ঢাকা, শনিবার,২২ জুলাই ২০১৭

যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডা

হাইপারসোনিক মিসাইল পরীক্ষা যুক্তরাষ্ট্রের, টার্গেট রাশিয়া-চীন

নয়া দিগন্ত অনলাইন

১৭ জুলাই ২০১৭,সোমবার, ১৫:৫৩


প্রিন্ট

যুক্তরাষ্ট্র এমন এক হাইপারসোনিক এয়ারক্রাফ্ট মিসাইল পরীক্ষা করছে যা সেকেন্ডে এক মাইল পর্যন্ত উড়তে সক্ষম৷ আমেরিকা এবং অস্ট্রেলিয়া দুই দেশ যৌথভাবে এই মিসাইল পরীক্ষায় এগিয়ে এসেছে৷ হাইপারসোনিক মিসাইলের গতি শব্দের গতিবেগের থেকে ৫গুণ বেশি৷ এর গতি প্রতি ঘন্টায় ৬,২০০কিলোমিটার থেকে ১২,৩৯১কিলোমিটারের মধ্যে৷ X-51A ওয়েবরাইডার নামের এই মিসাইলকে এমনভাবে ডিজাইন করা হয়েছে যে এর গতি বেড়ে ১২,৩৯১কিলোমিটার হয়েছে প্রতি ঘন্টায়৷
হাইপারসোনিক ইন্টারন্যাশনাল ফ্লাইট রিসার্চ এক্সপেরিমেন্টশন নাম রাখা হয়েছে এই প্রোগ্রামের৷ দক্ষিণ অস্ট্রেলিয়ার বুমেরা পরীক্ষা কেন্দ্র থেকে এখন পর্যন্ত হাইপারসোনিকের সফল পরীক্ষার কথাই জানা গিয়েছে৷ গত ১২ জুলাই এই পরীক্ষার বিষয়টি সম্পূর্ণ হয়েছে৷ অস্ট্রেলিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রী মরিস পেন এই বিষয়ে জানান৷ অস্ট্রেলিয়ার বিএই সিস্টেমের পক্ষ থেকে জানা গেছে, এই হাইপারসোনিকের পরীক্ষা সফল হয়েছে৷ পাশাপাশি এও জানানো হয়েছে যে, এখন পর্যন্ত যত পরীক্ষা হয়েছে তার মধ্যে এই হাইপারসোনিকের পরীক্ষা সবচেয়ে জটিল ছিল৷

আমেরিকার বিমানবাহিনীর পক্ষ থেকে জেনারেল জন হেটন জানান, চীন এবং রাশিয়ার হাইপারসোনিক মিসাইল উত্তরোত্তর চিন্তা বাড়িয়ে তুলছে৷ তাই চিন-রাশিয়ার কথা মাথায় রেখে নিরাপত্তা ব্যবস্থার দিকটি আরো শক্তিশালী করে তুলতে হবে, পাশাপাশি এই হাইপারসোনিককে আরও উন্নত করে তুলতে হবে৷

বহু ব্যালিস্টিক মিসাইল এই হাইপারসোনিকের থেকেও বেশি গতিবেগের হয়ে থাকে৷ কিন্তু সেসব ব্যালিস্টিক মিসাইলের গতিপথ উপগ্রহের মারফৎ নজরবন্দি করা যায়৷ আমেরিকার কাছে এমন ধরনের ব্যবস্থা রয়েছে যা এই সব মিসাইলকে মাঝপথেই ধ্বংস করে দিতে পারে৷ তাই এর থেকে হাইপারসোনিক মিসাইল বেশিই কার্যকরী, কারণ এদের ট্র্যাক করা যায় না৷ শুধু তাই নয়, এই সব হাইপারসোনিক মিসাইল মাঝপথ থেকে তার গতিপথও পরিবর্তন করতে সক্ষম৷

 

 

Logo

সম্পাদক : আলমগীর মহিউদ্দিন

প্রকাশক : শামসুল হুদা, এফসিএ

১ আর. কে মিশন রোড, (মানিক মিয়া ফাউন্ডেশন), ঢাকা-১২০৩।
ফোন: ৫৭১৬৫২৬১-৯

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত | নয়া দিগন্ত ২০১৫