ঢাকা, বৃহস্পতিবার,২০ জুলাই ২০১৭

কূটনীতি

কর্ণফুলী নদীর ওপর মিজোরামের সাথে সেতু হচ্ছে

কূটনৈতিক প্রতিবেদক

১৭ জুলাই ২০১৭,সোমবার, ২০:০৭


প্রিন্ট
কর্ণফুলী নদী (ফাইল ফটো)

কর্ণফুলী নদী (ফাইল ফটো)

ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্যগুলোর সাথে যোগাযোগ বৃদ্ধির লক্ষ্যকে সামনে রেখে কর্ণফুলী নদীর ওপর মিজোরামের সাথে সেতু নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। বাংলাদেশের একটি প্রতিনিধি দল সেতু নির্মাণের স্থান পরিদর্শন করে এসেছেন।

প্রতিবেশী দেশের সাথে সংযোগ স্থাপনের গুরুত্ব বিবেচনায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ইতোমধ্যে সেতুটি নির্মাণের অনুমোদন দিয়েছেন।

কর্ণফুলী নদীর উৎস মিজোরামের লুসাই পাহাড়ে। ২৭০ কিলোমিটার দীর্ঘ নদীটি পার্বত্য চট্টগ্রাম ও চট্টগ্রাম হয়ে বঙ্গোপসাগরে মিলিত হয়েছে। আর মিজোরামের সাথে বাংলাদেশের সীমান্ত রয়েছে ৩১৮ কিলোমিটার।

মিজোরামের মামিট জেলায় গত ৮ আগস্ট বাংলাদেশ ও মিজোরামের কর্মকর্তাদের মধ্যে বৈঠক হয়। বৈঠক শেষে রাজ্যের শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক পরিচালক সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে বলেন, দুই দেশের কর্মকর্তারা সেতু নির্মাণ কাজ দ্রুত এগিয়ে নেয়ার ব্যাপারে আলোচনা করেছে। এর বাইরে দ্বিপক্ষীয় অন্যান্য ইস্যু নিয়েও আলোচনা হয়েছে।

বৈঠকের পর দুই দেশের কর্মকর্তারা সেতুর জন্য প্রস্তাবিত স্থান পরিদর্শন করেন। সেতুটি মিজোরামের সাথে বাংলাদেশের সড়ক যোগাযোগ ও বাণিজ্য বাড়াতে সহায়ক হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

এদিকে, উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় অপর রাজ্য মেঘালয়ে বাংলাদেশ ও ভারতের সীমান্তরক্ষীদের মধ্যে চারদিনের বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। শিলংয়ে অনুষ্ঠিত এ বৈঠকে সীমান্তে বাংলাদেশীদের অবৈধভাবে হত্যা এবং বাংলাদেশে ভারতীয়দের অবৈধ অনুপ্রবেশ নিয়ে আলোচনা হয়েছে। এতে উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্যগুলোর বিচ্ছিন্নতাবাদীদের তৎপরতা নিয়েও আলাপ হয়।

বৈঠকে বাংলাদেশ প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) অতিরিক্ত মহাপরিচালক জাহিদ হোসেন। আর ভারতীয় প্রতিনিধি দলের নেতৃত্বে ছিলেন বর্ডার সিকিউরিটি ফোর্সের (বিএসএফ) মহাপরিদর্শক ইউ সি সারাঙ্গি।

 

 

অন্যান্য সংবাদ

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫