

প্রধান কোচ মাহবুব হারুন বলেন, ‘প্র্যাকটিস ম্যাচের যে কী গুরুত্ব এটা তো সবাই জানেন। ছেলেরা যা শিখছে সেটি প্রয়োগ করার জন্য প্র্যাকটিস ম্যাচ। আমাদের যে ক্যাম্পটি মওলানা ভাসানীতে হতো, সেটিই হতে যাচ্ছে চীনে। সেখানে ১৬ দিনে আমরা আটটি ম্যাচ খেলব। ৩ আগস্ট চীনের উদ্দেশে রওনা হয়ে ১৯ আগস্ট ফিরে আসার পরিকল্পনা রয়েছে। তবে সেখানে কার সাথে খেলব সেটি এখনো ঠিক হয়নি। এশিয়া কাপের আগে এই চীন সফর সত্যিকারার্থেই অনেক গুরুত্ব বহন করবে।’

ঢাকায় দ্বিতীয়বারের মতো হতে যাওয়া এশিয়া কাপের দশম আসরে অংশ নেবে দক্ষিণ কোরিয়া, ভারত, পাকিস্তান, মালয়েশিয়া, চীন, জাপান, ওমান ও বাংলাদেশ। শক্তির তুলনায় বাংলাদেশই সবচেয়ে পিছিয়ে। বাংলাদেশ হকি ফেডারেশনের লক্ষ্য অন্তত ষষ্ঠ স্থান লাভ করা। তাহলে পরবর্তী এশিয়া কাপের বাছাইপর্ব না খেলে সরাসরি মূল পর্বেই খেলতে পারবে লাল-সবুজের দল। সে লক্ষ্যেই এত আয়োজন।

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫